চিন্তনের বিশ্বে বাঙালির জয়জয়কার, সেরা চিন্তাবিদ নির্বাচিত অমর্ত্য সেন, তৃতীয় স্থানে অরুন্ধতী রায়

ভোটবাজারে অন্য ভোট। লোকসভা ভোটের ফল আসার জন্য ষোলোই মে পর্যন্ত অপেক্ষা। কিন্তু তার আগে সেরা চিন্তাবিদেরভোটাভুটির ফল প্রকাশিত হয়ে গেল। দুনিয়ার তাবড় চিন্তাবিদদের প্রথম ছ জনের মধ্যে চার জনই ভারতীয়। চার জনের মধ্যে তিন জন আবার বাঙালি। প্রসপেক্ট পত্রিকার অনলাইন সমীক্ষায় প্রায় সাত হাজার ভোট দাতার ফলাফলে সেরা চিন্তাবিদ নির্বাচিত হয়েছেন অমর্ত্য সেন।

Updated: Apr 25, 2014, 07:40 PM IST

ভোটবাজারে অন্য ভোট। লোকসভা ভোটের ফল আসার জন্য ষোলোই মে পর্যন্ত অপেক্ষা। কিন্তু তার আগে সেরা চিন্তাবিদেরভোটাভুটির ফল প্রকাশিত হয়ে গেল। দুনিয়ার তাবড় চিন্তাবিদদের প্রথম ছ জনের মধ্যে চার জনই ভারতীয়। চার জনের মধ্যে তিন জন আবার বাঙালি। প্রসপেক্ট পত্রিকার অনলাইন সমীক্ষায় প্রায় সাত হাজার ভোট দাতার ফলাফলে সেরা চিন্তাবিদ নির্বাচিত হয়েছেন অমর্ত্য সেন।

কে বলে ঊনবিংশ এবং বিংশ শতাব্দীর গোড়াতেই বাঙালির স্বর্ণযুগের ইতি ঘটে গিয়েছে? ব্রিটিশ পত্রিকা প্রসপেক্ট দুনিয়ার সেরা চিন্তাবিদ নির্বাচনের একটি অনলাইন সমীক্ষা করেছিল। টুইটার আর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে ভোট দিয়েছিলেন প্রায় সাত হাজার ভিসিটর। অবশেষে প্রকাশি ভোটের ফল। দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ চিন্তাবিদ নির্বাচিত হয়েছেন অমর্ত্য সেন। বাঙালির কাছেএ ই অশীতিপর nobel laureate, হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সম্পর্কে নতুন কিছু বলার নেই। চিন্তার রাজ্যে তাঁর অমিত প্রভাব সর্বজনবিদিত। তৃতীয় স্থানে রয়েছেন আরেক বাঙালি। অরুন্ধতী রায়। the god of small things, capitalism: a ghost story-খ্যাত এই ম্যান বুকার প্রাইজ বিজেতাকে বাঙালি তথা তামাম ভারতবাসী চেনে অতিবাম সমর্থক এবং চিন্তাবিদ হিসেবেই।

ষষ্ঠ স্থানাধিকারী কৌশিক বসু কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয়ে সাময়িক কর্মবিরতিতে রয়েছেন। এখন বিশ্ব ব্যাঙ্কের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং চিফ ইকনমিস্ট পদে আসীন। দু হাজার বারোর জুলাই পর্যন্ত তিনি ছিলেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টা। বাইশ নম্বরে রয়েছেন আরেক অর্থনীতিবিদ পার্থ দাশগুপ্ত। চিন্তাবিদদের তালিকায় এই বাঙালিদের এই ধুন্ধুমার সাফল্য নিশ্চয়ই সমকালীন এবং ভবিষ্যত বাঙালি প্রজন্মকে উত্সাহিত করবে। এই তালিকায় পঞ্চমে রয়েছেন পোপ ফ্রান্সিস। ষোড়শ বেনেডিক্টের পর রোমান ক্যাথলিক চার্চের দুশো ছেষট্টিতম প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর পোপ ফ্রান্সিস নিজেকে একজন বলিষ্ঠ ধর্মগুরু হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন ফ্রান্সিস। অর্থনৈতিক অসাম্য, মানুষের মধ্যে মত বিনিময়, যৌন স্বাধীনতার মতো বিভিন্ন ইস্যুতে তাঁর মতামত আগের পোপদের থেকে অনেকটাই যুগোপযোগী বলে বিশেষজ্ঞদের মত।