১৪ বার ছুরিকাঘাত, জীবন্ত কবর; তারপরেও বেঁচে রইল 'বিস্ময় শিশু'!

১৪ বার ছুরিকাঘাত, জীবন্ত কবর; তারপরেও বেঁচে রইল 'বিস্ময় শিশু'!

২০ সেন্টিমিটার গভীর গর্ত। তার মধ্যে মুখ উল্টে পড়ে রয়েছে। রক্তাক্ত শরীর। গায়ে একের পর এক ছুরির আঘাতের চিহ্ন। তবে, তখনও প্রাণটা রয়েছে। গোঙানির একটা ক্ষীণ আওয়াজ তখনও শোনা যাচ্ছে। ১৪ বার ছুরির আঘাত, জীবন্ত কবর, সব সহ্য করেও বেঁচে রইল এক 'বিস্ময় শিশু'।

ভিডিওয় দেখুন, কীভাবে পাইপ ফেটে জলের তোড়ে ভেসে গেল গাড়ির পর গাড়ি! ভিডিওয় দেখুন, কীভাবে পাইপ ফেটে জলের তোড়ে ভেসে গেল গাড়ির পর গাড়ি!

চোখের নিমেষে ধসে গেল নদী পাড়ের ৬০০ ফিট লম্বা ২১ ফিট চওড়া জায়গা। আর কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই জলে তলিয়ে গেল, জলের তোড়ে ভেসে গেল প্রায় কয়েক ডজন গাড়ি। অতি উত্সাহীরা ক্যামেরাবন্দি করলেন ঘটনাটি।

'রোয়ানু'র অজানা তথ্য, ফের আসবে রোয়ানু? 'রোয়ানু'র অজানা তথ্য, ফের আসবে রোয়ানু?

২৬ জনের মৃত্যু বাংলাদেশে। ৯২ জন মারা গিয়েছেন শ্রীলঙ্কাতে। কারণ, রোয়ানু। শ্রীলঙ্কার দক্ষিণ উপকূল থেকে জন্ম নেওয়া এই সাইক্লোনের দাপটে শুধু বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা নয় ক্ষতি হয়েছে ভারতের উপকূলবর্তী অঞ্চলেও। ভারতের তামিল নাড়ু, অন্ধ্র প্রদেশ, কেরালায় রোয়ানুর প্রভাব ছিল সবথেকে বেশি। ঘণ্টায় ৮৫ থেকে ১০০ কিলোমিটার গতিতে ধেয়ে আসা সাইক্লোনে প্রাণ হারিয়েছেন ১১৮ জন (বাংলাদেশ ২৬ ও শ্রীলঙ্কা ৯২), এখনও নিখোঁজ অন্তত ১০০। মায়ানমার, বাংলাদেশ, ভারতের পূর্ব উপকূল ও শ্রীলঙ্কায় 'রোয়ানু' আতঙ্ক তাড়া করছে সাধারণ মানুষকে? ফের আসবে রোয়ানু?

এ কেমন বাবা! এ কেমন বাবা!

বিছানার উপর লাফাচ্ছিল তিন বছরের ডমিনিক। পাশেই শুয়ে ছিল তার সত্ বাবা। বারবার বারণ করেও কথা শোনেনি শিশুটি। অভিযোগ এরপরই গুলি করে তাকে হত্যা করে তার সত্ বাবা জর্জ কোটি ওয়েম্যান। পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে।

ফল ভেবে সাবান খেলেন ম্যারাথন রানাররা, অসুস্থ ১২ হাজার ফল ভেবে সাবান খেলেন ম্যারাথন রানাররা, অসুস্থ ১২ হাজার

ফল ভেবে সাবান সেবন! ফল যা হওয়ার তাই হল। চিনে ২৬ মাইল ম্যারাথনে সামিল হওয়া ২০ হাজার মানুষ ফল ভেবে সাবান খাবান, তারপর তাঁদের মধ্যে ১২ হাজার মানুষ অসুস্থ হয়েছেন, এই খবর প্রকাশিত হয়েছে চিনের দৈনিক পত্রিকা পিপল'স ডেইলিতে। 

মাঝ আকাশে ভাঙল বিমান, ৩৩,৩৩৩ ফুট উপর থেকে পড়ে গিয়েও বেঁচে গেলেন! বিশ্ব রেকর্ড! মাঝ আকাশে ভাঙল বিমান, ৩৩,৩৩৩ ফুট উপর থেকে পড়ে গিয়েও বেঁচে গেলেন! বিশ্ব রেকর্ড!

বছর তেইশের বিমান কর্মী ভেসনা ভুলোভিচই হলেন সেই মানুষ যিনি প্যারাসুট ছাড়াই ৩৩,৩৩৩ ফুট নীচে পড়ে গিয়েও প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন। ভয়ঙ্কর বিমান বিপর্জয়। কিন্তু তৈরী হল বিশ্ব রেকর্ড।

কথা বলা কাক! কথা বলা কাক!

জীবনে কখনও শুনেছেন কাক পোষ মানে? জীবনে কখনও শুনেছেন কাক কথা বলে? জীবনে কখনও দেখেছেন কাক তার মনীবের কাঁধে চড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে? ঝড়ে পাওয়া কাকের রূপ কথা। মানুষ যা খায়, কাকও তাই খায়। কাকের পছন্দের খাবারের তালিকায় রয়েছে ডিমের হলুদ কুসুম, দুধ, মাছ। নিরামিষ একেবারেই পছন্দ নয়। বাংলাদেশের এই কাক একেবারে সেলিব্রিটি। দেশের টিভি চ্যানেল তো বটেই, বিভিন্ন প্রান্ত থেকেও ওকে দেখতে ভিড়। চোখে না দেখলে আপনারও বিশ্বাস হবে না। দেখুন- 'রূপ কথার কাক'-

সিগারেটের 'তাড়নায়' ৩৮০০০ ফিট উঁচুতে ইনি যা করলেন! সিগারেটের 'তাড়নায়' ৩৮০০০ ফিট উঁচুতে ইনি যা করলেন!

বাচ্চারা খেলনা নিয়ে বায়না করলে, মায়েদের দেখা যায় কখনও ভুলিয়ে ভালিয়ে, কখনও ধমকে শান্ত করতে। কিন্তু, একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষ যদি সিগারেটের জন্য বায়না করেন? তাও আবার মাটি থেকে ৩৮০০০ ফিট উঁচুতে! তখন? এমনই ঘটল লুফত্হংসার মিউনিখ থেকে কানাডার ভ্যাঙ্কুবারগামী একটি বিমানে।

ভোট নিয়ে এই তথ্যটা না জানলে আর ভোটের মজা পাবেন কীভাবে? ভোট নিয়ে এই তথ্যটা না জানলে আর ভোটের মজা পাবেন কীভাবে?

আমাদের ভোট সদ্য মিটেছে।ভোটের ফলও সকলের জানা হয়ে গিয়েছে।তবুও, এখনও কি একটুও ভোটের রেশ নেই? যদি আপনার মনে এখনও ভোটের একটুও রেশ থেকে থাকে, তাহলে আপনার জন্য একটা অবাক করা মজার তথ্য দিই।

বাস্তবেও এক দিনের জন্য কানাডার মতো দেশের একদিনের প্রধানমন্ত্রী হলেন ভারতীয় যুবক! বাস্তবেও এক দিনের জন্য কানাডার মতো দেশের একদিনের প্রধানমন্ত্রী হলেন ভারতীয় যুবক!

এই ধরনের ঘটনা সাধারণত স্বপ্ন, সিনেমা, নাটক অথবা সাহিত্যে দেখা যায়। বলিউডের নায়ক সিনেমাতেও তো দেখা গিয়েছে। বিষয়টি হলো কোন দেশের এক দিনের রাজা অথবা প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে বসা। চেয়ারে বসামাত্রই দেশটির নানা অনিয়ম-অনাচার দূর করে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠায় কাজ করা। কিন্তু এবারের ঘটনাটি পুরোপুরি সত্য। তাও আবার কানাডার মতো একটি দেশের প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে বসা! সম্প্রতি ভারতীয় বংশোদ্ভূত পিজে লাখানপাল নামে এক তরুণ দেশটির এক দিনের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন! প্রধানমন্ত্রী দফতরে সে দেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর জন্য রাখা একটি চেয়ারে বসে কেটেছে তার সারাটা দিন।

এটাই নাকি দুনিয়ার সবচেয়ে বিপজ্জনক রেল সফর এটাই নাকি দুনিয়ার সবচেয়ে বিপজ্জনক রেল সফর

এটাই নাকি দুনিয়ার সবচেয়ে বিপজ্জনক রেল সফর। ট্রেনের মাথার ওপর চড়ে হাজারো মানুষ সামিল হয় এক উত্‍সবে। ট্রেনের আসার ঠিক আগেও লাইনের বসে থাকে বহু মানুষ। বাংলাদেশে বিশ্ব ইজতেমা সম্মেলনের সময় দেখা যায় এই দৃশ্য।

দেখে নিন বিশ্বের সেরা ৩টি খবর দেখে নিন বিশ্বের সেরা ৩টি খবর

বিষাক্ত সাপের সঙ্গে লড়াই করছে একটি পাখি। এমু ও উটপাখির মাঝামাঝি দেখতে এই পাখিটির পোষাকি নাম সেক্রেটারি বার্ড। দুপা দিয়ে ক্রমাগত আঘাত করে সাপকে নিস্তেজ করে দিল পাখিটি। আর সেই ছবি ধরা পড়েছে এক চিত্রগ্রাহকের ভিডিও ক্যানেরায়।

মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় থাইল্যান্ডে জীবন্ত দগ্ধ হয়ে মৃত ১৭ জন শিশুকন্যা, নিখোঁজ ২ মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় থাইল্যান্ডে জীবন্ত দগ্ধ হয়ে মৃত ১৭ জন শিশুকন্যা, নিখোঁজ ২

থাইল্যান্ডে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। আগুনে পুড়ে মৃত্যু হল কমপক্ষে ১৭ জন শিশুকন্যার। থাইল্যান্ডের চিয়াং রাই প্রভিনসে রবিবার রাতে একটি বাড়িতে আগুন লাগে। সেই বাড়ি থেকে আগুন ছড়িয়ে পড়ে একটি বোর্ডিং স্কুলেও। তখন পিথাকিয়ার্ট উইথহায়া স্কুলের হস্টেলে ঘুমিয়ে ছিল ৩৮ জন শিশুকন্যা। আগুনে আটকে পড়ে তাঁরা। জীবন্ত দগ্ধ হয় কমপক্ষে ১৭ জন। এখনও দুজনের কোনও খোঁজ নেই। শিশুকন্যাদের বয়স তিন থেকে তেরো বছরের মধ্যে।

 বাচ্চাটি যেভাবে রাস্তা পারাপার করল, তাতে 'মৃত্যু আর জীবনের ফারাক ছিল মাত্র ১ সেকেন্ড' বাচ্চাটি যেভাবে রাস্তা পারাপার করল, তাতে 'মৃত্যু আর জীবনের ফারাক ছিল মাত্র ১ সেকেন্ড'

বাইকের সাওয়ারি করতে কোন বাচ্চা না পছন্দ করে? ধুম জামানায় বাইকে চেপেই হু হু করে স্কুলে পৌঁছে যাওয়া আবার ঠিক স্কুল থেকে বাড়ি পৌঁছানো, এই রুটিন সবথেকে প্রিয় হয় বেশির ভাগ বাচ্চারই। ডানপিটে কিংবা একেবারে শান্ত, স্বভাবে তাঁরা যাই হোক, বাইক সফর তাঁদের কাছে শ্রেষ্ঠ। কিন্তু, এই বাইক সফরে এই বাচ্চা যা করল, তা তাঁর জীবনটাই কেড়ে নিত!

যেভাবে মরণাপন্নকে উদ্ধার করলেন একজন সাংবাদিক (ভিডিও) যেভাবে মরণাপন্নকে উদ্ধার করলেন একজন সাংবাদিক (ভিডিও)

খবরের পেশার মানুষ, একজন সাংবাদিক আগে খবর করবেন না মরণাপন্নের জীবন বাঁচাবেন? সাংবাদিকতার পেশা, সাংবাদিকতার নীতি আর মানবিকতার দ্বন্দ চিরকালের। সংবাদ সংগ্রহ, সংবাদ পরিবেশন, সংবাদ সরবরাহ- এ সবই তো মানুষের জন্যই, তাই মানুষ আগে খবর পরে। হ্যাঁ, এই শিক্ষাই দিলেন চিনের এক টেলিভিশন সাংবাদিক।