ভেনিস বাঁচাতে আসছে মোজেস

Last Updated: Friday, October 18, 2013 - 11:56

ভেনিসের পরিত্রাতা কি মোজেস? বিশেষজ্ঞরা তেমনটাই দাবি করছেন। সমুদ্রে জোয়ার এলেই প্লাবিত হয় ইতালির ওই গর্বের শহর। কোটি কোটি টাকা খরচ করে ইতালির সরকার তৈরি করেছে এক নতুন প্রাচীর। সাধারণ সময়ে যা সমুদ্রের অতলে থাকবে । কিন্তু জোয়ারের সময় মাথা উঁচিয়ে রুখবে জলের প্রবাহ। এই প্রাচীরের নামই মোজেস।
ভেনিস বললেই কোন দৃশ্য ভেসে ওঠে মনের কোঠায়? শহরের মধ্যে দিয়ে শিরা-ধমনীর মতো বয়ে চলেছে একাধিক খাল। আর তাতে ভাসছে গন্ডোলা। জন্মলগ্ন থেকেই জল ভেনিসের জীবন। হাজার হাজার বছর ধরে চলছে ইতালির এই প্রসিদ্ধ শহরের ভাঙাগড়া। বর্তমানে ভেনিস শতাধিক ছোট ছোট দ্বীপের সমষ্টি। যাদের মাঝখান দিয়ে বয়ে গিয়েছে ২০০টিরও বেশি ক্যানাল।  
বিদেশি পর্যটকদের কাছে ভেনিসের প্রধান আকর্ষণ যে ছবি, তাই বাসিন্দাদের বিপদের কারণও বটে। সমুদ্রে জোয়ার এলেই ডুবে যায় ভেনিস। সেই সমস্যা মেটাতে হাজির মোজে। ইতালিয়ান ভাষায় মডিউলো স্পেরিমেন্টালে ইলেত্রো মেকানিকো। সহজ বাংলায় এক অদৃশ্য বাঁধ।
সমুদ্রের জল ৮০ সেন্টিমিটার ছাড়ালেই ভেনিসে বন্যা হয়। শহরকে যদি বাঁচাতে হয় তাহলে বছরে ৪০-৫০ বার খাঁড়ির মুখ বন্ধ করতে হবে। কিন্তু তা হলে জাহাজ চলাচল মার খাবে। পরিবেশগত সমস্যাও হতে পারে ।
ভেনিসের খালে জল ঢোকে মূলত তিনটি খাঁড়ি থেকে। লিডো , মালামোক্কো এবং চিওজ্জিয়া। ওই তিন জায়গায় মোট ৭৮টি ভাসমান প্রাচীর তৈরি করবে ইতালি। প্রত্যেকটি প্রাচীরের ওজন ২১৫ থেকে ৩২০ টনের মধ্যে। স্বাভাবিক সময়ে সমুদ্রের তলায় ডুবে থাকবে ওই প্রাচীরগুলি। জোয়ারের সময় জলের উচ্চতা এক দশমিক এক শুন্য মিটার ছাড়ালেই সক্রিয় হয়ে উঠবে সেগুলি। বাতাস ঢুকিয়ে ওই প্রাচীরগুলিকে দাঁড় করানো হবে। অনেকটা বাঁধের মতোই।
এই প্রকল্প সব দিক থেকেই ঐতিহাসি। ১৯৬৬ সাল থেকে ভেনিসকে প্লাবনের হাত থেকে বাঁচানোর পরিকল্পনা চলছে। কিন্তু গোড়া থেকেই একের পর এক কেলেঙ্কারিতে জড়িয়েছে মোজেস। ২০০৪ সাল থেকে নির্মানকাজ শুরু হয়। ততদিনে প্রকল্পের খরচ বেড়ে৪৩০ কোটি ইউরো ছাড়িয়ে গিয়েছে।
এত বড় মাপের প্রকল্পের কাজ যে শেষ হতে পারে মোজেস তার জ্বলন্ত উদাহরণ । তবে ভেনিসের মতো গর্বের শহরের জন্য এটা তো করতেই হতো।
মোজেস প্রকল্পের এক প্রতীকি তাত্‍পর্যও রয়েছে। কিংবদন্তী অনুযায়ী, মিশরের সেনাবাহিনীর হাত থেকে অনুগামীদের বাঁচাতে নাকি সমুদ্র-ভাগ করে এগিয়ে গিয়েছিলেন মোজেস। সমুদ্র ঠেকাতে তাই কি ফের পয়গম্বরেই আস্থা ইতালির?



First Published: Friday, October 18, 2013 - 11:56


comments powered by Disqus