ছাত্র সংসদ নির্বাচনে গুলি মালদায়, গুলি চালানোর অভিযোগ ওই অঞ্চলের তৃণমূল সভাপতির বিরুদ্ধে

ছাত্র সংসদ নির্বাচনে গুলি চলল মালদার কালিয়াচকের সুলতানগঞ্জ কলেজে। গুলি চালালেন খোদ তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি সহরুল ইসলাম। আজ ওই কলেজে ছাত্র সংসদের নির্বাচন ছিল।

Updated: Jan 27, 2014, 11:59 PM IST

মালদার কালিয়াগঞ্জে ছাত্র সংসদ নির্বাচনে গুলি চালালেন খোদ তৃণমূল অঞ্চল সভাপতি। চাঁচোল কলেজে ছাত্র সংসদ নির্বাচনে সংঘর্ষ। আর ডালখোলা কলেজের ছাত্র সংসদ নির্বাচন বাতিল করে দিল কলকাতা হাইকোর্ট। এরপর হাইকোর্টের বিচারপতির মন্তব্য, রাজ্যে শিক্ষাক্ষেত্রে গণতান্ত্রিক পরিবেশ নেই। তা ফিরিয়ে আনতে হবে। সব মিলিয়ে কলেজ নির্বাচন নিয়ে রীতিমতো অস্বস্তিতে রাজ্য সরকার।

১৬ জানুয়ারি ছিল উত্তর দিনাজপুরের ডালখোলা কলেজে ছাত্র সংসদ নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্র তোলার দিন। আঠাশে জানুয়ারি নির্বাচনের দিন স্থির হয়। অভিযোগ, তৃণমূল ছাত্র পরিষদ এবং ছাত্র পরিষদের সমর্থকেরা অন্য কোনও ছাত্র সংগঠনকে মনোনয়নপত্র তুলতে দেয়নি। একুশটি আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হন প্রার্থীরা। সেই ঘটনায় মামলা দায়ের হয় কলকাতা হাইকোর্টে। ওই মামলার প্রেক্ষিতেই আজ বিচারপতি বলেন, এরাজ্যে শিক্ষাক্ষেত্রে গণতান্ত্রিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে হবে।

বিচারপতি অশোক দাস অধিকারীর নির্দেশ দিয়েছেন নতুন নির্ঘণ্ট প্রকাশ করে ডালখোলা কলেজে ছাত্র সংসদের ভোট করাতে হবে। ভোটের সময় কলেজে উপস্থিত থাকতে হবে স্থানীয় থানার অফিসার ইন চার্জকে। বিচারপতির মন্তব্য, শিক্ষাক্ষেত্রে প্রত্যেককেই গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগের সুযোগ দিতে হবে। ছাত্র নির্বাচন যাতে সুষ্ঠুভাবে হয়, তার জন্য পুলিসকেই ব্যবস্থা নিতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।