প্রেম হারিয়ে একা, ৬৮'র 'কিশোরের' অস্ত্র এখন বই!

প্রেম হারিয়ে একা, ৬৮'র 'কিশোরের' অস্ত্র এখন বই!

বয়স মাত্র ৬৮। আর এই বয়সে তিনি আগামী বছর ক্লাস টেনের পরীক্ষায় বসবেন। তাঁর সঙ্গেই পরীক্ষা দেবে ওই ক্লাসেরই আরও অসংখ্য পরীক্ষার্থী। ঘটনাটি শুনে অবাক লাগছে তো? লাগারই কথা। কারণ এই ধরনের ঘটনার নজির বোধ হয় খুব কটা পাওয়া যায় না।

স্কুল বিল্ডিং তৈরিতে নির্মাণ সামগ্রী সরবরাহের দাবিতে প্রধান শিক্ষককে দিনভর ঘেরাওয়ের অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে স্কুল বিল্ডিং তৈরিতে নির্মাণ সামগ্রী সরবরাহের দাবিতে প্রধান শিক্ষককে দিনভর ঘেরাওয়ের অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

জলপাইগুড়িতে সিন্ডিকেট রাজের অভিযোগ। স্কুল বিল্ডিং তৈরিতে নির্মাণ সামগ্রী সরবরাহের দাবিতে প্রধান শিক্ষককে দিনভর ঘেরাওয়ের অভিযোগ উঠল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। ঘটনা গড়ালবাড়ি এলাকার ফোদরপাড়া প্রাথমিক স্কুলে।

বার্থ সার্টিফিকেটের জন্য মা'কে 'কুপ্রস্তাব' তৃণমূল নেতার! স্কুলে যাওয়ার স্বপ্ন ছোট্ট মেয়ের! বার্থ সার্টিফিকেটের জন্য মা'কে 'কুপ্রস্তাব' তৃণমূল নেতার! স্কুলে যাওয়ার স্বপ্ন ছোট্ট মেয়ের!

দশটা বাজলেই মন খারাপ। বন্ধুরা সব স্কুলে যাবে। কিন্তু ওর যাওয়া হবে না। বছর পাঁচেকের ছোট্ট মুসকান। মায়ের কাছে বায়না ধরে স্কুলে যাওয়ার জন্য। একলা মায়ের চোখ দিয়ে জল গড়ায়। মুসকানের বায়না বাড়ে। স্কুলে তাকে যেতেই হবে। পড়াশুনা করে মায়ের দুঃখ ঘোচাতে চায় সে। কিন্তু স্কুলে যাওয়ার দরজা বন্ধ। স্কুলে ভর্তি হতে চাই জন্মের শংসাপত্র বা বার্থ সার্টিফিকেট। মুসকানের বার্থ সার্টিফিকেট নেই। তাই স্কুলেও ভর্তি হতে পারছে না ছোট্ট মেয়ে।  জন্মের পর থেকেই মুসকানের বাবা নিরুদ্দেশ। রাজমিস্ত্রীর কাজ করেই মেয়েকে বড় করছেন মা।

নিরপেক্ষ সংস্থাকে দিয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং-মেডিক্যালের পরীক্ষাগুলি নেওয়া হোক, আর্জি ICSE বোর্ডের নিরপেক্ষ সংস্থাকে দিয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং-মেডিক্যালের পরীক্ষাগুলি নেওয়া হোক, আর্জি ICSE বোর্ডের

কোনও নিরপেক্ষ সংস্থাকে দিয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং-মেডিক্যালের মতো অভিন্ন প্রবেশিকা পরীক্ষাগুলি নেওয়া হোক। কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে এবার এমনই আর্জি এবার জানাতে চলেছে ICSE বোর্ড। CBSE বোর্ডকে দিয়ে পরীক্ষা নেওয়ানোর ফলে, ক্লাস টেনের পর বেশিরভাগ ছেলেমেয়েই অন্য বোর্ডের স্কুলে পড়তে না চেয়ে, CBSE বোর্ডে পড়তে চাইছে। এমনই দাবি ICSE বোর্ড কর্তাদের।

 স্কুল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অবসরের বয়সসীমা বাড়ানোর ভাবনা শুরু করল রাজ্য সরকার স্কুল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অবসরের বয়সসীমা বাড়ানোর ভাবনা শুরু করল রাজ্য সরকার

রাজ্যের বিভিন্ন স্কুল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবসরের বয়সসীমা এবার বাড়ানোর চিন্তাভাবনা শুরু করল রাজ্য সরকার।  এই মুহুর্তে প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক এবং স্কুল সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান বা সভাপতির অবসরের বয়স ৬২ বছর । অবসরের বয়স বাড়িয়ে ৬৫ করার কথা ভাবছে রাজ্য সরকার । সেক্ষেত্রে ওইসব পদে এইমুহুর্তে যারা কাজ করছেন তাদের অনেকেই কাজ চালিয়ে যেতে পারবেন।

 পৃথিবীর সবথেকে ভয়ঙ্কর স্কুল যাত্রার ছবি দেখে শিউরে উঠছে গোটা দুনিয়া! পৃথিবীর সবথেকে ভয়ঙ্কর স্কুল যাত্রার ছবি দেখে শিউরে উঠছে গোটা দুনিয়া!

আপনি স্কুলে যেতেন কীসে করে? হয়তো বাবার সঙ্গে সাইকেলে বা বাইকে। কিংবা মায়ের সঙ্গে রিক্সাতে। অথবা স্কুল বাসে কিংবা স্কুল ভ্যানে। বা আপনার স্কুল দূরে হলে হয়তো ট্রামে বা ট্রেনে চেপে। কিংবা হয়তো হেঁটে হেঁটেই স্কুলে যেতেন আপনি।

স্কুলের মধ্যে বোমা! স্কুলের মধ্যে বোমা!

ফের বোমা উদ্ধার। এবার স্কুলের মধ্যে থেকে। সকালে  উত্তর চব্বিশ পরগনার শ্যামনগরের ঘটনা।

কবে খুলবে স্কুল? কবে শুরু হবে পড়াশোনা? কী করে শেষ হবে সিলেবাস? কবে খুলবে স্কুল? কবে শুরু হবে পড়াশোনা? কী করে শেষ হবে সিলেবাস?

ছুটি পড়েছিল এগারোই এপ্রিল। তারপরে বৃষ্টি নেমেছে, ভোট কেটেছে, গরমও খানিকটা কমেছে। কিন্তু  স্কুল খোলার কোনও নামগন্ধ নেই। দরজায় কড়া নাড়ছে আবার একটা সামার ভ্যাকেশনের ছুটি। সরকারি স্কুলগুলিতে শুধুই ছুটির মেজাজ। শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণায় ছুটির গেরোয় রাজ্যের সরকারি স্কুল।

গ্রিস-ম্যাসিডোনিয়া সীমান্তে স্কুল খুললেন চারজন শরণার্থী! গ্রিস-ম্যাসিডোনিয়া সীমান্তে স্কুল খুললেন চারজন শরণার্থী!

রাজনীতি তাঁদের দেশছাড়া করেছে। শরণার্থী শিবিরই এখন অস্থায়ী ঠিকানা। কোনও মতে খাওয়াটুকু জোটে। তবু ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা পিছিয়ে পড়বে, এ কি চোখে দেখা যায়! গ্রিস-ম্যাসিডোনিয়া সীমান্তে তাই স্কুল খুললেন চারজন শরণার্থী। বিনা পয়সার স্কুলে ছাত্রও অনেক জুটে গিয়েছে।

সবথেকে বেশি ফেসবুক ব্যবহার করে কারা? সবথেকে বেশি ফেসবুক ব্যবহার করে কারা?

সেই ২০০৪ সাল থেকে যাত্রা শুরু ফেসবুকের। দেখতে দেখতে ১২টা বছর কেটে গেল। আজ সবথেকে জনপ্রিয় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট এই ফেসবুক। সারা বিশ্বে এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া ভার। আমরা মনে করি ফেসবুক প্রধানত বেশি জনপ্রিয় টিনএজার বা কমবয়সী ছেলেমেয়েদের কাছে। কিন্তু একটা সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে এই ধারণা ভুল। জানেন কাদের কাছে বেশি জনপ্রিয় ফেসবুক?

সোমবার থেকেই স্কুলগুলিতে গরমের ছুটি দিচ্ছে বিদ্যালয় শিক্ষা দফতর! সোমবার থেকেই স্কুলগুলিতে গরমের ছুটি দিচ্ছে বিদ্যালয় শিক্ষা দফতর!

সবে এপ্রিলের ৯ তারিখ। এখন এপ্রিল বাসের ২১ দিন তো বটেই। সঙ্গে যোগ হবে মে মাস এবং জুন মাসের খানিকটা। কিন্তু এখন থেকেই হু হু করে বাড়ছে গরমের দাপট। তাই সোমবার থেকেই স্কুলগুলিতে গরমের ছুটি দিচ্ছে বিদ্যালয় শিক্ষা দফতর। ভোট প্রক্রিয়া চলাকালীন তৃণমূল ভবন থেকে ঘোষণা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের। জানালেন, দফতরের প্রধান সচিব বিজ্ঞপ্তি পাঠাবেন জেলায় জেলায়।  ভোটের মুখে দলের অফিস থেকে এমন ঘোষণা কী আদৌ করতে পারেন শিক্ষা মন্ত্রী? উঠছে প্রশ্ন।

স্কুলের খাতায় চাপ চাপ রক্ত! অল্পের জন্য রক্ষা স্কুল ছাত্রীর স্কুলের খাতায় চাপ চাপ রক্ত! অল্পের জন্য রক্ষা স্কুল ছাত্রীর

সময় যতই গড়াচ্ছে, ততই একের পর এক মর্মান্তিক ছবি উঠে আসছে পোস্তার ধ্বংসস্তূপের থেকে। সেতুর ধ্বংসাবশেষের মধ্যেই উদ্ধার হল বই ভর্তি স্কুল ব্যাগ। মহেশ্বরী স্কুলের অঙ্কিতা জৈন বলে এক ছাত্রীর। স্কুলের খাতায় চাপ চাপ রক্ত দেখে চমকে উঠতে হয়। তবে পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, অল্পের জন্য বেঁচে গেছে অঙ্কিতা। নিজের বাড়িতেই আছে সে।

স্কুলের দেওয়া ইউনিফর্ম পড়ে না আসায় ছাত্রকে বেধড়ক মার শিক্ষকের স্কুলের দেওয়া ইউনিফর্ম পড়ে না আসায় ছাত্রকে বেধড়ক মার শিক্ষকের

স্কুলের মধ্যেই ছাত্রকে বেধড়ক মার শিক্ষকের। ক্লাস সিক্সের ওই ছাত্রের ছাত্রের অপরাধ, স্কুলের দেওয়া ইউনিফর্ম পড়ে আসেনি সে। অভিযোগ, তারই শাস্তি পেতে হল মার খেয়ে। এর জেরে অজ্ঞানও হয়ে যায় ওই ছাত্র। ক্যানিংয়ের রায়বাঘিনী হাইস্কুলের এই ঘটনায় অসুস্থ ওই ছাত্র এখন হাসপাতালে ভর্তি।  

স্বাস্থ্য দফতরের দেওয়া কৃমিনাশক ওষুধের ঘটনায় ক্ষুব্ধ হাইকোর্ট স্বাস্থ্য দফতরের দেওয়া কৃমিনাশক ওষুধের ঘটনায় ক্ষুব্ধ হাইকোর্ট

কৃমিনাশক ওষুধে বিপত্তির ঘটনায় ক্ষুব্ধ হাইকোর্ট। ১০ দিনের মধ্যে স্বাস্থ্য এবং শিক্ষা দফতরকে রিপোর্ট দেওয়ার নির্দেশ প্রধান বিচারপতির।

স্বাস্থ্য দফতরের দেওয়া কৃমিনাশক ওষুধ খেয়ে রাজ্যে অসুস্থ হাজার খানেক ছাত্রছাত্রী স্বাস্থ্য দফতরের দেওয়া কৃমিনাশক ওষুধ খেয়ে রাজ্যে অসুস্থ হাজার খানেক ছাত্রছাত্রী

স্বাস্থ্য দফতরের দেওয়া কৃমিনাশক ওষুধ খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ল হাজার খানেক ছাত্রছাত্রী। এঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তী ও পূর্ব মেদিনীপুরের ময়না ও কোলাঘাটের বেশ কয়েকটি স্কুলে।