ডিম ছোড়াছুড়ির খেলায় মাতল রানির দেশ

ঝাঁপ দিয়ে ডিম ধরছে হ্যাফপ্যান্ট পরা ছেলে। হই হই করে চেঁচাচ্ছেন গাউন পরা মহিলারা। কী ভাবছেন? ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেটের প্র্যাকটিস? মোটেই না। এ হল ডিম প্র্যাকটিস। সাদা বাংলায়, মাঠের এদিক থেকে একজন ছুঁড়ছেন ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়া, শক্ত শক্ত, সিদ্ধ ডিম। ওদিক থেকে একজন ছুটে গিয়ে কিংবা ঝাঁপ দিয়ে ধরছেন সেই খোসায় ঢাকা ভ্রুণ। ডিম না ভেঙে ধরতে পারেল পয়েন্ট। রোদে ঝকঝকে রবিবারে  ইংল্যান্ডের লিঙ্কনশায়ারের গ্রামের মাঠে বসেছিল ওয়ার্লড এগ থ্রোয়িং চ্যাম্পিয়নশিপের আসর।

Updated: Jul 1, 2013, 11:16 PM IST

ঝাঁপ দিয়ে ডিম ধরছে হ্যাফপ্যান্ট পরা ছেলে। হই হই করে চেঁচাচ্ছেন গাউন পরা মহিলারা। কী ভাবছেন? ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেটের প্র্যাকটিস? মোটেই না। এ হল ডিম প্র্যাকটিস। সাদা বাংলায়, মাঠের এদিক থেকে একজন ছুঁড়ছেন ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়া, শক্ত শক্ত, সিদ্ধ ডিম। ওদিক থেকে একজন ছুটে গিয়ে কিংবা ঝাঁপ দিয়ে ধরছেন সেই খোসায় ঢাকা ভ্রুণ। ডিম না ভেঙে ধরতে পারেল পয়েন্ট। রোদে ঝকঝকে রবিবারে  ইংল্যান্ডের লিঙ্কনশায়ারের গ্রামের মাঠে বসেছিল ওয়ার্লড এগ থ্রোয়িং চ্যাম্পিয়নশিপের আসর।
ইংল্যান্ড তো বটেই, আয়ারল্যান্ড, জার্মানি, নেদারল্যান্ড, এমনকী ৪০ হাজার কিলোমিটার পথ পেরিয়ে হাজির জাপানিরাও। একটা নির্দিষ্ট দূরত্বে ছুঁড়তে হবে ডিম। এক একটা দল এক এক দফায় তিনবার করে সুযোগ পাবে। হারজিতের মধ্যে থেকে বেছে নেওয়া হবে বিশ্বজীয়কে। সোজা ছুড়লে সহজেই তো ডিম ভেঙে যাবে। একটা কাল্পনিক বক্ররেখা বরাবর ছুঁড়তে হবে ডিমটা। যাতে নিরাপদে তা পৌঁছায় মাঠের অন্যদিকে অপেক্ষমান আপনার টিমের অন্য খেলোয়াড়ের কাছে। না ভেঙে ধরতে হবে। তবেই পয়েন্ট। এসবের মধ্যে এক আধবার আকাশের দিকে তাকাতে হবে দর্শককে। গ্রীষ্মের রৌদ্রতপ্ত নীলাকাশে উড়ে যাচ্ছে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আমলের বোমারু বিমান। ওরা আপনাকে মনে করিয়ে দেবে, এখন আর যুদ্ধের বিভীষিকা নেই। সবুজ প্রান্তরে দাঁড়িয়ে যতখুশি ডিম ছুড়ুন আর জিতে নিন পুরস্কার। করতালি দিয়ে আপনাকে অভিনন্দন জানাবেন ব্রিটেনের মহিলারা। এবার ডিম ছোড়ায় বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হল জাপান। সঙ্গে ছিল ডিম ভাঙার প্রতিযোগিতাও।
 
যদি ভারতের কেউ এই মাঠে থাকতেন, তাহলে তাঁর নিশ্চয়ই মনে পড়ে যেত ঔপনিবেশিক আমলের কোনও রবিবারের ইউরোপীয়ান ক্লাবের নিটোল ছবি।