পঞ্চায়েত ভোটের প্রচারে দেখা হবে না রাজনৈতিক রং, নির্দেশ কমিশনের

পঞ্চায়েত ভোটের প্রচারে, সভা করার অনুমতি দেওয়ার সময় রাজনৈতিক রং যেন দেখা না হয়। মনোনয়ন পত্র দাখিলের সময় গণ্ডগোলের অভিযোগ পেলেও দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। দক্ষিণবঙ্গের আটটি জেলার প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে এমনই নির্দেশ দিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। সোমবার আইনশৃঙ্খলা নিয়ে রাজ্য সরকারের সঙ্গে বৈঠক হওয়ার কথা কমিশনের।

Updated: May 19, 2013, 10:47 PM IST

পঞ্চায়েত ভোটের প্রচারে, সভা করার অনুমতি দেওয়ার সময় রাজনৈতিক রং যেন দেখা না হয়। মনোনয়ন পত্র দাখিলের সময় গণ্ডগোলের অভিযোগ পেলেও দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। দক্ষিণবঙ্গের আটটি জেলার প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে এমনই নির্দেশ দিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। সোমবার আইনশৃঙ্খলা নিয়ে রাজ্য সরকারের সঙ্গে বৈঠক হওয়ার কথা কমিশনের।  
নির্বাচনী প্রস্তুতির প্রাথমিক পর্ব নিয়ে শনিবারই নয় জেলার প্রশাসনিক আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছিল কমিশন। রবিবার বাকি আট জেলা ও আসানসোল কমিশনারেটের প্রশাসনিক আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন কমিশন কর্তারা। রবিবারের বৈঠকে প্রশ্ন উঠে এসেছে, জুলাই মাসের ভরা বর্ষায় ভোট হলে নির্বাচনী প্রস্তুতি কী হবে? দক্ষিণ ২৪ পরগনার একাধিক অংশে বর্ষায় বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। পঞ্চায়েত ভোটে সেসব জায়গায় নির্বাচনী প্রস্তুতি কী হবে তা জানতে চান জেলা প্রশাসনের কর্তারা।  
 
আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার ওপর জোর দিয়েছে কমিশন। কমিশনের নির্দেশ, ভোটপ্রচারে সভা করার অনুমতি দেওয়ার সময় যেন রাজনৈতিক রং না দেখা হয়। মনোনয়নপত্র দাখিলের সময়ও গণ্ডগোলের খবর পেলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থার নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। বেনামে অভিযোগ এলেও ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কমিশনের তরফে। 
রবিবার আট জেলার স্পর্শকাতর, অতি স্পর্শকাতর বুথের তালিকা নেওয়া হয়েছে। সোমবার স্বরাষ্ট্রসচিব এবং ডিজি ও এডিজি আইনশৃঙ্খলার সঙ্গে বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে কমিশনের। সেখানের জেলাশাসক ও জেলা পুলিস সুপারদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যগুলি নিয়ে আলোচনা করা হবে।