ভারতে এফডিআইকে স্বাগত আমেরিকার

Last Updated: Saturday, December 8, 2012 - 19:50

খুচরো ব্যবসায় বিদেশি বিনিয়োগকে অনুমোদন দিয়েছে ভারতীয় সংসদ। সংসদের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন বিদেশ দফতরের মার্ক টোনার আশাপ্রকাশ করেছেন, এবার, উন্নয়নশীল অন্যান্য দেশগুলির মতোই ভারতের খুচরো বাজারেও বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ বাড়বে। একইসঙ্গে তাঁর দাবি, এর ফলে ভারতের কৃষক সমাজের পাশাপাশি উপকৃত হবেন ছোটো ব্যবসায়ীরাও।
ছমাসও কাটেনি। বদলে গেল ভারত নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দৃষ্টিভঙ্গি। আর্থিক সংস্কার নিয়ে সিদ্ধান্তগ্রহণে দেরি করায় একসময় প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের কর্মদক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল মার্কিন সংবাদমাধ্যম। এফডিআই নিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অনুমোদনের পরেই বদলে যায় ছবিটা। সেই মার্কিন সংবাদমাধ্যমেই প্রশংসার ঝাঁপি উপুড় করে সাধুবাদ জানিয়েছিল ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীকে। এবার আবার। এফডিআইয়ের সংসদীয় অনুমোদনকে স্বাগত জানাল আমেরিকা। মার্কিন বিদেশ দফতরের মুখপাত্র মার্ক টোনার জানিয়েছেন, ``বহুব্র্যান্ডের খুচরো ব্যবসায় প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগে অনুমোদন দিয়েছে ভারতীয় সংসদ। এই সিদ্ধান্তকে আমরা স্বাগত জানাচ্ছি।``
এফডিআইকে ছাড়পত্র দেওয়ার সিদ্ধান্তটি ভারতীয় সংসদে ভোটাভুটির মাধ্যমে, গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে হওয়ায়, সন্তোষ প্রকাশ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। টোনার বলেছেন, 
রাজনৈতিক উপায়ে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যেখানে সবপক্ষের কাছেই সুযোগ ছিল নিজের মতামত প্রকাশ করার। তারপরেই এই সিদ্ধান্তকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।
একইসঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আশ্বাস, কৃষকসমাজের পাশাপাশি, এফডিআই থেকে উপকৃত হবেন ভারতের ছোটো ব্যবসায়ীরাও। এফডিআইয়ের ফলে, কৃষক ও খুচরো ব্যবসায়ীদেরও উন্নতির সুযোগ রয়েছে। এর ফলে খাদ্যপণ্যের দাম কমে গিয়ে উপকৃত হবেন উপভোক্তারা। তেমনই, পরিকাঠামো ক্ষেত্রেও বিনিয়োগ আসবে। মার্কিন বিদেশমন্ত্রকের পাশাপাশি, ইন্দো-মার্কিন বিজনেস কাউন্সিলের পক্ষ থেকেও এফডিআইয়ের সংসদীয় অনুমোদনকে স্বাগত জানানো হয়েছে। বিরোধীদের অভিযোগ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আগ্রাসী বাণিজ্যিক চাহিদার কাছে দেশীয় বাজারকে সঁপে দিচ্ছে মনমোহন সরকার। কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে সেই অভিযোগ অস্বীকার করা হলেও, মার্কিন বিদেশমন্ত্রকের বার্তা সামনে আসার পর এ নিয়ে বিরোধীরা ফের সরব হবেন বলে ধারনা রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।



First Published: Saturday, December 8, 2012 - 19:50


comments powered by Disqus