ইমরানের আসল ক্ষমতা তাঁর তান্ত্রিক বিবির হাতের, মন্তব্য লেখক তারেক ফাতাহ-র

ইমরান খানের পাক ক্রিকেট দলে স্থান পাওয়া নিয়েও মন্তব্য করেছন ফাতাহ। বলেছেন, ইমরান নিজের যোগ্যতায় দলে জায়গা পায়নি। বরং পাক সেনা জেনারেল নিয়াজির সুপারিশেই তিনি দলে স্থান পান

Updated: Sep 6, 2018, 07:12 PM IST
ইমরানের আসল ক্ষমতা তাঁর তান্ত্রিক বিবির হাতের, মন্তব্য লেখক তারেক ফাতাহ-র

নিজস্ব প্রতিবেদন: ইমরান খানকে এক হাত নিলেন বিশিষ্ট পাক বংশোদ্ভূত লেখক তারেক ফাতাহ। তাঁর দাবি, ইমরান খানের হাতে কোনও ক্ষমতা নেই। বরং তা রয়েছে তাঁর তান্ত্রিক বিবি বুশরা মনেকার হাতে।

সদ্য নির্বাচনে জিতে ক্ষমতায় এসেছেন ইমরান খান। তাঁর প্রধানমন্ত্রী হওয়া নিয়ে দেশের বিভিন্ন মহলে উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে। ধীরে ধীরে গুছিয়ে বসার চেষ্টা করছেন কিং খান। নির্বাচনের প্রচারে তাঁর তৃতীয় বিয়ে নিয়ে প্রচার করেছিল বিরোধীরা। এবার সেকথাই টেনে আনলেন ফাতাহ।

আরও পড়ুন-মাঠে পড়ে গড়াগড়ি খাচ্ছে খুলি!  

সম্প্রতি একটি টিভি চ্যানেলকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে ইমরান খানকে নিশানা করেন ফাতাহ। তিনি বলেন ইমরানের হাতে কোনও ক্ষমতা নেই। আসল ক্ষমতা রয়েছ তাঁর স্ত্রী বুশরা মানেকার হাতে। প্রসঙ্গত বিয়ের আগে বুশরাকে তাঁর আধ্যাত্মিক পথপ্রদর্শক বলে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন ইমরান। এই বুশরাকে ব্ল্যাক ম্যাজিশিয়ান বা তান্ত্রিক বলে বর্ণনা করেছেন ফাতাহ।

ইমরান খানের পাক ক্রিকেট দলে স্থান পাওয়া নিয়েও মন্তব্য করেছন ফাতাহ। বলেছেন, ইমরান নিজের যোগ্যতায় দলে জায়গা পায়নি। বরং পাক সেনা জেনারেল নিয়াজির সুপারিশেই তিনি দলে স্থান পান। ইমরান খান আসলে পাঠানই নন। এই ধরনের লোকজন যেকোনও সময় হাতিয়ার ছেড়ে আত্মসমর্পণ করতে পারেন।

আরও পড়ুন-পাত্রী দেখতে  গিয়ে পাত্রের হাতসাফাই, হার মানাবে হিন্দি সিনেমার গল্পকেও!

পাকিস্তানকেও নিশানা করেন ফাতহ। তিনি বলেন, যেসব লোকজন দ্বিজাতিতত্বের পক্ষে তারা কোনও মতেই ভালো লোক হতে পারে না। পাকিস্তান ৫০,০০০ বালোচকে খুন করেছে। বাংলাদেশে মেরেছে ৩ লাখ মানুষকে। ৫ লাখ কাশ্মীরি পণ্ডিত ঘরছাড়া। এনিয়ে পাকিস্তান কোনও কথা বলে না। কাশ্মীর নিয়ে দরদের সীমা নেই।

ভারতীয় মুসলিমদের সম্পর্কে বলতে গিয়েও তিন একপ্রকার পাকিস্তানকে আক্রমণ করেন। তিনি বলেন, ভারতের মুসিলমরাই একমাত্র গোটা দুনিয়ায় সুখী মানুষ। তাঁরা তারা নিশ্চিন্তে ভোট দিতে পারেন। এই উপমহাদেশ মসজিদ প্রথমে তৈরি হয় কেরালায়। ভারতের মুসিলমদের উচিত অযোধ্যয় রামমন্দির তৈরি করতে সাহায্য করা।

 

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. You can find out more by clicking this link

Close