অনুব্রতর ডাকে সাড়া মিলছে, আগুন ধরানো হল নির্দল প্রার্থীর বাড়িতে

গতকাল তৃণমূলের বীরভূমের জেলা সভাপতি বলেছিলেন, কোনও নির্দল প্রার্থী হুমকি দিলে তাঁর বাড়ি ভেঙে দাও, পুলিসকে বোমা মারো। অনুব্রতর সেই ডাকে সাড়া মিলল। বীরভূমে গোপালনগরে নির্দল প্রার্থীর বাড়িতে আগুন ধরানো হল। এমনকি ঘটনার পরই আতঙ্কে ঘরছাড়া সেই নির্দল প্রার্থী। নির্দল প্রার্থীর স্ত্রীর অভিযোগ, স্বামীর কোনও খোঁজ মিলছে না। টাকা ও সোনার গয়না লুঠ করা হয়।

Updated: Jul 18, 2013, 10:20 AM IST

গতকাল তৃণমূলের বীরভূমের জেলা সভাপতি বলেছিলেন, কোনও নির্দল প্রার্থী হুমকি দিলে তাঁর বাড়ি ভেঙে দাও, পুলিসকে বোমা মারো। অনুব্রতর সেই ডাকে সাড়া মিলল। বীরভূমে গোপালনগরে নির্দল প্রার্থীর বাড়িতে আগুন ধরানো হল। এমনকি ঘটনার পরই আতঙ্কে ঘরছাড়া সেই নির্দল প্রার্থী। নির্দল প্রার্থীর স্ত্রীর অভিযোগ, স্বামীর কোনও খোঁজ মিলছে না। টাকা ও সোনার গয়না লুঠ করা হয়। দল টিকিট না দেওয়ায় তৃণমূলের ওই সমর্থক নির্দল প্রার্থী হয়ে দাঁড়ান।

অনুব্রতর প্ররোচনাতেই তাঁর বাড়িতে আগুন লাগানো হয়েছে বলে অভিযোগ নির্দল প্রার্থীর।
দেখুন কী বলেছিলেন অনুব্রত মণ্ডল
তবে বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার পিছনে তাঁর উস্কানি আছে এমন অভিযোগ অবশ্য অস্বীকার করেছেন অনুব্রত মণ্ডল।
ঘটনাস্থলে গিয়েছে পুলিস বাহিনী। এর জেরে পঞ্চায়েত ভোটের আগে বীরভূমে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল আরও তীব্র হয়েছে। দলের এক বিক্ষুব্ধ কর্মীর বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার অভিযোগ অনুব্রত মণ্ডলেরই অনগামীদের বিরুদ্ধে।
গতকাল কসবা পাড়ুইয়ে নির্দল প্রার্থীদের সমর্থন করলে বোমা মারার হুমকি দেন অনুব্রত মণ্ডল।  এরপরই রাতে কসবা গোপালপুরে তৃণমূল কর্মী রবিলাল মুর্মুর বাড়িতে হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা।  তাঁর বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়। শতাব্দী রায়ের অনুগামীদের ঠেকাতে পরপর জেলা তৃণমূলের  সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের এ ধরনের মন্তব্যে দলের অন্দরেই ক্ষোভ বাড়ছে।