বাড়ছে জলস্তর, অস্তিত্ব সঙ্কটে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার

বাড়ছে জলস্তর, অস্তিত্ব সঙ্কটে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার

বদলাচ্ছে আবহাওয়া। বাড়ছে সমুদ্রের জলস্তর। আর তাতেই বৃদ্ধি পাচ্ছে সমগ্র সুন্দরবনের মানচিত্র থেকে মুছে যাওয়ার সম্ভাবনা। পশ্চিমবঙ্গ-বাংলাদেশে  বিস্তৃত ম্যানগ্রোভ জঙ্গলের পৃথিবীর বুক থেকে মুছে যাওয়ার অর্থ বহু দুষ্প্রাপ্য প্রাণী ও উদ্ভিদ প্রজাতির সঙ্গে পৃথিবী থেকে চিরতরে বিদায় নেবে ভীষণ সুন্দর রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারও।

এবার শীতে সুন্দরবন গেলেই দেখা মিলবে দক্ষিণরায়ের এবার শীতে সুন্দরবন গেলেই দেখা মিলবে দক্ষিণরায়ের

এবার শীতে আর বাঘ না দেখে ফিরতে হবে না সুন্দরবন থেকে।  পর্যটকদের জন্য বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে বন দফতর।  ঝড়খালিতে তৈরি হচ্ছে  ওয়াইল্ড অ্যানিমাল পার্ক।  পর্যটকদের জন্য  পার্কে থাকছে  দুটি রয়্যাল বেঙ্গল বাঘ।  এর পাশাপাশি বাঘের চিকিত্সার উন্নত  ব্যবস্থাও  থাকবে নোনা জল, খাড়িতে ভরা সুন্দরবনের  গভীর জঙ্গলে বাস রয়্যাল বেঙ্গল বাঘের।

সুন্দরবনের বাঘের সংখ্যা সেঞ্চুরির চৌকাঠ টপকাল

সুন্দরবনে অন্তত ১০৩টি বাঘের অস্তিস্ত নিয়ে নিশ্চিত হল বনদফতর। বনদফতর এবং ডব্লিউ ডব্লিউ এফ-এর উদ্যোগে পাতা ক্যামেরায় ১০১টি বাঘের ছবি ক্যামেরাবন্দি হয়েছে।

বড়ন্তি

সদ্যপ্রেম। ভরপুর আবেগ। খুচরো ঝগড়া নিয়ে দিব্যি চলছে প্রেম-পিরিতি। কিন্তু কলকাতায় একান্ত সময় কাটানোর জায়গার বড়ই অভাব। তাই ভ্যালেন্টাইনস ডে-কে ভরসা করে বেরিয়ে পড়ুন বড়ন্তির উদ্দেশ্যে। নিজেদেরকে চিনে নিতে আর প্রেমের পালে হাওয়া লাগাতে বড়ন্তির নির্জনতা সাহায্য করবেই।

সুন্দরবন

প্রেমটা যদিও একেবারে নতুন নয়, তবুও দু`জনের চরম ব্যস্ততা জীবন থেকে ভালবাসার সময়টুকু নির্মম ভাবে কেড়ে নিয়েছে। হাতের কাছে যখন হঠাৎ পাওয়া ছুটিটাকে এবার আর বৃথা যেতে দেবেন না। সময়ের প্রতিটা মুহূর্তকে আরও গভীর করে তোলার জন্য সুন্দরবন হতেই পারে পারফেক্ট ডেসটিনেশন।

শঙ্করপুর

সামনেই হাতছানি দিচ্ছে প্রেম দিবস। অন্য দিকে শীত শেষে বসন্তও জাগ্রত দ্বারে। এবারের ১৪-এর ভ্যালেন্টাইনস এর পরের দিনেই রসেবসে অপেক্ষা করে আছে বাঙালির চিরপুরাতন ভালবাসার দিন সরস্বতী পুজো। সেদিনটা আবার শুক্রবার। অর্থাৎ তার পরের দুদিন সাপ্তাহিক ছুটি। সবমিলিয়ে ১৪ তারিখের ছুটিটা যদি একটু ম্যানেজ করে নেওয়া যায় তাহলেই সামনে চারটে গোটা দিনের পুঁচকি ছুটি। ছোট্ট ছুটির কটাদিন বাহ্যিক ঘুণ ধরে যাওয়া প্রেমের পালে না হয় একটু হাওয়া লাগিয়েই এলেন। পুরনো প্রেমকে নতুন করে আবিষ্কার করতে অতল সমুদ্রের জুড়ি মেলা ভার।

নদীবাঁধ ভাঙ্গার আশঙ্কা সুন্দরবনে

প্রতিবছরের মত এবারও ভরা কোটালে নদীবাঁধ ভাঙার আশঙ্কায় রয়েছেন সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ এলাকার মানুষ। সুন্দরবনের কমপক্ষে এক থেকে দেড় হাজার কিলোমিটার

নদীবাঁধের অবস্থা শোচনীয়। মহালয়ার দিন শুরু হবে ষাঁড়াষাঁড়ি কোটাল। বাঁধ মেরামতির কাজ সেভাবে না হওয়ায় ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কায় আতঙ্কে রয়েছেন সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ

এলাকার মানুষ।

বোটমালিকরা ধর্মঘটে, বিঘ্নিত সুন্দরবনের নিরাপত্তা

বোট মালিকদের ধর্মঘটে সমস্যায় পড়ল সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্প। ধর্মঘটের জেরে ব্যাঘ্রপ্রকল্পে নজরদারির কাজ ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। একইসঙ্গে ভারত-বাংলাদেশ জল সীমান্তবর্তী এলাকায় নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে। গতকাল থেকে ধর্মঘট শুরু করেছে সুন্দরবন বোট সমিতি। ধর্মঘটের জেরে সমিতির ৩৬টি বোট বন্ধ রয়েছে। অথচ ওই সমিতির কাছ থেকেই বোট নিয়ে কাজ চালায় সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্প।

সুন্দরবনে ক্যামেরাবন্দি বিরল প্রাণী

সুন্দরবনে ক্যামেরাবন্দি অজানা প্রাণী মেলানিস্টিক লেপার্ড ক্যাট। প্রাথমিক পরীক্ষার পর এমনই মত ওয়াইল্ডলাইফ ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার বিশেষজ্ঞদের। সুন্দরবনে অতীতে এই প্রাণীর অস্তিত্বের কোনও প্রমাণ নেই। শুধু তাই নয়, গোটা দেশে এই প্রথমবারের জন্য লেন্সবন্দি হল এই বিরল প্রজাতির প্রাণী। বনদফতর এবং ডাবলু ডাবলু এফ ইন্ডিয়ার উদ্যোগে সম্প্রতি ক্যামেরা বসানো হয় রামগঙ্গা এবং রায়দিঘি রেঞ্জের বিভিন্ন এলাকায়।

মুক্ত মত্‍স্যজীবীরা

মুক্তি পেলেন জলদুস্যদের হাতে বন্দি ১১ জন ভারতীয় মত্স্যজীবী। বাংলাদেশি পরিচয় দিয়ে তাঁদের শুক্রবার সকালে নামিয়ে দিয়ে যায় জলদস্যুরা। এখন বাংলাদেশের বাগেরহাটের শরণখোলায় আছেন তাঁরা। ওই ১১ জনকে বর্তমানে বন বিভাগের হেফাজতে রাখা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

সুন্দরবনে ভাঙন পরিদর্শনে মুখ্যমন্ত্রী

বুধবারও সুন্দরবনে আয়লা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা এবং নদীবাঁধ পরিদর্শন করলেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন বেলা সোয়া এগারোটা নাগাদ সজনেখালির গেস্ট হাউজ থেকে বেরিয়ে পাখিরালয়ে নামেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

লোকালয়ে বাঘ?

সুন্দরবনে লোকালয়ে ফের বাঘের হানা। ঝড়খালির গঙ্গামেলা এলাকায় বৃহস্পতিবার বাঘের পায়ের ছাপ দেখা যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান বনকর্মীরা। হেড়ভাঙা জঙ্গল থেকে বিদ্যাধরী নদী সাঁতরে ঝড়খালি এলাকায় বাঘ ঢুকে পড়েছে বলে প্রাথমিকভাবে মনে করছে বনদফতর। এলাকায় আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।