অনুব্রতর `উস্কানি` তে পুলিসের গাড়িতে বোমা

Last Updated: Sunday, July 21, 2013 - 08:58

বীরভূমের তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডলের উস্কানিমূলক মন্তব্যের ২দিন পরেই পুলিসের গাড়িতে বোমা মারার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে। এর আগেও বিক্ষুব্ধ গোষ্ঠীর প্রার্থীর বাড়ি জ্বালানোর পরামর্শও পালন করেছেন দলের কর্মীরা। বিরোধীরা বলছেন, অনুব্রত-র মন্তব্য উস্কানিমূলক। এবিষয়ে আজ রাজ্যপালের সঙ্গেও দেখা করবেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার মীরা পান্ডে। তবে, দলের বিভিন্ন নেতা-মন্ত্রীরা বুঝিয়ে দিচ্ছেন, অনুব্রত-র মন্তব্যে তাঁদের সমর্থন ষোলআনা।
 
গত বুধবার অনুব্রত মণ্ডল  পরামর্শ দিয়েছিলেন পুলিসের গাড়িতে বোমা মারার। আর শনিবার রাতে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তীতে পুলিসের গাড়ি লক্ষ্য করে পরপর বোমা।
 
এর আগে অনুব্রতের মন্তব্যের পরের দিনই বীরভূমে পুড়েছিল দুই বিক্ষুব্ধ প্রার্থীর বাড়ি।
 
একাধিকবার নানান হুমকি বচনে দলে নিজের গুরুত্ব প্রমাণ করেছেন অনুব্রত। তাঁর বক্তব্যে ক্লিনচিট দিয়েছেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং দলের সাধারণ সম্পাদক মুকুল রায়।
এবার অনুব্রতর সমর্থনে সাফাই দিলেন মদন মিত্র।  
এমনকী তাঁর মন্তব্যে যে ভোট শান্তিতেই হবে সেকথাও বলতে ভোলেননি পরিবহণমন্ত্রী।
অনুব্রত মণ্ডলের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই এফআইআর করেছেন আক্রান্ত রবিলাল সোরেন।  অথচ তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া দূর অস্ত, শুক্রবার খোদ মুখ্যমন্ত্রীর জনসভাতেও খোশমেজাজে দেখা গিয়েছে অনুব্রত মণ্ডলকে।
 
অনুব্রতকে গ্রেফতারের দাবি তুলেছে বামেরা। শনিবার রাজ্য নির্বাচন কমিশনের কাছে এই দাবি জানিয়েছে বাম প্রতিনিধিরা।
 
প্রথমবার অনুব্রতর হুমকি বচনের পর ব্যবস্থা হয়েছিল জেড ক্যাটাগরির নিরাপত্তার। আর এবার দলের মহাসচিব থেকে সাধারণ সম্পাদকের ক্লিনচিট, পরিবহণ মন্ত্রীর সাফাই, তৃণমূল নেত্রীর সামনে খোশমেজাজে ঘুরে বেড়ানো অনুব্রত মণ্ডলের মন্তব্য কী দলের কথাকেই সামনে তুলে ধরছে ?
প্রশ্ন তুলছেন বিরোধীরা।



First Published: Sunday, July 21, 2013 - 08:58


comments powered by Disqus