কামদুনিকাণ্ডে আদালতে তীব্র ভর্ত্সনা সিআইডিকে

আজ থেকে ফাস্ট ট্র্যাক কোর্টে শুরু হচ্ছে কামদুনিতে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ করে খুনের ঘটনার বিচার। কামদুনিতে কলেজ ছাত্রীকে খুন ও ধর্ষণের বাইশদিন পর ফরেন্সিক রিপোর্ট ছাড়া অসম্পূর্ণ চার্জশিটই আদালতে পেশ করে সিআইডি।  মঙ্গলবার বারাসাত আদালতে  পেশ করা হয় আট অভিযুক্তকেও।

Updated: Jul 3, 2013, 09:32 AM IST

কামদুনিকাণ্ডে অসম্পূর্ণ চার্জশিট দেওয়ায়, আদালতে তীব্র ভর্ত্সনার মুখে পড়ল সিআইডি। আদালত সূত্রের খবর, আজ মামলার শুনানি চলাকালীন তদন্তকারী অফিসারকে ডেকে চার্জশিটের সঙ্গে কেন ফরেনসিক রিপোর্ট নেই, সে প্রশ্ন তোলেন বারাসতের ফাস্ট ট্র্যাক আদালতের বিচারক অর্পণ চট্টোপাধ্যায়।
যেভাবে চার্জশিট দেওয়া হয়েছে, তাতে মামলাটি হাইকোর্টে পাঠাবেন কিনা, তদন্তকারী অফিসারকে সে প্রশ্নও করেন বিচারক। এফআইআরে নাম থাকা সত্বেও কেন চার্জশিটে তিনজনের নাম নেই তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন বিচারক। আইনজীবীরা জানিয়েছেন, চার্জশিটে জটিলতার কারণে আজও এই মামলায় চার্জ ফ্রেম করা যায়নি। আগামিকাল ফের মামলার শুনানি হবে। 
প্রসঙ্গত, কামদুনিতে কলেজ ছাত্রীকে খুন ও ধর্ষণের বাইশদিন পর ফরেন্সিক রিপোর্ট ছাড়া অসম্পূর্ণ চার্জশিটই আদালতে পেশ করে সিআইডি। মঙ্গলবার বারাসাত আদালতে পেশ করা হয় আট অভিযুক্তকেও। তবে চার্জশিটে ছজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হলেও, নাম নেই ঘটনায় অন্য দুই মূল অভিযুক্ত নূরে আলি ও আমিন আলির। চার্জশিটে নাম না থাকায় ওই দুইজনের ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয় আদালত।