আজই নক আউটের আসন পাকা করতে চায় ফ্রান্স

Last Updated: Friday, June 20, 2014 - 11:00

প্রথম ম্যাচে হন্ডুরাসকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাসী ফ্রান্স দল। শুক্রবার সুইজারল্যান্ডের বিরুদ্ধেও সেই ধারা বজায় রাখতে চায় দিয়িয়ের দেশঁর দল। ম্যাচে ফ্রান্সের ট্রাম্পকার্ড হতে পারেন বেনজামা, পোগবা আর অলিভার জিরুড। প্রথম ম্যাচে দুরন্ত ফুটবল খেললেও ফ্রান্সকে কড়া চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিতে প্রস্তুত সুইস ব্রিগেড। দিদিয়ের দেঁশর দলের বিরুদ্ধে কাউন্টার অ্যাটাকি অস্ত্র হতে চলেছে আগের ম্যাচে ইকুয়েডরকে হারানো সুইজারল্যান্ড। বিশ্বকাপের পরিসংখ্যান বলছে উনিশশো আটানব্বই সালে বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর হয় ফ্রান্স বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেছে,নয়তো কোনও ম্যাচ না জিতেই বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেছে। সেদিক দিয়ে দেখলে দিদিয়ের দেঁশর দলের জন্য ব্রাজিলে ভাল ফল অপেক্ষা করছে। পেলের দেশে তারা যে ভাল কিছু করতে এসেছেন,তা প্রথম ম্যাচেই হন্ডুরাসকে তিন-শূন্য গোলে হারিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছেন করিম বেনজামারা। ফ্র্যাঙ্ক রিবেরির মত ফুটবলারের অভাব কার্যত বুঝতেই দেননি ক্যাবায়ে,পোগবা-রা।

এই পরিস্থিতিতে গ্রুপ লিগের দ্বিতীয় ম্যাচে সুইজারল্যান্ডের মুখোমুখি হচ্ছে ফ্রান্স। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন সুইসদের বিরুদ্ধে ফ্রান্সের শক্তি হতে পারে বেনজামা,পল পোগবা আর অলিভার জিরুড সম্মিলিত অ্যাটাকিং লাইন আপ। প্রথম ম্যাচে জোড়া গোল করা বেনজামার মতই নজর কেড়েছেন পল পোগবা। প্রথম ম্যাচে দুরন্ত ফুটবল খেললেও ফ্রান্সকে কড়া চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিতে প্রস্তুত সুই ব্রিগেড। দিদিয়ের দেঁশর দলের বিরুদ্ধে কাউন্টার অ্যাটাকি অস্ত্র হতে চলেছে আগের ম্যাচে ইকুয়েডরকে হারানো সুইজারল্যান্ড। আক্রমনে ওঠার সময় ফ্রান্স মাঝমাঠে মাঝেমধ্যেই ফাঁকা জায়গা তৈরি হয় সেটাকেই কাজে লাগাতে চান শাকিরি-রা। ফ্রান্স আর সুইজারল্যান্ড ছত্রিশবার মুখোমুখি হয়েছে। যার মধ্যে ফ্রান্স জিতেছে পনেরো বার। অন্যদিকে সুইজারল্যান্ড জয় পেয়েছে বারো বার। নটি ম্যাচ অমীমাংসিতভাবে শেষ হয়েছে।

তবে এই দুই দলের মধ্যে শেষ তিনটি ম্যাচই অমীমাংসিতভাবে শেষ হয়েছে। দুটো দলই যেহতু তাদের প্রথম ম্যাচ জিতেছে। তাই ফ্রান্স বা সুইজারল্যান্ড যে দলই জিতবে,তারাই নক আউটে যাওয়া নিশ্চিত করে ফেলবে। তাছাড়া আর একটা গোল করতে পারলেই বিশ্বকাপে একশো গোল করার নজির গড়বে ফ্রান্স।



First Published: Friday, June 20, 2014 - 11:00


comments powered by Disqus