ধর্মঘটে বিক্ষিপ্ত অশান্তি জেলায় জেলায়

এগারোটি ট্রেড ইউনিয়নের ডাকা সাধারণ ধর্মঘটের প্রভাব পড়েছে বিভিন্ন জেলাতেও। বন্ধ রয়েছে অধিকাংশ দোকান বাজার। রাস্তায় জন সাধারণের উপস্থিতি অন্য দিনের চেয়ে কম। ধর্মঘটের ভাল সাড়া মিলেছে বর্ধমানে। সরকারি বাস চলছে না। হাতে গোনা কিছু বেসরকারি বাস পথে নেমেছে। ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক থাকলেও অন্যদিনের চেয়ে যাত্রী কম। বন্ধ রয়েছে এটিএম পরিষেবা।

অশান্ত হাজরায় পুলিসের লাঠিচার্জ, বচসায় মদন

আজ রাসবিহারি মোড় থেকে ধর্মঘটীদের একটি মিছিল যাচ্ছিল ভবানীপুরে। মিছিল যখন হাজরা মোড়ে, সেসময় সেখান দিয়ে যাচ্ছিলেন পরিবহণমন্ত্রী মদন মিত্র। তিনি হাজরা মোড়ে উপস্থিত পুলিসকর্মীদের মিছিল সরিয়ে দিতে নির্দেশ দেন। ধর্মঘটীদের সঙ্গে তাঁর বচসাও হয়। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।

বৈঠকই সার, ধর্মঘটে প্রায় শূন্য কলকাতার রাজপথ

শাসক এবং বিরোধীপক্ষের মধ্যে যুদ্ধং দেহি টানাপোড়েনের মধ্যেই রাজ্যে সাধারণ ধর্মঘট শুরু হয়েছে। তবে বাস এবং ট্যাক্সি মালিকদের সঙ্গে পরিবহণমন্ত্রীর দফায় দফায় বৈঠকই সার হল। ট্রেড ইউনিয়নের সাধারণ ধর্মঘটে কলকাতার রাজপথ সকাল থেকেই ফাঁকা।

ধর্মঘট নিয়ে মিলল না রফা সূত্র

কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে ট্রেড ইউনিয়নগুলির আলোচনায় ২০ এবং ২১ ফেব্রুয়ারি সাধারণ ধর্মঘট নিয়ে কোনও সমাধান সূত্র মিলল না। সোমবার রাতের এই বৈঠকে কেন্দ্রের তরফে হাজির ছিলেন তিনজন মন্ত্রী। ছিলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী এ কে অ্যান্টনি, শ্রমমন্ত্রী মল্লিকর্জুন খারগে এবং কৃষিমন্ত্রী শরদ পাওয়ার। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ১১টি কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়নের নেতারা।

ট্রেডইউনিয়নের চেহারাবদল তৃণমূলের

রাজ্যের সবকটি স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শ্রমিক সংগঠন প্রত্যাহার করল তৃণমূল কংগ্রেস। আইএনটিটিইউসি-র শ্রমিক সংগঠনের বদলে তৈরি হল সামাজিক সংগঠন। তবে নামে ট্রেড ইউনিয়ন না হলেও এই সংগঠণগুলির দায়িত্ব দেওয়া হল দোলা সেন-কে। দলে যার পরিচিতি শ্রমিক নেত্রী হিসেবেই।

সাধারণ ধর্মঘটের প্রভাব পড়ল দেশজুড়ে

এগারোটি শ্রমিক সংগঠনের ডাকে দেশজোড়া ধর্মঘটের ব্যাপক প্রভাব পড়েছে ব্যাঙ্কিং ও বিমা পরিষেবা এবং পরিবহণ ব্যবস্থায়। রেলকর্মীদের পাশাপাশি এদিনের ধর্মঘটে যোগ দিয়েছেন বিভিন্ন ক্ষেত্রের প্রায় ৮ লক্ষ সরকারি কর্মী।

কর্মসংস্কৃতি নিয়ে কঠোর হচ্ছে রাজ্য

রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের কর্মসংস্কৃতি নিয়ে কঠোর হচ্ছে রাজ্য। মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকে সরকারি কর্মীদের কাউন্সেলিং চালু হতে চলেছে। সোমবার মহাকরণে শ্রমমন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসু জানিয়েছেন, কর্মসংস্কৃতির মান বাড়াতে নীচুতলার কর্মী থেকে উচ্চ পর্যায়ের আধিকারিক, সবারই কাউন্সেলিং করানো হবে।