নকলে বাধা দিয়ে প্রহৃত অধ্যাপক

ফের শিক্ষাক্ষেত্রে নৈরাজ্যের ঘটনা। নকলে বাধা দেওয়ায় বুধবার মারধর করা হয় আলিপুরদুয়ার কলেজের এক অধ্যাপককে। ঘটনায় অভিযুক্ত বহিরাগত এক ছাত্র পরিষদ নেতা। ওই কলেজ চত্বরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। ছাত্র বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে এ দিন দুপক্ষের সংঘর্ষ বেধে যায় মালদার মানকচকের একটি স্কুলে। প্রতিবন্ধী ছাত্রীকে মারধরের অভিযোগ বর্ধমানের একটি স্কুলে এক শিক্ষককে মারধর করে ছাত্রীর পরিবারের সদস্যরা।

Updated: May 8, 2013, 11:23 PM IST

ফের শিক্ষাক্ষেত্রে নৈরাজ্যের ঘটনা। নকলে বাধা দেওয়ায় বুধবার মারধর করা হয় আলিপুরদুয়ার কলেজের এক অধ্যাপককে। ঘটনায় অভিযুক্ত বহিরাগত এক ছাত্র পরিষদ নেতা। ওই কলেজ চত্বরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। ছাত্র বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে এ দিন দুপক্ষের সংঘর্ষ বেধে যায় মালদার মানকচকের একটি স্কুলে। প্রতিবন্ধী ছাত্রীকে মারধরের অভিযোগ বর্ধমানের একটি স্কুলে এক শিক্ষককে মারধর করে ছাত্রীর পরিবারের সদস্যরা।
বিএ, বিএসসি, বিকমের পরীক্ষা চলাকালীন এদিন এক পরীক্ষার্থীকে নকল করার সময় ধরে ফেলেন বাংলার অধ্যাপক দিলীপ রায়। অভিযোগ, দিলীপবাবুকে মারধর করে  বহিরাগত ছাত্র পরিষদ নেতা শ্যামল মল্লিক। খবর পেয়ে বিশাল পুলিসবাহিনী নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছন আলিপুরদুয়ার থানার আইসি। কলেজ চত্বর থেকে বের করে দেওয়া হয় বহিরাগতদের। অভিযুক্ত শ্যামল মল্লিকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। পুরো বিষয়টি জানানো হয়েছে উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে। জানিয়েছেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ।
ছাত্রবিক্ষোভকে কেন্দ্র করে এদিন উত্তেজনা ছড়ায় মালদার মানিকচকের এন বি হাই মাদ্রাসায়। প্রধানশিক্ষককে ঘরে তালা বন্ধ করে বিক্ষোভের সময় ছাত্রদের ওপর বহিরাগত কয়েকজন চড়াও হয় বলে অভিযোগ। এর জেরে সংঘর্ষ বাধে দুপক্ষের মধ্যে। আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় একটি মোটরবাইকে। বর্ধমানের আবু মণ্ডল স্মৃতি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক চন্দ্রচূড় ভট্টাচার্যকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে এক ছাত্রীর পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে। তাঁদের অভিযোগ, প্রতিবন্ধী ওই ছাত্রীকে মারধর করেন ওই শিক্ষক।