বাজি ফাটিয়ে খুনের উল্লাসে মাতল সামাজবিরোধীরা

উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে কেবল চ্যানেলের মালিক সঞ্জীব বর্ধনের খুনের ঘটনায় রীতিমতো উল্লসিত এলাকার সমাজবিরোধীরা। শনিবার দুপুরে মৃতদেহ নিয়ে শোকমিছিলের সময়ই বাজি ফাটিয়ে উল্লাস শুরু করে সমাজবিরোধীরা। শূন্যে গুলিও চালায় তারা। এর জেরে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন শহরের বাসিন্দারা।

Updated: Jan 5, 2013, 10:53 PM IST

উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে কেবল চ্যানেলের মালিক সঞ্জীব বর্ধনের খুনের ঘটনায় রীতিমতো উল্লসিত এলাকার সমাজবিরোধীরা। শনিবার দুপুরে মৃতদেহ নিয়ে শোকমিছিলের সময়ই বাজি ফাটিয়ে উল্লাস শুরু করে সমাজবিরোধীরা। শূন্যে গুলিও চালায় তারা। এর জেরে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন শহরের বাসিন্দারা।
দুষ্কৃতীদের ধাওয়া করে একজনকে পুলিস ধরতে পারলেও বাকিরা পালিয়ে যায়। এরপর সন্ধে থেকে আরও বাড়তে থাকে দুষ্কৃতী তাণ্ডব। রায়গঞ্জ স্টেশন চত্বরে শূন্যে গুলি ছুঁড়ে, আতসবাজি ফাটিয়ে উল্লাস শুরু করে তারা। এ ঘটনায় ফের আতঙ্ক ছড়ায় রায়গঞ্জে। ঘটনাস্থলে নামানো হয়েছে বিশাল পুলিসবাহিনী ও র‍্যাফ। গতকাল রাতে সঞ্জীববাবুকে গুলি করে খুন করে দুষ্কৃতীরা। ২০০৯-এ এই চ্যানেলেরই চিত্র সাংবাদিক খুন হয়েছিলেন। সেই খুনের মামলার অন্যতম সাক্ষী ছিলেন সঞ্জীব বর্ধন।
শুক্রবার রাতে অফিস থেকে ঢিল ছোঁড়া দুরত্বে সঞ্জীব বর্ধনের গাড়ি ঘিরে ধরে এলোপাতাড়ি গুলি চালায় একদল দুষ্কৃতী। দেহে একাধিক গুলি লাগায় গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে রায়গঞ্জ জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে শিলিগুড়ি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করার সময়ে মৃত্যু হয় সঞ্জীববাবুর। ফের দুষ্কৃতী হানায় খুন ব্যবসায়ী। এবারের ঘটনা উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে। শুক্রবার রাতে দুষ্কৃতীদের গুলিতে গুরুতর আহত হন রায়গঞ্জ কেবল টিভির কর্ণধার সঞ্জীব বর্ধন। জানা গেছে পেশাসূত্রে, সাংবাদিকতার সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন তিনি।