বাম ও কংগ্রেস শিবিরকে উড়িয়ে দিলেন মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়!

বাম ও কংগ্রেস শিবিরকে উড়িয়ে দিলেন মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়!

রাজ্যে বাম-কংগ্রেস জোটের চেষ্টায় কোনও লাভ হবে না। ভোটের ফল বেরোলে রাজ্যে কোনও স্বীকৃত বিরোধী দলই থাকবে না। আজ এভাবেই বাম ও কংগ্রেস শিবিরকে উড়িয়ে দিলেন  মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। বিরোধী দলের নেতারা অবশ্য দাবি করছেন, জোট নিয়ে ভয় পেয়েছেন শাসক দলের নেতারা। তাই বার বার এধরনের আস্ফালন। তৃণমূলকে হারাতে কী কংগ্রেসের হাত  ধরবে সিপিএম?  ভোটের আগে এই জল্পনায় সরগরম রাজ্য রাজনীতি। বিরোধী শিবিরে  যখন জোট তত্‍পরতা তুঙ্গে, তখনই জোট নিয়ে বার বার কটাক্ষ শোনা গেছে শাসকদলের গলায়। দলের নেতামন্ত্রীরা তো বটেও, জোট নিয়ে তীব্র আক্রমণ শানিয়েছেন খোদ তৃণমূলনেত্রীও।

কমিশনের সঙ্গে সংঘাত, সরকারের পাশে নেই বিরোধীরা

প্রত্যাশিত ভাবেই কমিশনের সঙ্গে দ্বন্দ্বে সরকারের পাশে নেই বিরোধীরা। কংগ্রেসের মতে, সরকারের সিদ্ধান্ত দূরভিসন্ধিমূলক। বিজেপি-র প্রশ্ন, যারা একটি কলেজে শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট করতে পারে না, তারা কী ভাবে কেন্দ্রীয় বাহিনী ছাড়া পঞ্চায়েত ভোট করবে? আর বিরোধী দলনেতার পরামর্শ, সংঘাত এড়িয়ে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করুক সরকার।পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে রাজ্যকে যে দিন চিঠি দিল কমিশন, সেদিনই দফায় দফায় কমিশন এবং রাজ্যপালের দ্বারস্থ হলেন বিরোধীরা।  

কমিশনের চিঠির পরও অবস্থানে অনড় তৃণমূল

কমিশনের চিঠির পরও পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে নিজেদের অবস্থানে অনড় তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূল সূত্রে খবর, দলের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে এই বিষয়ে মত পার্থক্য থাকলেও দুদিনে নির্বাচন করা থেকে সরে আসতে রাজি নন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কমিশনের চিঠির পর আইনি দিকগুলি খতিয়ে দেখতে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে মুকুল রায়কে। কয়েকজন আইনজীবীর পরামর্শও নিয়েছেন তিনি।  

মোহন কোচ হলেন প্রশান্ত ব্যানার্জি, টেকনিক্যাল ডিরেক্টর সুব্রত ভট্টাচার্য

মোহনবাগানের নতুন কোচ হলেন প্রশান্ত ব্যানার্জি।টেকনিক্যাল ডিরেক্টর হলেন সুব্রত ভট্টাচার্য।প্রথমে ইউবি গ্রুপের আপত্তি ছিল ভারতীয় কোচ নিয়োগের ব্যাপারে। সেক্ষেত্রে পাল্লা ভারি ছিল ভারতে কোচিং করানো কোনও বিদেশি কোচের।