দুর্গাপুরের ঘটনাও দেখালো তৃণমূলে এখন গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব চরমে

Last Updated: Monday, December 17, 2012 - 21:50

দুর্গাপুরে জয়বালাজি গোষ্ঠীর কর্তার ওপর হামলার ঘটনায় প্রকাশ্যে চলে এল তৃণমূলের শ্রমিক সংগঠনের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। গতকাল শিল্পমন্ত্রীকে আইএনটিটিইউসি-র বর্ধমান জেলা সভাপতি জানিয়েছিলেন, ঘটনায় মূল অভিযুক্ত অসীম পরামানিক তাঁদের সঙ্গে যুক্ত নন।  আজ জেলা সভাপতির সেই তথ্য উড়িয়ে দেন অসীম পরামানিক। তাঁর দাবি, শিল্পমন্ত্রীকে ভুল তথ্য দিয়েছেন আইএনটিটিইউসি-র জেলা সভাপতি।
শনিবার রাতে দুর্গাপুরের জয়বালাজি গোষ্ঠীর ইলেকট্রিক্যাল বিভাগের জেনারেল ম্যানেজার অরুণ থাট্টইকে মারধরের অভিযোগ ওঠে আইএনটিটিইউসি-র বিরুদ্ধে। কোকওভেন থানায় অসীম পরামাণিক, পান্নালাল ঘোষ, রবি আচার্যসহ চার আইএনটিটিইউসি নেতার বিরুদ্ধে এফআইআরও করে জয়বালাজি কর্তৃপক্ষ। রবিবার দিল্লিতে ঘটনা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শিল্পমন্ত্রী দাবি করেন, অভিযুক্ত অসীম পরামানিক আইএনটিটিইউসি-র কেউ নন। সংগঠনের জেলা সভাপতি প্রভাত চ্যাটার্জি তাঁকে তেমনই জানিয়েছেন।
  
প্রভাত চ্যাটার্জির এই দাবি ঘিরেই প্রকাশ্যে চলে এসেছে তৃণমূল শ্রমিক সংগঠনের দুই গোষ্ঠীর দ্বন্দ্ব। অসীম পরামানিকের দাবি, জয়বালাজি গোষ্ঠীর কারখানাসহ আরও বেশ কয়েকটি কারখানায় সংগঠনের দায়িত্বে রয়েছেন তিনিই। আইএনটিটিইউসি-র জেলা সভাপতি হিসেবে প্রভাত চ্যাটার্জির তা না জানা দুর্ভাগ্যজনক বলেও মন্তব্য করেন তিনি।  
 
প্রভাত চ্যাটার্জি অবশ্য এনিয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি। ঘটনার পর আইনশৃঙ্খলা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে কারখানা বন্ধের হুঁশিয়ারি দিয়েছিল জয়বালাজি কর্তৃপক্ষ। এরপরই তড়িঘড়ি কারখানা চত্বরে পুলিস পিকেট বসানো হয়। কড়া নিরাপত্তায় সোমবার কাজ শুরু হয় কারখানায়। ইতিমধ্যেই অভিযুক্ত চার আইএনটিটিইউসি নেতা জামিন পেয়ে গেছেন। কারখানায় হামলা চালিয়েও ওই চার নেতা জামিন পেয়ে যাওয়ায় পুলিসের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।
 



First Published: Monday, December 17, 2012 - 21:50
TAGS:


comments powered by Disqus