মহিলাকে ধাক্কা দেওয়ার প্রতিবাদে প্রহৃত যুবক মহিলাকে ধাক্কা দেওয়ার প্রতিবাদে প্রহৃত যুবক

মহিলাকে ধাক্কা দেওয়ার প্রতিবাদ করায় বেদম মারধর করা হল এক যুবককে। গতকাল সন্ধেতে এ ঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার সোনারপুর তেমাথায়। সাইকেলে চেপে যাওয়ার সময় ওই মহিলাকে ধাক্কা দেয় এক যুবক। প্রতিবাদ করায় মহিলাকে কটূক্তি করেন যুবকের দুই সঙ্গী। ঘটনাটি দেখতে পেয়ে এগিয়ে আসেন মহিলার এক আত্মীয় এবং প্রতিবেশী এক যুবক। তাঁরাও ওই ঘটনার প্রতিবাদ করেন। তখনই ওই যুবকরা মহিলার আত্মীয়কে মারধর করে । বেদম মারধর করা হয় প্রতিবেশী যুবককেও। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে কলকাতার এনআরএস হাসপাতালে চিকিত্‍সার পর ওই যুবককে ছেড়ে দেওয়া হয়।

আইটিআইতে গোষ্ঠী সংঘর্ষ: জেলা সভাপতিকে বহিষ্কার করল টিএমসিপি আইটিআইতে গোষ্ঠী সংঘর্ষ: জেলা সভাপতিকে বহিষ্কার করল টিএমসিপি

হাওড়া আইটিআইয়ে টিএমসিপির গোষ্ঠী সংঘর্ষের ঘটনায় কড়া ব্যবস্থা নিল দল। টিএমসিপি থেকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য বহিষ্কার করা হল হাওড়া সদরের জেলা সভাপতি অঞ্জন টাকিকে। শো কজ করা হয়েছে কলেজের ছাত্র সংসদের জিএস লিয়াকত আলিকে। সাত দিনের মধ্যে তাঁকে শোকজের জবাব দিতে বলা হয়েছে। কাদের নিয়ন্ত্রণে থাকবে কলেজ, এনিয়ে টিএমসিপির দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষের জেরে গতকালই রণক্ষেত্র হয়ে উঠে আইটিআই চত্বর। কলেজ চত্বরে নির্বিচারে  চলে গুলি, বোমা। ইটের ঘায়ে মাথা ফাটে এক ছাত্রের। ঘটনার পরই টিএমসিপি রাজ্য সভাপতি অশোক রুদ্রর নেতৃত্বে তদন্ত কমিটি গড়া হয়। আজ কলেজের ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেন তাঁরা। সংঘর্ষের সময় কলেজে যে বহিরাগতরা ঢুকে ছিল, তা মেনে নিয়েছেন অশোক রুদ্র। এঘটনায় অঞ্জন টাকির বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন কলেজের জিএস। তার বিরুদ্ধে গুলি-বোমা নিয়ে হামলার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

যাত্রী কার? টোটো আর অটোতে ঝামেলা যাত্রী কার? টোটো আর অটোতে ঝামেলা

যাত্রী কার? এ নিয়ে টোটো ও অটো চালকদের বারবার সংঘর্ষে অশান্তি ছড়াল বারাসতে। চাঁপদানি মোড়ে প্রথমবার গণ্ডগোল হয়। টোটো চালকরা এক অটো চালককে লোহার রড দিয়ে মারধর করে বলে অভিযোগ। বারাসত থানায় FIR করা হয়। এরপর পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়। বারাসত লরিস্ট্যান্ড ও দক্ষিণ পাড়ায় তিনটি অটো ভাঙচুর করেন টোটো চালকরা। বামনগাছিতে ডাক্তার দেখিয়ে পরিবারকে নিয়ে ফিরছিলেন প্রসেনজিত্‍ বিশ্বাস নামে এক অটোচালক। হামলার হাত থেকে রক্ষা পাননি তিনিও। ঘটনায় তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। এই ঘটনায় স্থানীয় তৃণমুলের গোষ্ঠীদ্বন্দের দিকেই আঙুল তুলেছেন নিত্যযাত্রীরা। 

নামেই শান্তি সভা, বীরভূম অশান্তই নামেই শান্তি সভা, বীরভূম অশান্তই

অনুব্রত মণ্ডলের শান্তি সভার পর থেকেই একের পর এক রাজনৈতিক অশান্তি বীরভূমে। বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে ফের উত্তেজনা ছড়াল মাখড়া গ্রামে। সকাল থেকেই বিজেপি ও তৃণমূলের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ শুরু হয়েছে। গ্রামেরই এক বিজেপি সমর্থককের ওপর হামলাকে কেন্দ্র করে অশান্তির সূত্রপাত। হাঁসরা বাসস্ট্যান্ডে বাজার করতে গিয়েছিলেন বিজেপি সমর্থক শিশ মহম্মদ। অভিযোগ তখনই ওই কিশোরের ওপর চড়াও হয় সেখানকার তৃণমূল কর্মীরা। তাঁদের হাত থেকে শিশ মহম্মদকে উদ্ধার করে গ্রামে পৌছে দেয় পুলিস। কিন্তু, শিশ মহম্মদ গ্রামে পৌছতেই উত্তেজনা ছড়ায়। গ্রামের তৃণমূল সমর্থক পরিবারগুলির ওপর হামলা শুরু করেন বিজেপি সমর্থকরা। বেধড়ক মারধর করা হয় এক তৃণমূল কর্মীকে।