ফের ধর্ষণ করে খুনের অভিযোগ, এবার ডায়মন্ড হারবারে

বারাসতের পর এবার ডায়মণ্ডহারবার। রবিবার সকালে ডায়মন্ডহারবার পুরসভা এলাকায় নদীর পার থেকে উদ্ধার হয় এক তরুণীর মৃতদেহ। তরুণীর পরিবারের অভিযোগ, ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে তাঁকে। পরিবারের তরফে স্থানীয় দুই যুবকের বিরুদ্ধে পুলিসে অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে। তবে এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি। পর্যাপ্ত আলো নেই। টহলদারির কথা থাকলেও সন্ধ্যার পর দেখা মেলে না পুলিসের। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, তারই সুযোগ নিয়ে দুষ্কৃতীদের স্বর্গরাজ্য হয়ে উঠেছে ডায়মন্ডহারবার পুরসভার দু নম্বর ওয়ার্ড। নিজের প্রাণ দিয়ে এক তরুণীকে যার খেসারত দিতে হল ।

Updated: Dec 30, 2012, 07:49 PM IST

বারাসতের পর এবার ডায়মণ্ডহারবার। রবিবার সকালে ডায়মন্ডহারবার পুরসভা এলাকায় নদীর পার থেকে উদ্ধার হয় এক তরুণীর মৃতদেহ। তরুণীর পরিবারের অভিযোগ, ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে তাঁকে। পরিবারের তরফে স্থানীয় দুই যুবকের বিরুদ্ধে পুলিসে অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে। তবে এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি।
পর্যাপ্ত আলো নেই।  টহলদারির কথা থাকলেও সন্ধ্যার পর দেখা মেলে না পুলিসের। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, তারই সুযোগ নিয়ে দুষ্কৃতীদের স্বর্গরাজ্য হয়ে উঠেছে ডায়মন্ডহারবার পুরসভার দু নম্বর ওয়ার্ড।  নিজের প্রাণ দিয়ে এক তরুণীকে যার খেসারত দিতে হল ।
শনিবার রাতে ডায়মন্ডহারবারের নিউটাউনে একাই মেলা দেখতে গিয়েছিলেন ওই তরুণী। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, এক যুবকের সঙ্গে বাইকে চেপে মেলা থেকে বেরিয়ে যান তিনি। রবিবার সকালে দু নম্বর ওয়ার্ডের রামরামপুরের হুগলি নদী তীরবর্তী এলাকায় পড়ে থাকতে দেখা যায় তরুণীর মৃতদেহ। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন ডায়মন্ডহারবার থানার আইসি। আসেন স্থানীয় কাউন্সিলর। পুলিসের ভূমিকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনিও।
মৃতদেহের পাশ থেকে মোবাইল ফোন এবং একটি মানিব্যাগ উদ্ধার হয়েছে।  পরিজনদের অভিযোগ, ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে তরুণীকে। প্রিন্স ও রাজা নামে স্থানীয় দুই যুবকের বিরুদ্ধে ডায়মন্ডহারবার থানায় অভিযোগও দায়ের করেছে তরুণীর পরিবার।
ঘটনার তদন্তে নেমেছে ডায়মন্ডহারবার থানার পুলিস। খতিয়ে দেখা হচ্ছে উদ্ধার হওয়া মোবাইলের কললিস্ট।