ব্রিটেনে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন মালালা

ব্রিটেনে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন মালালা

ব্রিটেনে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন মালালাহাসপাতাল থেকে ছাড়া পেল মালালা ইউসুফজাহি। পাকিস্তানের সোয়াতে মেয়েদের শিক্ষার অধিকারের স্বপক্ষে সওয়াল করায় গত বছরের অক্টোবরে তালিবানরা তাঁর কপালে গুলি করে। কোনও মতে প্রাণে বেঁচে গেলেও চিকিৎসার জন্য তাঁকে ব্রিটেনে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানকার হাসপাতাল থেকেই আজ ছাড়া পেলেন মালালা। তবে এ মাসের শেষেই মাথায় ফের অস্ত্রপচারের জন্য তাঁকে আবারও হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে।

বার্মিংহ্যামের কুইন এলিজাবেথ হাসপালে তাঁকে চিকিৎসাকারী ডাক্তার ডেভ রসার বলেন, "মালালা খুবই সাহসী মেয়ে। সুস্থ হয়ে ওঠার জন্য সর্বদায় সচেষ্ট ছিল। তাঁর সঙ্গে এবং ওঁর মেডিক্যাল টিমের সঙ্গে আলোচনা করেই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে ও এখন ওঁর বাবা মা এবং দুই ভাইএর সঙ্গে ভাল থাকবে।"

বছর চারেক আগে পাকিস্তানের সোয়াতে শুরু হয়েছিল তালিবানি দাপট। গোটা অঞ্চল জুড়ে শুরু হয়েছিল চরম অরাজকতা। পশ্চিমী সংস্কৃতির প্রচার হচ্ছে এই অজুহাতে প্রায় সব স্কুল বন্ধ করে দিয়েছিল তালিবান। তালিবানি ফতোয়ায় নিষিদ্ধ হয়ে ছিল মেয়েদের স্কুলে যাওয়াও। কিন্তু এই ফতোয়া মানতে পারেনি বছর এগারোর মালালা ইউসুফজাই। গুল মাকাই ছদ্মনামে উর্দুতে ব্লগ লেখা শুরু করেছিল সে। আর তখন থেকেই হয়ে উঠেছিল তালিবানের চক্ষুশূল। সাহসিকতার সঙ্গে শিক্ষা ও শান্তির প্রচার করার জন্য পাক সরকারের তরফে পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল তাকে। অন্যদিনের মতো সেদিনও স্কুলবাসে বাড়ি ফিরছিল মালালা। পথে তাদের বাস আটকে দেয় দুজন জঙ্গি। বাসে উঠে মালালাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় তারা। গুরুতর জখম মালালাকে তখনই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসার জন্য ব্রিটেনে নিয়ে যাওয়া হল পাকিস্তানি কিশোরী মালালাকে।

এই ঘটনায় নিন্দার ঝড় ওঠে বিশ্ব জুড়ে। তাঁর উপর আক্রমণের ঠিক এক মাস পর `মালালা` দিবস পালন করা হয়। রাষ্ট্রসংঘের প্রধান বান কি মুনও মালালাকে নারী শিক্ষার ক্ষেত্রে মালালা কে `অনুপ্রেরণা` বলে অভিহীত করেন।





First Published: Wednesday, January 09, 2013, 16:37


comments powered by Disqus