রাজনৈতিক সংঘর্ষ হুগলির গোঘাট-পাণ্ডুয়ায়

তৃণমূল অফিস ভাঙচুর হল হুগলির গোঘাটে। গতরাতে ঘটনাটি ঘটে গোঘাট থানার ব্যাঙাই এলাকায়। ছিঁড়ে ফেলা হয় তৃণমূলের দলীয় পতাকা, ফেস্টুন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাটআউট।

Updated: Mar 22, 2014, 03:31 PM IST

তৃণমূল অফিস ভাঙচুর হল হুগলির গোঘাটে। গতরাতে ঘটনাটি ঘটে গোঘাট থানার ব্যাঙাই এলাকায়। ছিঁড়ে ফেলা হয় তৃণমূলের দলীয় পতাকা, ফেস্টুন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাটআউট।

সিপিআইএম ওই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। অফিসে থাকা কয়েকজন দলীয় কর্মীকে মারধর করা হয় বলে পুলিসে অভিযোগ করা হয়েছে। সিপিআইএমের তরফে অবশ্য যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

অন্যদিকে দেওয়ান লিখনকে কেন্দ্র করে সিপিআইএম-তৃণমূল সংঘর্ষে অশান্ত হয়ে উঠল হুগলির পাণ্ডুয়া। গতকাল ভাইরা গ্রামে দুপক্ষের মধ্যে অশান্তি হয়। সিপিআইএম এবং তৃণমূল দুপক্ষই থানায় অভিযোগ দায়ের করে। তৃণমূল শিবিরের অভিযোগ, থানায় অভিযোগ জানিয়ে ফেরার পথে সিপিআইএমের লোকজন তাঁদের কর্মী সমর্থকদের ওপর চড়াও হয়। লাঠির আঘাতে সাতজনের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়। আহতেরা সকলেই পাণ্ডুয়া গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি।

সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে কয়েকজন পুলিসকর্মীও আহত হন। পরিস্থিতি নতুন করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে আজ সকালে। অভিযোগ, গতকালের ঘটনার বদলা নিতে তৃণমূলের লোকজন সিপিআইএমের পাণ্ডুয়া জোনাল কমিটির কার্যালয়ে হামলা চালায়। আগুন লাগানোর চেষ্টা হয় বলেও অভিযোগ। সিপিআইএমের অভিযোগ, তাঁদের কয়েকজন নেতাকর্মীকে মারধর করা হয়েছে। লোকাল কমিটির সম্পাদক সুশান্ত চক্রবর্তীর বাড়িতে ভাঙচুর চালানো হয়। সুশান্ত চক্রবর্তী সহ পঁচিশজন বামকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এলাকায় পুলিস পিকেট বসানো হয়েছে।