রেজ্জাকের কাছে কবীর সুমন

Last Updated: Monday, January 7, 2013 - 10:11

রেজ্জাক মোল্লাকে দেখতে হাসপাতালে গেলেন তৃণমূল সাংসদ কবীর সুমন। আজ বেলা ১১টা নাগাদ মুকুন্দপুরের বেসরকারি হাসপাতালে গিয়ে আহত বিধায়কের সঙ্গে দেখা করেন সুমন। সেখানেই আব্দুর রেজ্জাক মোল্লার ওপর আক্রমণে অভিযুক্ত তৃণমূল বিধায়ক আরাবুল ইসলামের সমালোচনা করে কবীর সুমন বলেন, "গণ আন্দোলনের ওরা কী জানে?" রেজ্জাকের ওপর আক্রমণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, "তিনি একজন বয়স্ক মানুষও বটে। তাঁকে আক্রমণ করা অন্যায় কাজ।" এই ঘটনায় আরাবুলের পাশেই দাঁড়িয়েছে তাঁর দল। এ নিয়ে পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী মন্তব্য প্রসঙ্গে কবীর বলেন, "ফিরহাদ হাকিম তাঁবেদারি করেন। তিনি রাজনৈতিক কথা বলেছেন।"
আজ সকালে চিকিৎসকদের তরফে জানানো হয়েছে, রেজ্জাক মোল্লার শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল। তবে তাঁর শরীরে অসহ্য যন্ত্রণা রয়েছে। কোমরে এক্সরে হয়েছে। ঠোঁটে  সেলাই করা হয়েছে। শক্ত খাবার খেতে পারছেন না তিনি। তরল খাবার দেওয়া হচ্ছে।   
ভাঙড়ে তৃণমূলের হাতে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় আব্দুর রেজ্জাক মোল্লার বিরুদ্ধে পুলিসে অভিযোগ দায়ের করে তৃণমূল কংগ্রেস। দলের সভা চলাকালীন রেজ্জাক মোল্লা উপস্থিত হয়ে উত্তেজনা তৈরির চেষ্টা করেন বলে তৃণমূলের অভিযোগ। উসকানিমূলক মন্তব্য করার অভিযোগও উঠেছে ন'বার নির্বাচিত হওয়া বিধায়কের বিরুদ্ধে। তৃণমূলের ব্যাওতা ২ নম্বর অঞ্চল সভাপতি বিমল নস্কর লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন, পুলিসের বাধা উপেক্ষা করে উত্তেজনা তৈরির চেষ্টা করেন সিপিআইএম বিধায়ক আব্দুর রেজ্জাক মোল্লা। কলকাতা লেদার কমপ্লেক্স থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন বিমল নস্কর।
আব্দুর রেজ্জাক মোল্লাকে হামলার ঘটনায় মূল অভিযুক্ত আরাবুল ইসলামকে গ্রেফতারের দাবিতে সরব বামেরা। ইতিমধ্যেই ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আরাবুল ইসলামকে গ্রেফতারের সময়সীমা দিয়েছেন তাঁরা। মঙ্গলবার শেষ হচ্ছে সময়সীমা। এরপর বিরোধী দলনেতা সূর্যকান্ত মিশ্রের নেতৃত্বে দক্ষিণ ২৪ পরগনার পুলিস সুপারের দফতরের সামনে অবস্থানে বসবে বামেরা। এর আগে বালিগঞ্জ থেকে মিছিল করবেন তাঁরা। আগামিকালের কর্মসূচি ঠিক করতে আজ সকাল ১১টায় বৈঠকে বসবে বামফ্রন্ট।
রবিবার ভাঙড়ে আক্রান্ত হন সিপিআইএম বিধায়ক রেজ্জাক মোল্লা। তাঁকে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভর্তি করা হয়। সিপিআইএম বিধায়কের মুখে, ঘাড়ে, কোমরে আঘাত লাগে। চিকিৎসকরা জানায়, তাঁর দাঁত ভেঙে দেওয়া হয়েছে। মাড়ি থেকে রক্তক্ষরণও হয়। কথা বলতেও অসুবিধা হচ্ছিল রেজ্জাক সাহেবের। কোমরের চোটও বেশ গুরুতর বলে চিকিত্‍সকরা জানিয়েছেন।



First Published: Monday, January 7, 2013 - 12:20


comments powered by Disqus