টাওয়ার লোকেশন ধরে অপহরণের কিনারা

ফোনের টাওয়ার লোকেশনের সূত্র ধরেই অপহরণের কিনারা করল পুলিস। বৃহস্পতিবার আরামবাগের কাচড়া গ্রাম থেকে নিখোঁজ হয়ে যায় বছর আঠারোর যুবক মুজিবুর মণ্ডল। সন্ধেয় মুজিবরের মুক্তিপন বাবদ তিনলক্ষ টাকা দাবি করে হুমকি ফোন করে দুষ্কৃতীরা। সেই ফোনের টাওয়ার লোকেশন দেখেই মুজিবুরকে হাওড়ার জগদীশপুর থেকে উদ্ধার করে পুলিস।

Updated: Dec 22, 2012, 11:06 AM IST

ফোনের টাওয়ার লোকেশনের সূত্র ধরেই অপহরণের কিনারা করল পুলিস। বৃহস্পতিবার আরামবাগের কাচড়া গ্রাম থেকে নিখোঁজ হয়ে যায় বছর আঠারোর যুবক মুজিবুর মণ্ডল। সন্ধেয় মুজিবরের মুক্তিপন বাবদ তিনলক্ষ টাকা দাবি করে হুমকি ফোন করে দুষ্কৃতীরা। সেই ফোনের টাওয়ার লোকেশন দেখেই মুজিবুরকে হাওড়ার জগদীশপুর থেকে উদ্ধার করে পুলিস।
আরামবাগের কাচড়া গ্রাম। বৃহস্পতিবার সকালে গ্রাম থেকে নিখোঁজ হয়ে যায় বছর আঠারোর যুবক মুজিবর মণ্ডল। সন্ধেয় খানাকুল থানায় অপহরণের অভিযোগ দায়ের করেন মুজিবুরের মা নাজিমা বিবি। এরমধ্যেই বাড়িতে হুমকি ফোন আসে। তিনলক্ষ টাকা দিলে তবেই মুজিবুরকে ছাড়া হবে বলে জানিয়ে দেয় দুষ্কৃতীরা।হুমকি ফোনের কথা আরামবাগ থানায় জানান অপহৃত যুবকের মা।
এরপর ওই হুমকি ফোনের টাওয়ারের সূত্র ধরে হাওড়ার লিলুয়ায় পৌঁছয় খানাকুল থানার পুলিস। লিলুয়া থানাকেও গোটা ঘটনা জানানো হয়। টাওয়ার লোকেশন সার্চ করে দেখায় যায় হাওড়ার জগদীশপুর এঁলাকা থেকে ফোন করা হয়েছে। তল্লাসি চালিয়ে জগদীশপুরের একটি পরিত্যক্ত গোডাউন থেকে উদ্ধার করা হয় অপহৃত মুজিবুরকে। ঘটনাস্থল থেকে গ্রেফতার করা হয় মজিবুরের বন্ধু সুকুমার সামন্তকে। মুলিস জনিয়েছে মুম্বইয়ে সোনার দোকানে কাজ করার সময়ই  সুকুমার সামন্তের সঙ্গে বন্ধুত্ব হয় মুজিবুরের।