উদ্ধার বাঙালি পর্বতারোহী রাজীব ভট্টাচার্যের দেহ

উদ্ধার বাঙালি পর্বতারোহী রাজীব ভট্টাচার্যের দেহ

ধৌলাগিরির ক্যাম্প থ্রি ও ক্যাম্প ফোরের মাঝখান থেকে উদ্ধার হল পর্বতারোহী রাজীব ভট্টাচার্যের দেহ। তাঁর দেহ ক্যাম্প টুতে নামানো হয়েছে। সেখান থেকে নীচে নামানো হবে তাঁকে। ধৌলাগিরি অভিযানে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন এভারেস্টজয়ী রাজীব ভট্টাচার্য। সম্ভবত ১৯ মে রাতেই মৃত্যু হয় তাঁর। রাজীব ভট্টাচার্যের দেহ আনতে নেপালে রয়েছে রাজ্য সরকারের এক প্রতিনিধি দল। দেবদাস নন্দী রয়েছেন বেসক্যাম্পে।

বাংলাদেশে বজ্রপাতে ৩৫ জনের মৃত্যু, আজও ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা বাংলাদেশে বজ্রপাতে ৩৫ জনের মৃত্যু, আজও ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা

বজ্রপাতে ৩৫ জনের মৃত্যু হল বাংলাদেশে। কালবৈশাখীর ঝড়,  সঙ্গে বজ্রপাতে ভয়ঙ্কর অবস্থা একাধিক জেলার। প্রায় ১৪টি জেলা ক্ষতিগ্রস্ত বলে খবর। সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে উত্তর-পশ্চিম পাবনায়। সেখানে এখনও পর্যন্ত ৮ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। পাশেই সিরাজগঞ্জ এবং রাজশাহীতে সবমিলিয়ে মৃতের সংখ্যা ১০। কিশোরগঞ্জ,  ব্রাহ্মণবেড়িয়ায় ৪ জন করে,  মোট ৮জনের মৃত্যু হয়েছে।

২০১৬ সালের গ্রীষ্মই হতে পারে সাম্প্রতিক কালের উষ্ণতম গ্রীষ্মকাল, জানাল মৌসম ভবন ২০১৬ সালের গ্রীষ্মই হতে পারে সাম্প্রতিক কালের উষ্ণতম গ্রীষ্মকাল, জানাল মৌসম ভবন

২০১৬ সালের গ্রীষ্মই হতে পারে সাম্প্রতিক কালের উষ্ণতম গ্রীষ্মকাল। এমনটাই জানাচ্ছে দিল্লির মৌসম ভবন। এতদিনের সব রেকর্ডকে পিছনে ফেলে সেরা গরমের শিরোপা আদায় করে নিতে পারে ২০১৬।

রোদে বাইরে বেরোনোর সময় যে যে জরুরি জিনিস সঙ্গে রাখবেন রোদে বাইরে বেরোনোর সময় যে যে জরুরি জিনিস সঙ্গে রাখবেন

এপ্রিল প্রায় শেষ হতে চলল। বৃষ্টি তো মনে হচ্ছে প্লুটোর থেকেও দূরের কোনও গ্রহ। দেখা নেই কালবৈশাখিরও। ভোটের বাজারে বৃষ্টিকে মনে হচ্ছে শাসক দল। আর গরম আর কালবৈশাখি যেন জোট বেঁধেছে। তাই বৃষ্টিকে রুখতে রাজ্যে কালবৈশাখির সঙ্গে সমঝোতা করে নিয়েছে গরম। বলে দিয়েছে, 'ভাই কালবৈশাখি রাজ্যে তাপের আসনটা আমিই নেব। তুমি শুধু আমার সঙ্গে একটু থাকো। তাহলে তোমাকে বরং জাপানে কিংবা ইকুয়েডরে সুনামি করে পাঠিয়ে দেব। ওখানে তুমি যত জোড়ে পারো ক্ষমতা দেখিও।' কিন্তু গরম আর কালবৈশাখির এই জোটে প্রাণিকূলের প্রাণ যায় যায় অবস্থা।

 কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে এখনই বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে এখনই বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই

কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে এখনই বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই। তবে তাপপ্রবাহের সতর্কতা বাড়ল আরও একদিন। শুক্রবার পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গের সব জেলায় তাপপ্রবাহ চলবে। পূর্বাভাস আবহাওয়া দফতরের। ফলে গরম থেকে এখনই স্বস্তি পাচ্ছেন না শহরবাসী। আজ কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা উনচল্লিশ দশমিক ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিকের চেয়ে পাঁচ ডিগ্রি বেশি। একইসঙ্গে পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে তাপমাত্রা সবচেয়ে বেশি থাকার পূর্বাভাস রয়েছে। গরমের দাপুটে ইনিংস অব্যাহত। প্রবল তাপপ্রবাহের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বইছে লু। তীব্র গরমে হাঁসফাঁস অবস্থা মানুষের।

গরমের মাঝে বৃষ্টির খবর মৌসম ভবনের, এবার বর্ষায় বেশ ভাল বৃষ্টি হবে গরমের মাঝে বৃষ্টির খবর মৌসম ভবনের, এবার বর্ষায় বেশ ভাল বৃষ্টি হবে

চারপাশে যাকেই জিজ্ঞাসা করবেন কেমন আছেন, মোটামুটি সকলে একই উত্তর দেবেন, 'উফ যা গরম তাতে আর কেমন থাকা যায়'। সত্যিই চৈত্র মাস গেলই না এখনও, তার আগে থেকেই গরমে মানুষ পাগল হয়ে যাচ্ছে। অনেকে তো আবার অসুস্থও হয়ে পড়ছেন। গরমের হাত থেকে কীভাবে রেহাই পাবেন বুঝতে পারছেন না কেউ। সারাদিন রোদ, গরম, ঘাম, নাজেহাল করে দিচ্ছে জনজীবন। তবে এই গরমের হাত থেকে রেহাই পাওয়ার আশার আলো দেখাচ্ছে আবহাওয়া দফতর।

৫০ বছরে প্রথমবার এপ্রিলে কলকাতার তাপমাত্রা ছাড়াল ৪১ ৫০ বছরে প্রথমবার এপ্রিলে কলকাতার তাপমাত্রা ছাড়াল ৪১

প্রবল গরম। তার সঙ্গে ঝলসে দেওয়া গরম হাওয়া।  দিনভর পশ্চিমি ধাঁচের গরমের দাপটে সোমবার হাঁসফাঁস দশায় কাটাল কলকাতা। এদিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৪১.৪ ডিগ্রি। স্বাভাবিকের চেয়ে ৬ ডিগ্রি বেশি।

কাল বিভিন্ন জায়গায় লু বইবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর কাল বিভিন্ন জায়গায় লু বইবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর

তীব্র গরমে হাঁসফাঁস অবস্থা। এর মধ্যেই আগামিকাল ভোট বাঁকুড়া, বর্ধমান, পশ্চিম মেদিনীপুরের একত্রিশটি আসনে। কাল কেমন হবে ভোট, তা অনেকটাই নির্ভর করছে আবহাওয়ার ওপর। এই তিন জেলায় তাপপ্রবাহের সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দফতর। সোমবার গরম আরও বাড়বে বলে জানাচ্ছে আবহাওয়া দফতর। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস, পশ্চিম মেদিনীপুরে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪৪-৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশে পাশে থাকবে। বাঁকুড়ায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪৬-৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশে পাশে থাকবে। বর্ধমানের যে অংশে ভোট, সেখানে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থারবে ৪৪-৪৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশে পাশে থাকবে। বিভিন্ন জায়গায় লু বইবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

দক্ষিণবঙ্গের সব জেলায় ফের তাপপ্রবাহের পূর্বাভাস আবহাওয়া দফতরের দক্ষিণবঙ্গের সব জেলায় ফের তাপপ্রবাহের পূর্বাভাস আবহাওয়া দফতরের

চৈত্রেই চিত্‍ করে দিচ্ছে গরম। কী হবে বৈশাখে? ভোট, রাজনীতি থেকে দুর্নীতি। সব আলোচনাকে  পিছনে ফেলে দিয়েছে গরম। আজ কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর্দ্রতা বাড়ায় বেড়েছে অস্বস্তি। রবিবার থেকে দক্ষিণবঙ্গের সব জেলায় ফের তাপপ্রবাহের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

এপ্রিলের শুরুতেই প্রবল দাবদাহ শহরজুড়ে, নাজেহাল মানুষ এপ্রিলের শুরুতেই প্রবল দাবদাহ শহরজুড়ে, নাজেহাল মানুষ

এপ্রিলের শুরুতেই প্রবল দাবদাহ শহরজুড়ে। আজ দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আগামী দু-এক দিনেও পরিস্থিতি এরকমই থাকবে বলে আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে। অস্বস্তি থাকবে। গরমও বাড়বে। পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে তাপপ্রবাহ চলবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

একনজরে বিশ্বের হাফ ডজন খবর একনজরে বিশ্বের হাফ ডজন খবর

নব্বই ছুঁতে আর মাস খানেক বাকি। তবু কে বলবে তিনি বৃদ্ধ হয়ে গিয়েছেন? রানি এলিজাবেথ স্বমহিমায়। সোমবার ছিল কমনওয়েলথ ডে। সেই উপলক্ষ্যে সপরিবারে হাজির রানি। ছিলেন ৫৩টি দেশের প্রতিনিধিরা। সকলের সঙ্গে বেশ খানিকটা সময় কাটালেন তিনি। লন্ডনের অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন রাষ্ট্রসঙ্ঘের প্রাক্তন মহাসচিব কফি আন্নানও।

খামখেয়ালি আবহাওয়ায় মাথায় হাত চাষীদের খামখেয়ালি আবহাওয়ায় মাথায় হাত চাষীদের

খামখেয়ালি আবহাওয়া। ফেব্রুয়ারিতেই রেকর্ড গরম। আর তারপর তুমুল ঝড়বৃষ্টি। স্বস্তি মিলেছে ঠিকই। কিন্তু চাষীদের মাথায় হাত। অকাল বর্ষায় হুগলিতে নষ্ট হওয়ার পথে বিঘার পর বিঘা জমির ফসল।

আদৌ কী ফাগুনে ফিরবে বসন্ত? আদৌ কী ফাগুনে ফিরবে বসন্ত?

ফাগুনেই বৈশাখের রোদ। গরম আরও বাড়বে বলে পূর্বাভাস আবহাওয়া দফতরের। কিন্তু কেন এমন হল?  তীব্র গরম। গনগনে রোদ। এ কী ফাগুন! কেন এমন হল?  ঋতু বৈচিত্রের এই উলটপুরাণের মূলে শক্তিশালী এল নিনো। বলছেন আবহাওয়াবিদরা। গত নভেম্বর থেকেই সক্রিয় এল নিনো।

কলকাতার আবহাওয়া এবার হাতের মুঠোয় কলকাতার আবহাওয়া এবার হাতের মুঠোয়

কলকাতার জলবায়ু পরিবর্তনে কী কী বিপদ,  তা খুঁজতেই এবার নয়া কেন্দ্র তৈরি হল। উদ্যোগ কলকাতা পুরসভার। এর সঙ্গেই তৈরি হয়েছে একটি ওয়েব সাইট ও মোবাইল অ্যাপ।

ডিসেম্বরের শুরু, কিন্তু রাজ্যে কবে আসবে শীত? ডিসেম্বরের শুরু, কিন্তু রাজ্যে কবে আসবে শীত?

নভেম্বরও শেষ। খাতা খুলেছে ডিসেম্বর। অথচ শীতের দেখা নেই! উত্তুরে হাওয়ার সামনে চওড়া দিওয়ার হয়ে দাঁড়িয়ে তিন মাস্তান। নিম্নচাপ, এল নিনো আর দূষণ। তিন সমস্যার ফাঁসে বন্দি শীতবুড়োর আগমন। ডিসেম্বর পড়ে গেল। কিন্তু শীত কই? বাসে, ট্রামে, ট্রেনে এখন এটাই বড় প্রশ্ন। ঠান্ডার আমেজ দূরের কথা, এখনও ঘামছে শহর। পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বীরভূমের মতো যেসব জেলায় এই সময় বেশ ঠান্ডা পড়ে, সেখানে শীতের দেখা নেই। রোদ ঝলমলে আবহাওয়ার বদলে আকাশে মেঘ। শীতবুড়োর আসার পথে পাহারা বসাল কারা?

২০১৫ সালের থেকেও বেশি কষ্টদায়ক হতে চলেছে ২০১৬ সাল ২০১৫ সালের থেকেও বেশি কষ্টদায়ক হতে চলেছে ২০১৬ সাল

গরমের দিক থেকে রেকর্ড গড়েছে ২০১৫। এরপর ২০১৫-র রেকর্ডকেও নাকি অতিক্রম করে ফেলবে ২০১৬ সালের গরম। এমনটাই বক্তব্য ওয়ার্ল্ড মেটেরোলজিক্যাল অরগানাইজেশনের। জানা গিয়েছে, 'এল নিনো'র প্রভাবে নাকি বেড়ে যেতে পারে তাপমাত্রা।