রাতারাতি ১৪৪, তেহট্টে যেতে বাধা কংগ্রেস নেতৃত্বকে

তেহট্টে যেতে দেওয়া হল না কেন্দ্রীয় নগরোন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী দীপা দাশমুন্সিকে। তেহট্টের কাছে ভাণ্ডারখোলায় তাঁর কনভয় আটকে দিল পুলিস। বুধবার তেহট্টে পুলিসেরগুলি চালনার ঘটনার পর এআইসিসির নির্দেশে আজ তেহট্টে যাচ্ছিলেন দীপা দাশমুন্সি। সঙ্গে ছিলেন শঙ্কর সিং, নির্বেদ রায়ের মতো কংগ্রেস নেতারা। ভাণ্ডারখোলায় পুলিসের তরফে তাঁদের জানানো হয় তেহট্টে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলার অবনতির আশঙ্কা থাকায় সেখানে কাউকেই যেতে দেওয়া হবে না।

Updated: Nov 16, 2012, 12:26 PM IST

তেহট্টে যেতে দেওয়া হল না কেন্দ্রীয় নগরোন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী দীপা দাশমুন্সিকে। তেহট্টের কাছে ভাণ্ডারখোলায় তাঁর কনভয় আটকে দিল পুলিস।
বুধবার তেহট্টে পুলিসেরগুলি চালনার ঘটনার পর এআইসিসির নির্দেশে আজ তেহট্টে যাচ্ছিলেন দীপা দাশমুন্সি। সঙ্গে ছিলেন শঙ্কর সিং, নির্বেদ রায়ের মতো কংগ্রেস নেতারা। ভাণ্ডারখোলায় পুলিসের তরফে তাঁদের জানানো হয় তেহট্টে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলার অবনতির আশঙ্কা থাকায় সেখানে কাউকেই যেতে দেওয়া হবে না। 
কংগ্রেস প্রতিনিধি দলের হাতে ১৪৪ ধারার নির্দেশের প্রতিলিপিও তুলে দেন ঘটনাস্থলে উপস্থিত পুলিস আধিকারিকরা। জানা গিয়েছে প্রতিলিপিতে তেহট্টের আসপাশের ১০০ মিটার এলাকায় ১৪৪ ধারা জারির কথা ছাপা ছিল। সেটিকে কালি দিয়ে কেটে হাজার মিটার করা হয়েছে। কংগ্রেস নেতারা অভিযোগ করেছেন তাঁদের আটকানোর জন্যই রাতারাতি এই ধারা জারি করা হল। প্রশাসন যখন বলছে এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক তবে ১৪৪ ধারা জারি করা হল কেন সে নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে।
তবে তেহট্টে যেতে বাধা দান এই প্রথম নয়। বুধবার পুলিস গুলি চালানোর পরে বিরোধী কোনও রাজনৈতিক দলের নেতানেত্রীকে এখনও তেহট্টে যেতে দেওয়া হয়নি। বুধবার বাম প্রতিনিধি দলকে আটকে দিয়েছিল পুলিস। বৃহস্পতিবার তেহট্টে ঢুকতে বাধা দেওয়া হয় বাম পরিষদীয় প্রতিনিধি দল ও বিজেপি নেতাদের। যেতে দেওয়া হয়নি এপিডিআর-এর প্রতিনিধি দলকেও।