গ্রিমভাইদের গুগলের ডুডলিং শ্রদ্ধার্ঘ

Last Updated: Thursday, December 20, 2012 - 14:12

রূপকথার রঙিন পৃথিবীতে আজও যারা বেঁচে থাকেন তাদের জন্য অনবদ্য ডুডলিং উপহার নিয়ে এল গুগল। আজকের গুগল ডুডল শ্রদ্ধা জানিয়েছে জার্মানির কিংবদন্তী রুপকথক গ্রিমভাইদের। তাঁদের লেখা রূপকথা সংকলনের প্রথম সংস্করণের ২০০ বছর উদযাপন উপলক্ষে ডুডলে আজকের অতিথি লিটল রেড রাইডিং হুড। পৃথিবীর সব প্রান্তের শৈশবের সর্বকালীন সঙ্গী, গ্রিমভাইদের অবিস্মরণীয় সৃষ্টি।
মাথায় লাল টুকটুকে টুপি, গায়ে লাল রঙের জামায় হুডের পুঁচকি মেয়ে রেড রাইডিং হুড। জঙ্গলের মধ্যে দিয়ে সে তার অসুস্থ ঠাকুমাকে দেখতে যাচ্ছিল। পথে এক দুষ্ট নেকড়ের সঙ্গে তার মোলাকাত হয়। পাজি নেকড়েকে বিশ্বাস করে বেচারি মেয়ে তার ঠাকুমার কথা তাকে জানায়। সেই নেকড়ে তখন তাড়াতাড়ি রেড রাইডিং হুডের ঠাকুমার বাড়ি পৌঁছায়। সেখানে বুড়ি ঠাকুমাকে গিলে খেয়ে ঠাকুমারই পোষাক পরে অপেক্ষা করে রেড রাইডিং হুডের জন্য। তাকেও খাবে বলে। এরপর কী করে সেই বাচ্চা মেয়েটি এক কাঠুরিয়ার সাহায্যে পাজি নেকড়ের হাত থেকে বেঁচে ফেরে সেই নিয়ে আবর্তিত বহু পরিচিত এই রূপকথা।
গুগলের ডুডল আজকে বেশ কিছু প্যানেলে বিভক্ত। ডানদিকের বোতামটা ক্লিক করলেই পৌঁছে যাওয়া যায় পরের প্যানেলে। প্রতিটি প্যানেল রেড রাইডিংয়ের গল্পের এক একটা অধ্যায়কে সুন্দর করে বোঝায়।
১৮১৪ সালে প্রকাশিত গ্রিম ভাইদের রূপকথার প্রথম সংস্করণটি ছোটদের বই হিসাবে প্রকাশিত হলেও প্রাথমিক ভাবে প্রভূত বিতর্কের সম্মুখীন হয়ে ছিল। এই গল্পগুলোতে অত্যাধিক মাত্রায় হিংস্রতা বাচ্চাদের মনে বিরূপ প্রতিক্রিয়া তৈরি করতে পারে বলে অভিযোগ তোলেন অনেকেই। এমনকী রাপুনজেলের মত কিছু গল্পেও অকারণ যৌনতার আশ্রয় নেওয়া হয় বলে অভিযোগ উঠেছিল। এরপর গ্রিম ভাতৃদ্বয় জেকব আর উইলহেম তাঁদের বইয়ের পরবর্তী সংস্করণ গুলোতে বেশ কিছু পরিবর্তন নিয়ে আসেন। যদিও তাঁদের মূল গল্পগুলো অতরিক্ত হিংস্রতার জন্য আজও সমালোচিত।
গ্রিম ভাইদের মূল গল্পগুলো বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন লেখকদের কলমের খোঁচায় বা কথকের বাক্যে রূপ বদল করেছে নিজেদের মত করে। কিন্তু তাঁদের জন্যই সিন্ডেরেলা, রাপুনজেল, লিটলরেডরাইডিংহুড, হ্যানসেল এন্ড গ্রেটেল, স্নো হোয়াইটের মত বহু চরিত্ররা মিশে গেছে শৈশব শব্দটার সঙ্গে।



First Published: Thursday, December 20, 2012 - 14:12


comments powered by Disqus