চোটে জর্জরিত ভারতীয় স্কোয়াডে কি কামব্যাক করবেন যুবি?  চোটে জর্জরিত ভারতীয় স্কোয়াডে কি কামব্যাক করবেন যুবি?

শুরু হয়ে গেছে কাউন্টডাউন। বাকি আর মাত্র ১১ দিন। ৪ বছরের অপেক্ষার পর ফের শুরু হচ্ছে ক্রিকেট মহারণ। ক্রিকেট সংগ্রামের সর্ব শ্রেষ্ঠ মঞ্চে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের লড়াইয়ে এখন মত্ত লঙ্কান থেকে ক্যাঙ্গারুরা। সবাই যখন পরিকল্পনা নিয়ে ব্যস্ত, ভারত তখন  চোট আঘাতে  জেরবার। অস্ট্রেলিয়ায় আয়োজিত ত্রিদেশীয় সিরিজে টিম ইন্ডিয়া যে শুধু ব্যাটে বলে পরাজিত তা নয়, তাদের হার হয়েছে ফিটনেস পরীক্ষাতেও।  এই অবস্থায় ২০১১ বিশ্বকাপের ম্যান অফ দ্য সিরিজ যুবরাজ সিংহের কামব্যাক নিশ্চয়ই অলীক কল্পনা হবে না। বিসিসিআই  এর সভায় সেই জল্পনাই উস্কে দিয়েছেন, সম্পাদক সঞ্জয় প্যাটেল নিজেই। যুবরাজকে দলে ফিরিয়ে আনা নিয়ে বিসিসিআই  সভায় আলোচনা হয়েছে বলেও  জানিয়েছেন তিনি।  

ক্যাপ্টেনের দেশে পতনের পথে আরও একধাপ ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের

ক্যাপ্টেনের ঘরের মাঠে কামাল করল টিম ইন্ডিয়া। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে তৃতীয় একদিনের ম্যাচে ব্রিটিশদের সাত উইকেটে হারিয়ে দিল ধোনিবাহিনী। সৌজন্যে বহুদিনপর `টিম ইন্ডিয়া`। আরও খোলসা করে বললে ভারতীয়দের দল হিসাবে অলরাউন্ড পারফর্ম্যান্স। জাদেজাদের অসাধারণ স্পেলের কাছে প্রথম থেকেই নড়বড়ে ছিলেন ইংরেজরা। ৪২.২ ওভারে মাত্র ১৫৫ রানে গুটিয়ে যায় কুকদের ইনিংস। ফলে ভারত ২-১ এগিয়ে গেল সিরিজে। ভারতীয়দের বোলারদের মধ্যে সফলতম জাদেজা। তাঁর ঝুলিতে ৩টি উইকেট। ক্যাপ্টেন কুকের উইকেটটি ব্যক্তিগত ১৭ রানের মাথায় তুলে ইংরেজদের দূর্গে প্রাথমিক ফাটলটা ধরান বাংলার সামি আহমেদ। তারপর কার্যত তাসের ঘরের মত ভেঙে পড়ে পিটারসনদের ইনিংস। ইংরেজদের তরফে সর্বোচ্চ স্কোর জো রুটের। তাঁর সংগ্রহ ৩৯।