পাহড়ে আর বনধ হবে না, ত্রিপাক্ষিক বৈঠকে সায় দেওয়ায় রাজ্যের কাছে নতি স্বীকার মোর্চার

রাজ্যের কাছে নতি স্বীকার করল মোর্চা। পাহাড়ে বনধ-ধর্মঘটের আর হবে না। বিধানসভা অধিবেশন শুরু হওয়ার পর পাহাড় নিয়ে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হবে। তারপর আলোচনায় সামিল করা হবে কেন্দ্রকেও। তখনই ত্রিপাক্ষিক বৈঠক হবে। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর জানালেন হড়কা বাহাদুর ছেত্রী।

Updated: Oct 25, 2013, 12:05 PM IST

রাজ্যের কাছে নতি স্বীকার করল মোর্চা। পাহাড়ে বনধ-ধর্মঘটের আর হবে না। বিধানসভা অধিবেশন শুরু হওয়ার পর পাহাড় নিয়ে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হবে। তারপর আলোচনায় সামিল করা হবে কেন্দ্রকেও। তখনই ত্রিপাক্ষিক বৈঠক হবে। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর জানালেন হড়কা বাহাদুর ছেত্রী।
এদিন দার্জিলিংয়ের রিচমন্ড হিলে মোর্চা নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করলেন মুখ্যমন্ত্রী। জিটিএ এলাকার উন্নয়ন এবং জিটিএ-র হাতে থাকা বিভিন্ন দফতরের দায়িত্ব বণ্টন নিয়েই বৈঠকে কথা হয় বলে সরকারিভাবে জানানো হয়েছে। যদিও প্রশাসনিক মোড়কে মোড়া এই বৈঠক রাজনৈতিক দিক দিয়েও গুরুত্বপূর্ণ। বৈঠকে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ নেতা রোশন গিরির যোগদানকে তাত্পর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।
রোশন গিরি ছাড়াও জিটিএ প্রধান রমেশ আলে, এবং জিটিএ সদস্য জ্যোতি রাই ও পিটি ওলা বৈঠকে যোগ দেন। ছিলেন পাহাড়ের তিন মোর্চা বিধায়ক হরকা বাহাদুর ছেত্রী, তিলক দিওয়ান এবং রোহীত শর্মা। রাজ্য সরকারের তরফে মুখ্যমন্ত্রী এবং উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী ছাড়াও রয়েছেন মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব এবং জিটিএ-র প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি। তৃণমূল সাধারণ সম্পাদক মুকুল রায়ও ছিলেন।