শিন্ডেকে বয়কটের পথে বিজেপি

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুশীল কুমার শিন্ডেকে বয়কটের সিদ্ধান্ত নিল বিজেপি। শুক্রবার রাজনাথ সিংয়ের নেতৃত্বে বিজেপির কোর গ্রুপের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিজেপি নেতৃত্ব পরিস্কার জানিয়ে দিয়েছে, লোকসভার নেতা শিন্ডের কোনও বার্তার প্রাপ্তি স্বীকার করবে না দল। তাঁর আহ্বানে কোনও বৈঠকেও যোগ দেবেন না বিজেপি সাংসদরা।

`গেরুয়া সন্ত্রাস` এর বিরোধিতায় দ্বিতীয় অভিষেক রাজনাথের

গেরুয়া সন্ত্রাস নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুশীল কুমার শিণ্ডের মন্তব্যের বিরোধিতায় দেশজুড়ে আজ প্রতিবাদ কর্মসূচী পালন করছে বিজেপি। এর মাধ্যমেই কংগ্রেস বিরোধী আন্দোলন গড়ে তুলতে চাইছে বিজেপি। ইতিমধ্যেই এই মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করা হয়েছে বিভিন্ন মহলে। বিজেপির সঙ্গে তাল মিলিয়েছে এনডিএ শিবিরের অন্যান্য সহযোগী দলগুলিও। বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার বলেন, এমন মন্তব্য করার আগে শিন্ডের ভাবা উচিত ছিল তিনি দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধ দমনে কড়া আইনের প্রতিশ্রুতি শিণ্ডের

মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধের ক্ষেত্রে অপরাধীরা যাতে সহজে জামিন না পায় তা দেখতে হবে। ধর্ষণের ক্ষেত্রে আমৃত্যু কারাদণ্ড ও জুভেনাইলস অ্যাক্টের ক্ষেত্রে বয়স ১৮ থেকে ১৬ নামিয়ে আনতে হবে। আজ দিল্লিতে মুখ্যসচিব ও পুলিস প্রধানদের বৈঠকে এ রাজ্যের তরফে এই দাবি করা হয়েছে।

পুলিসের ভূমিকাকে তিরস্কার হাইকোর্টের, কঠোর পদক্ষেপ ঘোষণা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

দিল্লিতে গণধর্ষণের ঘটনায় পুলিসের ভূমিকায় ক্ষুব্ধ আদালত। বাসের মধ্যে তরুণীকে ধর্ষণ এবং তাঁকে ও তাঁর সঙ্গীকে চলন্ত বাস থেকে ছুঁড়ে ফেলে দেওয়া, দিল্লি হাইকোর্ট গোটা ঘটনাটি বাড়তি গুরুত্ব দিয়ে দেখছে। সেইমতো দিল্লির নগরপাল নীরজ কুমারের কাছে ব্যাখ্যা তলব করেছে আদালত। দু`দিনের মধ্যে নগরপালকে উত্তর দিতে বলা হয়েছে। ঘটনার দিন কোথায় কোন পুলিসকর্মীরা দায়িত্বে ছিলেন, তা জানতে চাওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে ওই তরুণী এবং তাঁর সঙ্গী যেন সেরা চিকিত্সা পরিষেবা পান, সে নির্দেশও দিয়েছে দিল্লি হাইকোর্ট।