এক জাদুকরী শিশুর গল্প

এক জাদুকরী শিশুর গল্প

চোখে জল এনে দেওয়ার মতো ঘটনা। আপনি যদি মন থেকে অনুভব করেন, তাহলে আপনার চোখে জল আসতে বাধ্য।

ডাইনি অপবাদে হাত-পা বেঁধে আদিবাসী মহিলাকে পিটিয়ে মারার ঘটনায় শিহরিত গোটা বাংলা ডাইনি অপবাদে হাত-পা বেঁধে আদিবাসী মহিলাকে পিটিয়ে মারার ঘটনায় শিহরিত গোটা বাংলা

দক্ষিণ দিনাজপুরে ডাইনি অপবাদে হাত-পা বেঁধে আদিবাসী মহিলাকে পিটিয়ে মারার ঘটনায় শিহরিত গোটা বাংলা। এটাই প্রথম নয়, পরিসংখ্যান বলছে গত দু মাসে এরকম প্রায় পাঁচটি ঘটনা ঘটেছে এরাজ্যে। বীরভূমের বোলপুরে ডাইনি সন্দেহে একই পরিবারের চার মহিলাকে বেধড়ক মারধর করা হয়। পশ্চিম মেদিনীপুরে আবার  ডাইনি সন্দেহে পিটিয়ে খুন করা হয় এক বৃদ্ধাকে। নৃশংসতায় পিছিয়ে নেই পুরুলিয়া, বর্ধমানও। জেটগতির যুগে এধরণের বর্বরোচিত ঘটনায় প্রশ্নের মুখে বাংলার শিক্ষা ও সংস্কৃতী।

শ্বশুরবাড়ির ডাইনি অপবাদে আত্মঘাতী তরুণী শ্বশুরবাড়ির ডাইনি অপবাদে আত্মঘাতী তরুণী

বড় ভাইয়ের সন্তানসম্ভবা স্ত্রী অসুস্থ। অভিযোগ তার জন্য দায়ী ছোটভাইয়ের স্ত্রী। তাকে ডাইনি অপবাদ দিয়ে ডাকা হয় ওঝাও। এরপরই গলায় দড়ি লাগিয়ে আত্মঘাতী হন ওই তরুণী। পুরুলিয়ার বরাবাজার থানার মতিরামদি গ্রা

 মধ্যযুগীয় বর্বরতা: অসমে ডাইনি অপবাদে শিরশ্ছেদ করা হল প্রৌঢ়ার মধ্যযুগীয় বর্বরতা: অসমে ডাইনি অপবাদে শিরশ্ছেদ করা হল প্রৌঢ়ার

ওয়েব ডেস্ক: মধ্যযুগীয় নির্মমতার সাক্ষী থাকল এবার অসম। ডাইনি অপবাদে এক প্রৌঢ়ার শিরশ্ছেদ করল সে রাজ্যের একটি গ্রামের গ্রামবাসীরা। হাড়হিম করা এই ঘটনাটি ঘটেছে অসমের সোনিতপুর জেলায়।

মধ্যযুগীয় বর্বরতার নিদর্শন এবার পুরুলিয়ায়, ডাইনি সন্দেহে দিনের পর দিন অত্যাচারিত প্রৌড়া মধ্যযুগীয় বর্বরতার নিদর্শন এবার পুরুলিয়ায়, ডাইনি সন্দেহে দিনের পর দিন অত্যাচারিত প্রৌড়া

ডাইনি অপবাদে দিনের পর দিন নির্যাতনের শিকার হলেন প্রৌঢ়া। খাস পুরুলিয়া শহরে ঘটেছে এই ঘটনা। গতকাল থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ ওই মহিলা। পরিবারের অভিযোগ, প্রতিবেশীদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে, আতঙ্কে ঘর ছেড়েছেন প্রৌঢ়া। পুলিসের দ্বারস্থ হয়েছে নির্যাতিত পরিবার। মধ্যযুগীয় বর্বরতার এ এক চরম নজির।

মধ্যযুগীয় বর্বরতা ঝাড়গ্রামে, ডাইনি অপবাদে ঘর ছাড়া পরিবারের আশ্রয় ফুটপাথ মধ্যযুগীয় বর্বরতা ঝাড়গ্রামে, ডাইনি অপবাদে ঘর ছাড়া পরিবারের আশ্রয় ফুটপাথ

ডাইনি অপবাদে মারধর করে গ্রামছাড়া করা হয়েছে গোটা পরিবারকে। আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়েও জুটেছে হুমকি। তাই শেষ পর্যন্ত রাস্তার ফুটপাথকেই আশ্রয় হিসাবে বেছে নিয়েছে ঝাড়গ্রামের বৃন্দাবনপুরের  নীলমনি হেমব্রমের পরিবার। বিষয়টি জেনে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন বিডিও।

ঘটি, বাটি বেচে ১ লক্ষ টাকা দিয়েও মেলেনি রেহাই, ডাইনি অপবাদে গ্রাম ছাড়লেন বৃদ্ধ দম্পতি ঘটি, বাটি বেচে ১ লক্ষ টাকা দিয়েও মেলেনি রেহাই, ডাইনি অপবাদে গ্রাম ছাড়লেন বৃদ্ধ দম্পতি

অপবাদ থেকে বাঁচতে ঘটি বাটি বিক্রি করে দিয়েছিলেন ১ লক্ষ টাকা। তবু তাঁকে খুনের হুমকি দিয়ে যাচ্ছিল স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশ। শেষ পর্যন্ত ডাইনি অপবাদ নিয়ে গ্রাম ছাড়লেন বৃদ্ধ আদিবাসী দম্পতি। ঘটনা বাঁকুড়ার ছাতনার হাসাপাহাড়ি গ্রামে।

মা `ডাইনি`, তাই ছেলের মৃতদেহ সত্‍কার হল না তিনদিনেও

মৃত্যু হলেও ছেলের মৃতদেহ তিন দিন সত্‍কার করতে পারলেন না এক আদিবাসী মহিলা। ডাইনি সন্দেহে ওই মহিলার ছেলের মৃতদেহ আটকে রাখে গ্রামবাসীদের একাংশ। পরে পুলিস গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের শালবনি থানার মৌপাল গ্রামে।

ডাইনে সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেফতার ১১

পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুর থানার ফেরারহাট গ্রামে ডাইনি সন্দেহে খুনের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এখনও পর্যন্ত ১১

জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। গ্রাম প্রায় জনশূন্য। গ্রেফতারির ভয়ে অনেকেই ঘরছাড়া। এদিকে আজই ময়নাতদন্তের

পর তিন মহিলার দেহ তুলে দেওয়া হবে তাঁদের পরিবারের হাতে।

ডাইনি অপবাদে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি বালুরঘাটে

ডাইনি অপবাদ দিয়ে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হল এক বৃদ্ধা আর তাঁর মেয়েকে। আতঙ্কে গত ছ-দিন ধরে ঘরছাড়া ওরা দুজন।

ডাইনী অপবাদে গ্রামছাড়া মহিলা

মোবাইল এবং ইন্টারনেটের যুগেও যে কুসংস্কার মানুষের পিছু ছাড়েনি, তার প্রমাণ হুগলির পোলবা। ডাইনী সন্দেহে এক আদিবাসী মহিলাকে মারধর করে গ্রাম ছাড়া করল পোলবার ঝোড়োপাড়া গ্রামের বাসিন্দারা।