চাকুলিয়ায় নির্যাতিতার জন্য গড়া হল মেডিক্যাল বোর্ড

চাকুলিয়ায় গণধর্ষণের শিকার মহিলার চিকিত্‍সার জন্য তিন সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হল। তাঁর শারিরীক অবস্থার উন্নতি হলেও মানসিকভাবে সে পুরোপুরি বিপর্যস্ত বলে জানিয়েছেন চিকিত্‍সকরা। আজ হাসপাতালে ওই মহিলাকে দেখতে যান সিপিআইএম নেতা অশোক ভট্টাচার্য, জীবেশ সরকার। রাজ্যজুড়ে ধর্ষণের মতো ঘটনা বেড়ে যাওয়ার পিছনে পুলিস-প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তাকে দায়ী করেছে সিপিআইএম। ঘটনার দুদিন পরও এখনও পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি।

Updated: Jan 14, 2013, 07:29 PM IST

চাকুলিয়ায় গণধর্ষণের শিকার মহিলার চিকিত্‍সার জন্য তিন সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হল। তাঁর শারিরীক অবস্থার উন্নতি হলেও মানসিকভাবে সে পুরোপুরি বিপর্যস্ত বলে জানিয়েছেন চিকিত্‍সকরা। আজ হাসপাতালে ওই মহিলাকে দেখতে যান সিপিআইএম নেতা অশোক ভট্টাচার্য, জীবেশ সরকার। রাজ্যজুড়ে ধর্ষণের মতো ঘটনা বেড়ে যাওয়ার পিছনে পুলিস-প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তাকে দায়ী করেছে সিপিআইএম। ঘটনার দুদিন পরও এখনও পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি। ফের গণধর্ষণের ঘটনা রাজ্যে। পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুক থানার বাসিন্দা এক মহিলাকে অপহরণের পর তাকে চলন্ত গাড়িতে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।    
গত শুক্রবার পুলিস ওই মহিলাকে উদ্ধার করেছিল। তার চিকিত্‍সায় মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। নির্যাতিতা মহিলাকে দেখতে সোমবার উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে যান প্রাক্তন পুরমন্ত্রী তথা সিপিআইএম নেতা অশোক ভট্টাচার্য। সঙ্গে ছিলেন আরেক সিপিআইএম নেতা জীবেশ সরকারও। অভিযুক্তদের কঠোরতম শাস্তি দাবি করেন তাঁরা। পুলিস-প্রশাসনের ভূমিকার দিকেও আঙুল তুলেছে সিপিআইএম। উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী গৌতম দেব অবশ্য প্রশাসনিক নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ মানতে নারাজ। দোষীদের দ্রুত খুঁজে বের করে শাস্তির আশ্বাস দিয়েছেন মন্ত্রী।   

Tags: