২৪ ঘণ্টার সাংবাদিকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা, নিন্দা সব মহলে

Last Updated: Friday, June 7, 2013 - 12:03

২৪ ঘণ্টার সাংবাদিককে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা। ফের সাংবাদিকের স্বাধীনতা খর্ব করার চেষ্টা। আশঙ্কাজনক ভাবে হাসপাতালে ভর্তি চিত্র সাংবাদিক বরুণ সেনগুপ্ত। ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে মাথা। নিন্দায় সর্বস্তরের রাজনৈতিক মহল। আলাদা ঘরে নিয়ে গিয়ে গায়ে পেট্রোল ঢেলে মারার পরিকল্পনা ছিল। বিএনবসু হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন বরুণ। আক্রান্ত সাংবাদিক ভিডিও দেখুন...
তৃণমূলের জেলা সভাপতি নির্মল ঘোষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে, দায় এড়িয়ে যান নির্মল বাবু। তিনি সাফ জানান, "যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে, তাঁরা সিপিএম থেকে আগত।" তবে জেলা সভাপতির বয়ানে, সিপিআইএম থেকে 'আগত' এর কী অর্থ তা স্পষ্ট হয়নি। সাংবাদিক আক্রন্ত হওয়ার ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন তৃণমূল সাংসদ কবীর সুমন। নিন্দায় রাজ্যের শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও। তিনি বলেন, "ঘটনা নিন্দনীয়। এ ধরনের কাজ দল সমর্থন করবে না।" সংবাদ মাধ্যমকে স্বাধীন ভাব কাজ করতে দেওয়ার পক্ষেই সওয়াল করেছেন তিনি।     
তৃণমূলের গোষ্ঠীর খবর সংগ্রহে গিয়ে আক্রান্ত হন ২৪ ঘণ্টার চিত্র সাংবাদিক বরুণ সেনগুপ্ত। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে বি এন বোস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
গতকাল রাতে তৃণমূল নেতা তথা বারাকপুর বার অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি রবীন ভট্টাচার্যের বাড়িতে ভাঙচুর চালায় তৃণমূলেরই একদল সমর্থক। ভাঙচুর চালানো হয় কংগ্রেস প্রার্থী সুস্মিতা হালদারের বাড়িতেও। সেই খবর সংগ্রহে যান বরুণ সেনগুপ্ত। সেখানে তাঁকে বাঁশ দিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয়। এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে তিন জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। ধৃতদের নাম জয় মণ্ডল, বলবীর সিং এবং রাজকুমার সিং। এ দিকে গতকাল রাতে বারাকপুরে খুন হন চিতুলাল তাঁতি নামে এক তৃণমূল সমর্থক। তাঁকে গুলি করে খুন করে দুষ্কৃতীরা। অভিযোগ গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরেই খুন হয়েছেন ওই যুবক।



First Published: Friday, June 7, 2013 - 17:34


comments powered by Disqus