বিশ্বভারতী: নির্যাতিতার বাবার ন'দফা দাবি মানল কর্তৃপক্ষ বিশ্বভারতী: নির্যাতিতার বাবার ন'দফা দাবি মানল কর্তৃপক্ষ

বিশ্বভারতী একশো আশি ডিগ্রি ঘুরে। নির্যাতিতার বাবার ন দফা দাবি, মেনে নিল বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ। মুখ্য দাবি ছিল, ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। মেয়েটি বিশ্বভারতীতে পড়তে চাইলে বিশ্বভারতী সমস্ত খরচ বহন করবে। এই ঘটনায় পুনরায় তদন্তের দাবি করলে বিশ্বভারতী সেটা করবে। কলাভবনের অধ্যক্ষ শিশির সাহানার বিরুদ্ধে দুর্বব্যবহারের অভিযোগ। উপাচার্য ডঃ সুশান্ত দত্তগুপ্তের বিরুদ্ধে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ। স্বীকার করে নিয়ে যাবতীয় দায়ভার নিয়েছে বিশ্বভারতী। ঘটনায় মূল চার অভিযুক্তের বিষয়ে যে তদন্ত রিপোর্ট আদালতে জমা দেওয়া হয়েছে বিশ্বভারতীর পক্ষ থেকে, তার আরেকটি কপি এবং হাইকোর্টের রায়, যে রায়ের ভিত্তিতে ওদের আবার পড়তে দেওয়া হয়েছে, তা দেবেন। চোদ্দ মাস ধরে বিশ্বভারতীর কর্তৃপক্ষের দ্বারা হয়রানির শিকার, তাতে বিশ্বভারতী ক্ষমা চেয়েছে। মেয়ে হয়ত পড়বে না। এক মাসের মধ্যে ফ্রুটফুল রেজাল্ট চান। আমরণ অনশনে বসবেন। 

শ্লীলতাহানির অভিযোগ মিথ্যা! রিপোর্টে দাবি যাদবপুরের আভ্যন্তরীণ তদন্ত কমিটির শ্লীলতাহানির অভিযোগ মিথ্যা! রিপোর্টে দাবি যাদবপুরের আভ্যন্তরীণ তদন্ত কমিটির

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে মার্চ মাসে ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ পুরোপুরি মিথ্যা। এমনই রিপোর্ট জমা দিল বিশ্ববিদ্যালয়ের আভ্যন্তরীণ তদন্ত কমিটি। আজ অভিযুক্ত ও অভিযোগকারী ছাত্রছাত্রীদের হাতে এই রিপোর্ট তুলে দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ইঞ্জিনিয়ারিং-এর ফেষ্ট চলাকালীন ঘটনার সূত্রপাত। সেই সময় কলাবিভাগের এক ছাত্রী  অভিযোগ করে ব্যাগ পরীক্ষার করতে বাধা দেওয়ায় তাকে শ্লীলতাহানি করা হয়েছে। যাদবপুর থানা ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে এবিষয়ে অভিযোগও জানায় ছাত্রী। ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দুই ছাত্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানায় ওই ছাত্রী। বিশ্ববিদ্যালয়েক আই সি সি কমিটি প্রায় আড়াই মাস ধরে ঘটনার তদন্ত করে সম্প্রতি রিপোর্ট জমা দিয়েছে ।

সরকারি আইনজীবীর আপত্তি সত্ত্বেও জামিন পেলেন সাত্তোরের নির্যাতিতা সরকারি আইনজীবীর আপত্তি সত্ত্বেও জামিন পেলেন সাত্তোরের নির্যাতিতা

সরকারি আইনজীবীর তীব্র বিরোধিতা সত্ত্বেও জামিন পেলেন সাত্তোরের নির্যাতিতা। শুনানিতে নজিরবিহীনভাবে নির্যাতিতার বিরুদ্ধে তীব্র আক্রমণ শানিয়েছেন সরকারি আইনজীবী। নির্যাতিতাকে  ভয়ঙ্কর, প্রচণ্ড শক্তিশালী বলে বর্ণনা করেন তিনি। খুনের চেষ্টার ধারা যুক্ত করারও দাবি তোলেন নির্যাতিতার বিরুদ্ধে। তবে সরকারি আইনজীবীর কোনও যুক্তিই গৃহীত হয়নি। জামিন পেয়ে যান নির্যাতিতা। সাত্তোর বোমা মামলায় নির্যাতিতার জামিনের শুনানিতে তীব্র বাগযুদ্ধে উত্তপ্ত হল আদালত। ভুয়ো সাক্ষ্যের অভিযোগে চাপে পুলিস। তাই হয়তো অভিযুক্তদের একবারও হেফাজতে চায়নি । কিন্তু শুরু থেকেই অসম্ভব আক্রমণাত্মক ছিলেন সরকারি আইনজীবী।

জয়পুরিয়া কলেজে এক ছাত্রের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ কলেজেরই এক ছাত্রীর জয়পুরিয়া কলেজে এক ছাত্রের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ কলেজেরই এক ছাত্রীর

জয়পুরিয়া কলেজে শ্লীলতাহানির অভিযোগ। কলেজের এক ছাত্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন কলেজেরই এক ছাত্রী। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে শ্যামপুকুর থানা। তবে এ ঘটনার পিছনে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ছায়া দেখছে ছাত্রছাত্রীদের একাংশ। জয়পুরিয়া কলেজে প্রথম বর্ষের এক ছাত্রের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ। বৃহস্পতিবার ভর্তি প্রক্রিয়া চলাকালীন কয়েকজন ছাত্র বাধা দেয় বলে অভিযোগ। এর প্রতিবাদ করেন এক ছাত্রী। প্রতিবাদ করা মাত্রই সুরজ সোনকার নামে ওই ছাত্র তাঁর শ্লীলতাহানি করে বলে অভিযোগ। এই অভিযোগ নিয়েই শ্যামপুকুর থানায় যান ওই ছাত্রী।