শ্লীলতাহানির অভিযোগ ফিরিয়ে বিতর্কে বিনপুর থানা

ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগ নেয়নি পুলিস। গ্রেফতারও করা হয়নি অভিযুক্তদের। উল্টে ভুয়ো মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে ওই ছাত্রীর পরিবারেরই তিনজনকে। এমনই অভিযোগ পশ্চিম মেদিনীপুরের বিনপুরের এক পরিবারের। পরিবারের সদস্যদের মুক্তি দাবি করে অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন ওই ছাত্রীর মা। স্কুলে যাওয়ার আগে পুকুরে স্নান করতে যাচ্ছিল অষ্টম শ্রেণির এই ছাত্রী। সেই সময়ই কয়েকজন যুবক তাকে টেনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে বলে অভিযোগ।

Updated: Jan 16, 2013, 08:46 PM IST

ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগ নেয়নি পুলিস। গ্রেফতারও করা হয়নি অভিযুক্তদের। উল্টে ভুয়ো মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে ওই ছাত্রীর পরিবারেরই তিনজনকে। এমনই অভিযোগ পশ্চিম মেদিনীপুরের বিনপুরের এক পরিবারের। পরিবারের সদস্যদের মুক্তি দাবি করে অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন ওই ছাত্রীর মা। স্কুলে যাওয়ার আগে পুকুরে স্নান করতে যাচ্ছিল অষ্টম শ্রেণির এই ছাত্রী। সেই সময়ই কয়েকজন যুবক তাকে টেনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে বলে অভিযোগ।
ছাত্রীর চিত্‍কারে ছুটে এসে ওই যুবকদের বাধা দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। বিনপুর থানা এই ঘটনার অভিযোগ নিতে অস্বীকার করে বলে অভিযোগ ওই ছাত্রীর। এরপর মঙ্গলবার রাতে ওই ছাত্রীর বাড়িতে হাজির হয় বিনপুর থানার পুলিস। পরিবারের অভিযোগ, ওই ছাত্রীর তিন আত্মীয়কে তুলে নিয়ে যায় তারা। পরে খুনের মামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এই ঘটনায় রীতমতো সন্ত্রস্ত ওই ছাত্রীর পরিবারের বাকি সদস্যরা এখন আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন।