'সারদা কাণ্ডে জড়িতরা পুজোর উদ্বোধন করছে', ফের বিস্ফোরক কুণাল ঘোষ

'সারদা কাণ্ডে জড়িতরা পুজোর উদ্বোধন করছে', ফের বিস্ফোরক কুণাল ঘোষ

ফের বিস্ফোরক কুণাল ঘোষ। প্রাণহানির আশঙ্কা প্রকাশ করে  বিচারপতির কাছে তাঁর অভিযোগ, যাঁরা সারদার সব সুবিধা নিয়েছেন তাঁরা পুজোর উদ্বোধন করে বেড়াচ্ছেন, অথচ জেলের ভিতর বসে ঢাকের আওয়াজ শুনতে হচ্ছে তাঁকে। আদালত ও সিবিআইয়ের কাছে গোপন জবানবন্দি দেওয়ার আর্জি জানান তিনি।  পাশাপাশি, এদিন আদালতে তোপ দেগেছেন সারদাকর্তা সুদীপ্ত সেনও। তাঁর অভিযোগ, যাঁরা সারদাকে প্রাণ দিয়ে বাঁচানোর চেষ্টা করেছিলেন তাঁরাই এখন জেলে। সংবাদ মাধ্যমে মুখ খুলতে চেয়ে বিচারকের কাছে আবেদন করেন সারদাকর্তা। সারদাকাণ্ডে স্বীকারোক্তিমূলক গোপন জবানবন্দি দিতে চান কুণাল ঘোষ। জবানবন্দি দিতে চান সিবিআইয়ের কাছেও। সারদা ট্যুর ও ট্রাভেলস-র সংক্রান্ত মামলায় এদিন  আদালতে তোলা হয় কুণাল ঘোষ, সুদীপ্ত সেন ও দেবযানী মুখার্জিকে।  বিচারকের কাছে প্রাণহানির আশঙ্কা প্রকাশ  করেন কুণাল ঘোষ।  

সারদা কাণ্ড: এক দিনেই বয়ান বদল বাপি করিমের, জেল হেফাজতে নীতু সারদা কাণ্ড: এক দিনেই বয়ান বদল বাপি করিমের, জেল হেফাজতে নীতু

 ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই বয়ান বদল। মিডল্যান্ড পার্কে, সারদার অফিসে যাওয়ার কথা স্বীকার করে নিলেন পরিবহণমন্ত্রী মদন মিত্রের প্রাক্তন আপ্ত সহায়ক বাপি করিম। গতকালই তিনি বলেছিলেন, একবারের জন্যেও তিনি সারদাগোষ্ঠীর ওই অফিসে যাননি। তবে আজ জেরার জন্য সিজিও কমপ্লেক্সে ঢোকার মুখে তিনি বলেন, মিডল্যান্ড  পার্কের অফিসে তিনি  গিয়েছিলেন। উদ্দেশ্য ছিল, একটি অনুষ্ঠানে তাঁদের আমন্ত্রণ জানানো। বাপি করিম এও জানিয়েছেন, ডায়মন্ডহারবার রোডে লক্ষ্মীনারায়ণ মন্দির সারাইয়ে সারদা গোষ্ঠী এক কোটি টাকা দিয়েছিল। এই মন্দিরটি বিষ্ণুপুর বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে পড়ে, যেখানকার বিধায়ক ছিলেন মন্ত্রী মদন মিত্র। সিবিআই সূত্রে জানা গেছে, যে সমস্ত প্রশ্নের মুখে বাপিকে পড়তে হচ্ছে, তার বেশিরভাগই মন্ত্রী মদন মিত্র-কেন্দ্রিক। সুদীপ্ত সেনের সঙ্গে মন্ত্রীর সম্পর্ক নিয়ে আজ ফের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে তাঁকে। একের পর এক ভুল তথ্য দিয়ে সিবিআইকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগ উঠেছে তাঁর বিরুদ্ধে।  

সারদা মামলার তদন্তের রিপোর্ট চাইল দিল্লির সিবিআই দফতর সারদা মামলার তদন্তের রিপোর্ট চাইল দিল্লির সিবিআই দফতর

সারদা মামলায় এখনও পর্যন্ত হওয়া তদন্তের ভিত্তিতে রিপোর্ট চেয়ে পাঠাল দিল্লির সিবিআই দফতর। মামলার তদন্তে আরও গতি আনার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। এরপরই এই অন্তর্বর্তীকালীন রিপোর্ট চাওয়া হয়েছে। ওই রিপোর্ট দেখে তদন্তের পরবর্তী পরিকল্পনা চূড়ান্ত করতে চলেছে সিবিআই সদর দফতর। আগামী সপ্তাহেই পাঠিয়ে দেওয়া হবে রিপোর্টটি।    কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নির্দেশ, সারদা মামলার তদন্ত আরও দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কাছ থেকে সবুজ সঙ্কেত পেয়েই তদন্তের গতি আরও বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে সিবিআই সূত্রে খবর। সেই কারণেই সারদা মামলায় এখনও পর্যন্ত হওয়া তদন্তের ভিত্তিতে একটি রিপোর্ট চেয়েছে দিল্লির সিবিআই দফতর। এর পাশাপাশি, সন্দেহভাজন হিসেবে কোন কোন প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা এবং ব্যবসায়ীর নাম উঠে এসেছে তদন্তে, তারও একটি তালিকা পাঠানো হবে দিল্লিতে।