ভিডিও কনফারেন্সেই প্রচার সারলেন আহত ইমরান

শনিবার পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচন। অথচ নিজে প্রার্থী হয়েও সম্ভবত ভোট দিতে পারবেন না পাকিস্তান তেহেরিকি ইনসাফের চেয়ারম্যান ইমরান খান। মঙ্গলবার লাহোরে প্রচার চলাকালীন মাথায় গুরুতর আঘাত পাওয়ায় পর আপাতত হাসপাতালেই ভর্তি রয়েছেন তিনি। চিকিত্‍সকরা তাঁকে নড়াচড়া করতে নিষেধ করায় আজ দলের শেষ প্রচার সভাতেও থাকতে পারবেন না ইমরান খান। ইসলামাবাদের সৌকত খানুম হাসপাতালে শুয়ে থাকা অবস্থাতেই  ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমেই বক্তব্য রাখবেন তিনি। অন্যদিকে, দেশের সাধারণ নির্বাচনের জন্য সেজে উঠেছে পাকিস্তান। দিনরাত কাজ করেও প্রার্থীদের পোস্টার, ফেস্টুনের চাহিদা মেটাতে হিমশিম খাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। প্রচারের কাজে লাগানো হচ্ছে পশুদেরও। এদিকে বাড়তি টাকার জন্য শ্রমিকেরা প্রচারে অংশ নেওয়ায় মাথায় হাত গমচাষীদের।

Updated: May 10, 2013, 09:20 AM IST

শনিবার পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচন। অথচ নিজে প্রার্থী হয়েও সম্ভবত ভোট দিতে পারবেন না পাকিস্তান তেহেরিকি ইনসাফের চেয়ারম্যান ইমরান খান। মঙ্গলবার লাহোরে প্রচার চলাকালীন মাথায় গুরুতর আঘাত পাওয়ায় পর আপাতত হাসপাতালেই ভর্তি রয়েছেন তিনি। চিকিত্‍সকরা তাঁকে নড়াচড়া করতে নিষেধ করায় আজ দলের শেষ প্রচার সভাতেও থাকতে পারবেন না ইমরান খান। ইসলামাবাদের সৌকত খানুম হাসপাতালে শুয়ে থাকা অবস্থাতেই  ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমেই বক্তব্য রাখবেন তিনি। অন্যদিকে, দেশের সাধারণ নির্বাচনের জন্য সেজে উঠেছে পাকিস্তান। দিনরাত কাজ করেও প্রার্থীদের পোস্টার, ফেস্টুনের চাহিদা মেটাতে হিমশিম খাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। প্রচারের কাজে লাগানো হচ্ছে পশুদেরও। এদিকে বাড়তি টাকার জন্য শ্রমিকেরা প্রচারে অংশ নেওয়ায় মাথায় হাত গমচাষীদের।
মঙ্গলবার সন্ধ্যায় লাহোরে নির্বাচনী প্রচারে বেরিয়ে মঞ্চ ভেঙে পড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হন পাকিস্তান তেহেরিকি ইনসাফ দলের চেয়ারম্যান ইমরান খান। রাতেই ভর্তি করা ইসলামাবাদের সৌকত খানুম মেমোরিয়াল হাসপাতালে। প্রথমে আইসিইউতে রাখা হলেও, বুধবার তাঁকে স্থানান্তরিত করা হয় নিজস্ব কেবিনে। চিকিত্‍সকরাও জানিয়েছেন ইমরান খান এখন বিপন্মুক্ত। তবে দিন সাতেকের জন্য আপাতত বিছানা ছেড়ে উঠতে পারবেন না তিনি।  ইমরান খানের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিত্সরক ফয়জল সুলতান জানিয়েছেন, প্রাক্তন ক্রিকেটারের মেরুদণ্ডের তিনটি হাড়ে চিড় ধরেছে। জখম হয়েছে একটি পাঁজরা। এ ছাড়াও তাঁর মাথায় গভীর ক্ষত রয়েছে। চোটের প্রকৃতি অনুযায়ী তেহরিক-ই-ইনসাফ দলের নেতাকে এখন আধশোয়া অবস্থায় থাকতে হচ্ছে। শুক্রবার ইমরান খানের এমআরআই করা হবে। তারপরই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, কবে তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া হবে।
শনিবার পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচন। জনমত সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, নওয়াজ শরিফের পাকিস্তান মুসলিম লিগ অনেকটাই এগিয়ে ইমরান খানের পাকিস্তান তেহেরিকি ইনসাফের থেকে।  
পাকিস্তানের সব রাস্তা জুড়েই এখন শুধু ব্যানার, পোস্টার আর বিভিন্ন রঙের পতাকার ভিড়। ভোট প্রচারের এই সব সরঞ্জাম সরবরাহ করতে গিয়ে দিনরাত কাজ চলছে ছাপাখানা গুলোতে।
সময় মতো পোস্টার ফেস্টুনের চাহিদা মেটাতে না পারার জন্য লোড শেডিংকেই দায়ি করছেন লাহোরের ব্যবসায়ীরা।
অনেকে আবার নিজের গাড়িকেই ব্যবহার করছেন প্রিয় নেতা ও দলের প্রচারে।
বাদ নেই পশুও। ভোট প্রচারের বর্ণাঢ্য মিছিলে সারি বাধা সব উটেদেরও রাঙিয়ে দেওয়া হয়েছে দলীয় রঙে। পাকিস্তান মুসলিম লিগের নির্বাচনী প্রতীক সিংহ। প্রচারের ময়দানে তাই সত্যিকারের সিংহও হাজির।
তবে ভোটের এই দামামাই সমস্যায় ফেলেছে পাঞ্জাবের গমচাষীদের। শ্রমিকদের অনেকেই বাড়তি টাকা পেতে সামিল হচ্ছেন প্রচারে। ফলে আটকে গিয়েছে গম কাটার কাজ।
চাষিদের মতে ভোটের সময় বাছাতেই ভুল হয়েছে সরকারের। কারণ এই সময়ই সারা বছরের ফসল ঘরে তুলতে ব্যস্ত থাকেন কৃষকেরা। সেই কাজ সম্পূর্ণ না হওয়ায় ভোটের লাইনে দাঁড়ানোর পরিবর্তে ফসলকাটার কাজকেই তাঁরা প্রাধান্য দেবেন বলে আশঙ্কা করছেন প্রার্থীরাও।