আমেরিকা জুড়ে ভোটের দামামা, সঙ্গে অভিনব বিক্ষোভ

Last Updated: Monday, November 5, 2012 - 08:14

টেলিভিশন হোক বা রেডিও। সবই এখন একসুরে বাজছে আমেরিকায়। সবেতেই ওবামা-রোমনি মহারণের দামামা। কখনও চলছে দুই প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীর বাগযুদ্ধ, আবার কখনও একক ভোটপ্রচার। আর এসবের বাড়বাড়ন্তে তিতিবিরক্ত কলোরাডোর বাসিন্দা অ্যাবিগেল। একেবারে কেঁদেকেটে অস্থির সে। চার বছরের এই শিশুর প্রতিক্রিয়া ভাইরাসের মতো ছড়িয়ে পড়েছে ইউটিউবেও। মার্কিন মুলুকে আনাচে-কানাচে এখন এক কথা, এক আলোচনা। ওবামার প্রত্যাবর্তন নাকি রোমনির অভিষেক? টেলিভিশন থেকে রেডিও, সবেতেই প্রায় চব্বিশ ঘণ্টা হয় দুই প্রার্থীর ভোটপ্রচার নয়ত ভোটযুদ্ধের আলোচনা। আর এই কচকচানিতেই রীতিমতো বিরক্ত কলোরাডোর বাসিন্দা ছোট্ট অ্যাবিগেল।
 
মা-র মুখ থেকে জানা গেল, ন্যাশনাল পাবলিক রেডিও খুলে সর্বক্ষণ ওবামা-রোমনির কথা শুনে শুনে মেয়ের এই অবস্থা। এনিয়ে অবশ্য অ্যাবিগেলের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন এনপিআর-কর্তৃপক্ষ। তারা মেনে নিয়েছেন, ভোটপ্রচার নিয়ে একটু বাড়াবাড়িই হয়েছে।
     
ওবামা-রোমনি মহারণের আরেক ছবি ওয়াশিংটন ডিসি-তে। এখানে মুখোশে প`রে দেখানো হল বিক্ষোভ। তবে ছিল না কোনও স্লোগান। বরং সুরে-তালে, নেচে-গেয়ে প্রতিবাদে সামিল হয়েছিলেন মানুষজন।    
 
এহেন বিক্ষোভের মূলে রয়েছে প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী মিট রোমনির এক উক্তি। সম্প্রতি একটি অনুষ্ঠানে রোমনি বলেছেন, তিনি ক্ষমতায় এলে পাবলিক ব্রডকাস্টিং সার্ভিসকে ভর্তুকি দেওয়া বন্ধ করে দেবেন। তাঁর যুক্তি, সরকারি কোষাগারে ঘাটতি কমাতেই এই সিদ্ধান্ত। তবে এই ঘোষণা মোটেই ভাল চোখে দেখেননি এমন মানুষও যে আছেন, তারই প্রমাণ মিলল ন্যাশনাল মলের সামনে। রোমনির সিদ্ধান্তে মুছে যেতে পারে পাবলিক টেলিভিশন ও তাতে সম্প্রচারিত বহু জনপ্রিয় অনুষ্ঠান। হলুদ-লোমশ এই বৃহদাকার পাখি, যাকে আমেরিকার জনগণ চেনেন বিগ-বার্ড নামে, তারও কি তবে টিভির দুনিয়া থেকে বিদায় আসন্ন? এই আশঙ্কাই প্রতিবাদ-মঞ্চে এক করেছে বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা মানুষকে।
 



First Published: Monday, November 5, 2012 - 08:14


comments powered by Disqus