বিমান নিখোঁজের ১২ দিন- জোড়া সূত্রের মাঝেও খোঁজ মেলার আশা কমছে

মালয়েশিয়ার বিমান নিখোঁজ ১২ দিনে পা পড়ল। বিমান রহস্যের এক চুলও সঠিক তথ্য হাতে এল না মালয়েশিয়া সরকারের কাছে। সবকিছুই অনুমানের উপর ২৭ টি দেশ মিলে চিরুনি তল্লাসি চালাচ্ছে। এবার রহস্যভেদ অভিযানে অস্ট্রেলিয়াও যোগ দিল।

Updated: Mar 19, 2014, 02:35 PM IST

বিমান নিখোঁজের ১২ দিন- জোড়া সূত্রের মাঝেও খোঁজ মেলার আশা কমছে

** মালয়েশিয়া বিমান রহস্যের এই মুহূর্তের খবর::

MH370 রহস্য ১২ দিন

মালয়েশিয়ার বিমান নিখোঁজ ১২ দিনে পা পড়ল। বিমান রহস্যের এখনও কোনও সঠিক তথ্য হাতে এল না মালয়েশিয়া সরকারের কাছে। সবকিছুই অনুমানের উপর ২৭ টি দেশ মিলে চিরুনি তল্লাসি চালাচ্ছে। এবার রহস্যভেদ অভিযানে অস্ট্রেলিয়াও যোগ দিল। অস্ট্রেলিয়ান মেরিটাইম সেফটি অফরিটি (AMSA) জানিয়েছেন, তাঁরা দক্ষিণ ভারত মহাসাগরে প্রায় ৬ লক্ষ বর্গ কিলোমিটার জুড়ে তল্লাশি চালাবে। যত দিন যাচ্ছে রহস্য আরও ঘনীভূত হচ্ছে। বিমান দুর্ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে ছিনতাই হওয়ার অনুমান উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। এই ১২ দিনের নিরলস তদন্তে বেশ কিছু প্রশ্ন উঠে আসছে।

১) প্রথম সূত্র: MH370 বিমানের কো-পাইলট ফারিক আব্দুলের শেষ বার্তা পাওয়া গিয়েছিল "অলরাইট, গুড নাইট"। এই বার্তা পাওয়ার ঠিক ১২ মিনিট পর থেকে বিমানকে রেডারে আর ধরা পড়েনি। যদি সব ঠিকঠাক থাকত তাহলে পাইলটকে বলা উচিত ছিল "রজার অ্যান্ড আউট"। তাই তাঁর শেষ বার্তাটিকে নিয়ে আরও রহস্য ঘনীভূত হয়েছে। প্রশ্ন "অলরাইট, গুড নাইট" কি সত্যি কোনও বিপদের সঙ্কেত ছিল?

২) দ্বিতীয় সূত্র: মলদ্বীপের এক অধিবাসী দাবি করছেন, ৮ মার্চ, স্থানীয় সময় সকাল ৬.১৫ মিনিটে খুব নিচ দিয়ে বিশাল একটি বিমান যায়। তাঁর বর্ণনার সঙ্গে MH370 বিমানের অনেকখানি মিল পাওয়া যাচ্ছে। ধালু অটল দ্বীপের কুডা হুভাদুর অধিবাসীরা জানিয়েছেন, খুব ভোরে ভীষন শব্দে একটি বিমান উত্তর দিক দিয়ে এসে দক্ষিণ পূর্ব অর্থাত্ অড্ডুর দিকে চলে যায়। তাঁদের জীবনে এত কাছ থেকে এইরকম বিমান যাওয়া কোনওদিন দেখেনি।

৩) নিখোঁজ বিমানের যাত্রীরা মোবাইলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছেন কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। যদি বিমান থেকে মোবাইলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয় তাহলে সন্ধান কাজে অনেকটা এগনো যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

MH370 রহস্য ১১ দিন
** হন্যে হয়ে খোঁজার পর সব আশাই ক্ষীণ হচ্ছে। MH370 বিমান যদি কোনওভাবে ছিনতাই হয়ে থাকে এখন জোরালো প্রশ্ন উঠছে বিমানের কোনও যাত্রীরা কেন মোবাইল ফোন ব্যবহার করে বাইরের জগতের সঙ্গে যোগাযোগ করছে না কেন? একদিক থেকে সব প্রচেষ্টা যখন বৃথা তখন অপহৃত বিমানের থেকে কোনও সন্দেশ পাওয়াটাই খুব জরুরী। এই রকম প্রমান এর আগেও পাওয়া যায়। ২০০১ সালে ১১ সেপ্টেম্বরে ৪ টি বিমান অপহরণ হয়েছিল। সেখানকার বিমানযাত্রীদের কাছ থেকে মোবাইলে সন্দেশ পাওয়া অনুযায়ী উদ্ধার করা হয় বিমানগুলিকে।

তবে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন সেই চারটি বিমান ছিল একটা নির্দিষ্ট আবক্রে মধ্যে। MH370 বিমান যাচ্ছিল প্রায় ৪৫ হাজার ফুট উপর দিয়ে। এই উচ্চতায় মোবাইলে যোগাযোগ রাখা সম্ভব নয় বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

** মালয়েশিয়ার নিখোঁজ বিমানটির হাইজ্যাকের সঙ্গে চিনা যাত্রীদের জড়িত থাকার দাবি উড়িয়ে দিল চিন। চলতি মাসের ৮ তারিখ কুয়ালা লামপুর থেকে বেজিং যাওয়ার পথে রহস্য জনক ভাবে

নিখোঁজ হয়ে যায় মালয়েশিয়ার যাত্রীবাহী বিমানটি। সারা বিশ্বজুড়ে তীব্র খানা তল্লাশির পরে ১১ দিন কেটে গেলেও এখনও খোঁজ পাওয়া যায়নি বিমানটির। এসেছে বিমান ছিনতাই, সন্ত্রাসবাদী

হামলার তত্ত্বও। কিন্তু কোনও যুক্তি যুক্ত প্রমাণ এখনও পাওয়া যায়নি। বিবিধ তত্ত্বের মধ্যেই অন্যতম ছিল চিনা যাত্রীদের দ্বারা বিমানটির ছিনতাই বা সন্ত্রাসবাদী হামলার আশঙ্কা। মঙ্গলবার চিনের তরফ থেকে সাফ জানানো হল বিমানটির নিখোঁজ হওয়ার সঙ্গে চিনা যাত্রীদের জড়িত থাকার কোনও প্রমাণই নেই।