বর্ধমানের ছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়েছিল, জানাল পুলিস

Last Updated: Wednesday, October 30, 2013 - 23:32

বর্ধমানে ছাত্রীকে খুনের আগে ধর্ষণ করা হয়েছিল। ময়না তদন্তের রিপোর্টে ধর্ষণের প্রমাণ পাওয়া গেছে। জানিয়েছেন জেলার পুলিস সুপার। অন্যদিকে, মধ্যমগ্রামে কিশোরীকে গণধর্ষণে আরও এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। ধৃতের ১৪দিনের পুলিসি হেফাজতে নির্দেশ দিয়েছে আদালত । 
 
গত ২৫ অক্টোবর পড়তে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছিলেন ওই ছাত্রী। ২৭ অক্টোবর তাঁর দেহ উদ্ধার হয়। ধর্ষণ করে খুনের অভিযোগ করেন নির্যাতিতার পরিবার এবং স্থানীয় মানুষ। দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বুধবার বর্ধমান শহরে প্রতিবাদ সভায় অংশ নেন  বিশিষ্ট জনেরা। বের হয়  মোমবাতি মিছিল। মধ্যমগ্রামে কিশোরীকে ধর্ষণে আরও এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। পাপাই রায় নামে ওই অভিযুক্তকে মধ্যমগ্রামের রাজবাটি এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। ধৃতকে চোদ্দদিনের পুলিসি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে বারাসত আদালত। গণধর্ষণ কাণ্ডে ইতিমধ্যেই মূল অভিযুক্ত ছোট্টু তালুকদার ও তার সঙ্গী পলাশকে গ্রেফতার করেছে পুলিস।  বুধবার নির্যাতিতার বাড়ি গিয়ে পরিবারের সঙ্গে দেখা করে বিজেপি-র প্রতিনিধি দল।
 
গণধর্ষণের হাত থেকে রেহাই পাননি মূক ও বধির কিশোরীও। উত্তর চব্বিশ পরগনার বাদুড়িয়ায় মামার বিয়েতে  এসে নির্যাতনের স্বীকার হলেন বছর ষোলোর এক কিশোরী। স্থানীয় একটি আমবাগানে নিয়ে গিয়ে ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে কয়েকজন যুবক। বাদুড়িয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করে নির্যাতিতার পরিবার। এঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিস।
 
মুর্শিদাবাদের বড়োঞায় ধর্ষণের শিকার নবম শ্রেমির এক ছাত্রী। বুধবার সকালে বাড়ির পাশের ডেকে নিয়ে গিয়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে কয়েকজন যুবক। নির্যাতিতাকে কান্দি মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অভিযুক্ত যুবক পলাতক।
 



First Published: Wednesday, October 30, 2013 - 23:32


comments powered by Disqus