রাজ্যসভা নির্বাচন: ক্রস ভোটিং-এর পর দলবদল, তিন বাম বিধায়ক যোগ দিচ্ছেন তৃণমূলে, ভোট নষ্ট করলেন কং বিধায়ক লেবু, সহজ জয় পেলেন চার তৃণমূল ও এক বাম প্রার্থী, উঠল ভোট কেনাবেচার অভিযোগ

বাম ও কংগ্রেস বিধায়ক ভাঙিয়ে রাজ্যসভার চতুর্থ আসনেও জয় নিশ্চিত করল তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূলের পক্ষে ভোট দিয়েছেন গাজোলের কংগ্রেস বিধায়ক সুশীল রায়, সুতির কংগ্রেস বিধায়ক ইমানি বিশ্বাস। তিন বাম বিধায়কের ভোটও গিয়েছে তৃণমূলের পক্ষে। তৃণমূলের পক্ষে ভোট দিয়েছেন ফরওয়ার্ড ব্লক বিধায়ক সুনীল মণ্ডল, আরএসপি বিধায়ক অনন্ত দেব অধিকারী এবং আরএসপি বিধায়ক দশরথ তিরকে। তিন প্রার্থীকে জিতিয়ে আনার পর তৃণমূলের বাড়তি আসন ছিল বিয়াল্লিশটি। গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার তিন বিধায়কের সমর্থন পায় তারা। তারপর বাম ও কংগ্রেসের পাঁচ বিধায়ক ভাঙিয়ে, চতুর্থ আসনেও তৃণমূল প্রার্থী আহমেদ হাসান ইমরানের জয় নিশ্চত হয়েছে।

রাজ্য থেকে রাজ্যসভায় পাঁচটি আসনে আজ নির্বাচন, তৃণমূলের চারজন ও বামেদের একজন প্রার্থীর জয় কার্যত নিশ্চিত, তিন বাম বিধায়ক ভোট দিলেন তৃণমূলকে

রাজ্য থেকে রাজ্যসভার পাঁচটি আসনে নির্বাচন শুরু হয়ে গেছে। তৃণমূল প্রার্থী দিয়েছে চারটি আসনে। পছন্দের ক্রমানুসারে তৃণমূলের চারজন প্রার্থী হলেন মিঠুন চক্রবর্তী, যোগেন চৌধুরী, কে ডি সিং এবং আহমেদ হাসান। বাম শিবিরে ফাটল। বাম বিধায়ক অনন্ত দেব অধিকারী ভোট দিলেন তৃণমূলকে। গলস্যার বাম বিধায়ক সুনীল মণ্ডলের ভোটও গেল তৃণমূলের পক্ষে। আরএসপি বিধায়ক দশরথ তিরকেও ভোট দিলেন তৃণমূলকে। বামেদের একমাত্র প্রার্থী ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়। কংগ্রেস ও বাম সমর্থিত নির্দল প্রার্থী এম এ মালিয়াবাদী। পশ্চিমবঙ্গ থেকে রাজ্যসভায় কোনও প্রার্থীকে জিতিয়ে আনতে কমপক্ষে উনপঞ্চাশটি আসন প্রয়োজন। সেক্ষেত্রে, তৃণমূল সরাসরি তিন প্রার্থীকে জিতিয়ে আনতে পারবে। বামেরাও তাদের প্রার্থীকে জিতিয়ে আনতে পারবে।

বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের পরও বিতর্ক এড়াতে পারল না চলচ্চিত্র উত্‍সব

জমকালো উদ্বোধন, অমিতাভ বচ্চনের সগৌরব উপস্থিতি, টলিউড গ্ল্যামারের উপস্থিতি সত্ত্বেও বিতর্ক এড়াতে পারলো না এবারের আন্তর্জাতিক চলচিত্র উত্‍সব। উত্‍সব সূচনা হওয়ার আগে 'চোখের পানি' ছবি নিয়ে বিতর্ক নিয়ে সরগরম থাকল চলচ্চিত্রমহল। নন্দীগ্রামের ঘটনা নিয়ে তৈরি ছবি 'চোখের পানি' দেখানো হচ্ছে না এবারের উত্‍সবে। তারই প্রতিবাদে আজ নেতাজি ইন্ডোরের সামনে বিক্ষোভ দেখান নন্দীগ্রাম শহিদ স্মারক কমিটির সদস্যরা। কালো পতাকাও দেখানো হয় মুখ্যমন্ত্রীকে। ভিতরে যখন বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান চলছে, বাইরে তখন নন্দীগ্রামের মানুষদের আর্ত প্রতিবাদ।