sugar - Latest News on sugar| Breaking News in Bengali on 24ghanta.com
পাতে মিষ্টিতে টান, বাড়তে চলেছে চিনির দাম

পাতে মিষ্টিতে টান, বাড়তে চলেছে চিনির দাম

Last Updated: Monday, June 23, 2014, 18:29

পিঁয়াজ, খাদ্যশস্যের পর এবার দাম বাড়তে পারে চিনির। চিনির আমদানি শুল্ক বাড়াল কেন্দ্র। পনেরো শতাংশ থেকে আমদানি শুল্ক বাড়িয়ে চল্লিশ শতাংশ করা হয়েছে। খাদ্যমন্ত্রী রাসবিলাস পাসোয়ান জানিয়েছেন, চিনির রফতানির ওপর ভর্তুকিও বাড়ানো হচ্ছে। আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত টনপিছু তিনহাজার তিনশো টাকা ভর্তুকি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

চিনির `ঝাল` ক্রমশ বাড়ছে, আন্দোলনে রেশন ডিলাররা

চিনির `ঝাল` ক্রমশ বাড়ছে, আন্দোলনে রেশন ডিলাররা

Last Updated: Saturday, April 06, 2013, 16:19

বিনিয়ন্ত্রণের পর ৪৮ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই ক্রমশঃ ঝাঁঝ বাড়ছে চিনির। মিষ্টিমুখ করতে এবার তুলনায় অনেকটাই বেশি ব্যয় করতে হচ্ছে মধ্যবিত্তকে। চিনিকলের মালিকরা এখন থেকে আর সরকারি নির্দেশিকায় বাজারে চিনি সরবরাহ করতে বাধ্য নন। তাই গুদামে চিনি মজুদ রেখে যথেচ্ছভাবে দাম বাড়ানোর চাবিকাঠি এখন চিনিকল মালিকদের। তার প্রভাব পড়তে শুরু করেছে বাজারে।

চিনি কম হ্যায় চিনি কম হ্যায়...

চিনি কম হ্যায় চিনি কম হ্যায়...

Last Updated: Friday, April 05, 2013, 17:38

জীবন থেকে মিষ্টি চলে গেলে আর থাকে কী? খোলা বাজারে চিনি বিক্রির ওপর নিয়ন্ত্রণ তুলে নেওয়ায় এমনই প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী তাঁর ফেসবুক পেজে। এক বিবৃতিতে তিনি লেখেন,

চিনির উপর নিয়ন্ত্রণ তুলল সরকার

চিনির উপর নিয়ন্ত্রণ তুলল সরকার

Last Updated: Friday, April 05, 2013, 12:47

খোলা বাজারে চিনি বিক্রির ওপর নিয়ন্ত্রণ তুলে নিল কেন্দ্রীয় সরকার। এরফলে চিনিকল গুলির ওপর রেশনে চিনি সরবরাহের বাধ্যবাধকতা আর রইল না। সরকারের এই সিদ্ধান্তে চিনি কলগুলির বাড়তি লাভ হবে তিন হাজার কোটি টাকা। তবে এর জেরে খোলা বাজারে চিনির দাম বাড়ার আশঙ্কা নেই বলেই দাবি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

পুলিসের গুলির পর নতুন করে উত্তপ্ত কোলাপুর

পুলিসের গুলির পর নতুন করে উত্তপ্ত কোলাপুর

Last Updated: Wednesday, November 14, 2012, 18:18

আন্না হাজারের সমর্থন পেয়ে নতুন করে আন্দোলনে নামল মহারাষ্ট্রের কোলাপুরের আখ চাষীরা। তবে সেই আন্দোলন অবশ্য হিংসার আকার নিল। আর এতে মহারাষ্ট্রের কোলাপুরের দিওয়ালিতে নেমে এল অনিশ্চিয়তার অন্ধকার। যেখানে দিনের শেষে শুধুই পড়ে থাকল চাষীদের হাহাকার, আগুনে পোড়া পুলিসের জিপ, আর ভাঙাচোড়া বাস। যেখানে এখনও কান পাতলে দিওয়ালির শব্দবাজির বদলে শোনা যাবে পুলিসের গুলির শব্দ।