মাঝ আকাশে জ্ঞান হারালেন পাইলট, কপ্টার চালালেন অনভিজ্ঞ মহিলা মাঝ আকাশে জ্ঞান হারালেন পাইলট, কপ্টার চালালেন অনভিজ্ঞ মহিলা

মাঝপথে হঠাত্‍ই জ্ঞান হারালেন পাইলট। ছোট কপ্টারটা হঠাত্‍ই নড়ে উঠল। এবার উপায়! কেউ হাল না ধরলে কপ্টার গোত্তা খেয়ে মাটিতে আছাড় খাবে। তাহলে উপায়? সাহস করে এগিয়ে এলেন এক স্প্যানিশ মহিলা। তিনি হলেন জ্ঞান হারিয়ে ফেলা পাইলটের স্ত্রী। পাইলটের স্ত্রী হলেও প্লেন বা কপ্টার চালানোর অ, আ, ক, খ তো দূরে থাকা এই বিষয়ে সামান্য জ্ঞানও নেই। মহিলা বসলেন পাইলটের আসনে। প্রথমেই যোগাযোগ করলেন এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোলারের সঙ্গে। এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোলাররা অভয় দিলেন মহিলাকে। প্লেনের বিষয়ে কোনও জ্ঞান-অভিজ্ঞতা নেই, শুধু এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোলার-দের পরামর্শ শুনে প্লেনকে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকলেন। প্লেন চলতে থাকল একেবারে মসৃণভাবে।

আকাশে ব্রেকআপের টেক্সট কমেন্ট্রি করে সমালোচিত তরুণী আকাশে ব্রেকআপের টেক্সট কমেন্ট্রি করে সমালোচিত তরুণী

একেবার আকাশ থেকে ধারাভাষ্য। সরাসরি প্লেনের পেটের ভিতর বসে প্রেম ভাঙার সব খবর দিয়ে একদিকে প্রশংসতি, আবার অন্যদিকে সমালোচিত কেলি কেগিস নামের এক তরুণী। ব্যাপরটা হয়েছে কী কেলি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলিনার এক বিমানবন্দর থেকে বিমানে উঠেছিলেন। বিমান কিছুক্ষণ যাওয়ার পরই একটা হালকা ঝগড়ার শব্দ শুনতে পান কেলি। কেলি বুঝে যান ঝগড়ার পর প্রেমিক যুগলের প্রেমে ইতি পড়তে চলেছে। সুযোগ বুঝেই বিমানের ভিতর থেকে কেলি করলেন এক কাণ্ড। মাটি থেকে অনেক উপরে প্রেম ভাঙার ঘটনাটা কেলি টুইটারের মাধ্যমে লাইভ কমেন্ট্রি করতে থাকলেন। প্লেনের সিটে বসে ব্রেকআপের ঘটনা একের পর এক টুইটে তুলে ধরতে থাকলেন। তত ফলোয়ার, রি টুইট হতে থাকল কেলির টেক্সট কমেন্ট্রি। আকাশে হৃদয়ভাঙার ঘটনা মর্ত্যে তাড়িয়ে তাড়িয়ে উপভোগ হতে থাকল।