নাশিদকে রাজনৈতিক আশ্রয়ের প্রস্তাব নয়াদিল্লির

Last Updated: Saturday, February 11, 2012 - 21:36

মালদ্বীপের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মহম্মদ নাশিদকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেওয়ার প্রস্তাব দিয়ে বার্তা পাঠাল নয়াদিল্লি। শ্রীলঙ্কায় থাকা নাশিদের পরিবারকেও নিরাপদ আশ্রয় দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। মালদ্বীপে শান্তি ফেরাতে উদ্যোগী দিল্লি। কথা বলা হচ্ছে সে দেশের বর্তমান প্রেসিডেন্ট মহম্মদ ওয়াহিদ হাসানের সঙ্গে।  
দিল্লির শান্তিপ্রচেষ্টার মাঝেই, শনিবার মালদ্বীপের বর্তমান প্রেসিডেন্ট মহম্মদ ওয়াহিদ হাসান জানিয়েছেন, নাশিদ জমানার বিরুদ্ধে সমস্ত অভিযোগের নিরপেক্ষ তদন্ত হবে।
ক্ষমতার পালাবদলের সঙ্গে সঙ্গেই প্রতিহিংসার রাজনীতির ছোঁয়াচ লেগেছিল মালদ্বীপে। বৃহস্পতিবার আরব সাগরের এই দ্বীপরাষ্ট্রের ফৌজদারি আদালত সদ্য-পদত্যাদী প্রেসিডেন্ট মহম্মদ নাশিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করার পরই তাঁকে আটক করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশে নাশিদ-ক্যাবিনেটের প্রতিরক্ষামন্ত্রী তলহাত ইব্রাহিম খালেফানুরকেও গ্রেফতার করেছে পুলিস।
এই পরিস্থিতিতে বুধবার রাতে নাশিদের স্ত্রী লায়লা আলি মালদ্বীপ ছেড়ে শ্রীলঙ্কায় চলে গেছেন। তাঁর সঙ্গে পরিবারের কয়েকজন সদস্যও রয়েছেন বলে শ্রীলঙ্কা সরকারের সূত্রে খবর মিলেছে। মালদ্বীপের নয়া প্রেসিডেন্ট ড. মোহামেদ ওয়াহিদ তাঁর ক্ষমতাচ্যূত পূর্বসূরির নিরাপত্তা নিশ্চিত করার বিষয়ে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপক্ষেকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বলে দাবি কলম্বোর মিডিয়ার। যদিও নাশিদের দল মালদ্বীপ ডেমোক্রেটিক পার্টি`র তরফে তাঁর জীবনসংশয় আছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে।
তবে সূত্রের খবর, নাশিদের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসার রাজনীতি করা হবে না বলেই দিল্লিকে আশ্বাস দিয়েছেন ওয়াহিদ হাসান। মালদ্বীপে শান্তি ফেরানোর লক্ষ্যে সবপক্ষের সঙ্গে কথা বলছেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এম গণপতি। জানা গিয়েছে, নাশিদ ও তাঁর পরিবারকে রাজনৈতিক আশ্রয়ের প্রস্তাব দিয়েছে ভারত। যদিও নাশিদ মালদ্বীপে থেকেই নিজের লড়াই চালিয়ে যেতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।



First Published: Saturday, February 11, 2012 - 21:36


comments powered by Disqus