মার্কিন আড়ির হাত থেকে রেহাই পাননি পোপও, দাবি ইতালিয় ম্যাগাজিনের

Last Updated: Thursday, October 31, 2013 - 23:15

পোপ ফ্রান্সিসের ফোনেও আড়ি পেতেছিল আমেরিকা। দাবি ইতালিয় ম্যাগাজিন প্যানোরামার। শুধু পোপ নয়, ম্যাগাজিনটির দাবি, অন্যান্য কার্ডিনালদের ফোনেও নজরদারি চালিয়েছে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এনএসএ। মার্কিন আড়িপাতা নিয়ে নতুন এই তথ্য সামনে আসার পর ফের তোলপাড় বিশ্ব রাজনীতি।
বিভিন্ন দেশের লক্ষ লক্ষ ফোনে আড়ি পাতেন মার্কিন গোয়েন্দারা। ইউকিলিকসের এডওয়ার্ড স্নোডেনের ফাঁস করা তথ্যে ঝড় ওঠে বিশ্ব রাজনীতিতে। আগুনে ঘি পড়েছে ইতালিয়ান ম্যাগাজিন পানোরামায় প্রকাশিত সাম্প্রতিক রিপোর্টে। প্যানোরামার দাবি, পোপ নির্বাচিত হওয়ার আগে কার্ডিনাল জর্জ মারিও বার্গোলিওর ফোনেও আড়ি পেতেছিল মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এনএসএ। পোপ নির্বাচিত হওয়ার আগে কার্ডিনালদের সভাতেও আড়ি পাতা হয়েছিল। সম্ভাব্য পোপ কে হতে চলেছেন তা জানতেই এই নজরদারি বলে দাবি ইতালিয় ম্যাগাজিনটির। শুধু ভ্যাটিকান নয়, মার্কিন নজরদারির আওতা থেকে বাদ পড়েনি ইতালিও। ২০১২ সালের ১০ ডিসেম্বর থেকে ২০১৩ সালের ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত ইতালির ৪ কোটি ৪৬ লক্ষেরও বেশি ফোন কলে আড়ি পেতেছিল মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা। এনএসএ কর্তা কিথ আলেকজান্ডারের দাবি, সাধারণ নাগরিকদের ফোন ও ইমেলে আড়িপাতার অভিযোগ ভুল।
চাপের মুখে এনএসএ কর্তা যতই অস্বীকার করুণ না কেন, বিতর্কের আগুনে এখনই জল পড়ছে না। ইতালি ছাড়াও মার্কিন নজরদারির অভিযোগে সরব জার্মানি, ফ্রান্স স্পেন সহ একাধিক দেশ ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়ান। দিনকয়েক আগে জার্মানির ডার স্পাইগেল, ফ্রান্সের ল্য মঁদ ও স্পেনের এল মুন্দো সংবাদপত্র দেশের লক্ষ লক্ষ নাগরিকের ফোন ও ইমেলে মার্কিন নজরদারির অভিযোগ তোলে। নজরদারি আওতা থেকে বাদ যাননি জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেলও। অভিযোগ, টানা ১০ বছর ধরে তাঁর ফোনে আড়ি পাতছেন মার্কিন গোয়েন্দারা। এজন্য ইতিমধ্যেই ওবামা প্রশাসনের কাছে কৈফিয়ত তলব করেছে জার্মানি। যদিও, সব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে এনএসএ।
ইউরোপের একাধিক দেশের নাগরিক ও শীর্ষনেতাদের ওপর বৈদ্যুতিন নজরদারির অভিযোগ সামনে আসায় কিছুটা চাপে হোয়াইট হাউস। গোটা পদ্ধতি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন মার্কিন প্রশাসন। হোয়াইট হাউস যতই আশ্বাস দিক না কেন, বিতর্কের জল যে বহুদূর গড়াবে তা স্পষ্ট। বুধবার এনিয়ে আমেরিকার কাছে জবাব চেয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলির এক প্রতিনিধি দল। সবমিলিয়ে, আড়িপাতা নিয়ে এই মুহুর্তে বেশকিছুটা চাপে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।



First Published: Thursday, October 31, 2013 - 23:15


comments powered by Disqus