জ্যোতি বসুর মূর্তি ভেঙে তাতে আলকাতরা মাখিয়ে দেওয়া হল

হাওড়া পুরভোটের আগে সন্ত্রাসের ছবি আরও পরিষ্কার হল। কোথাও ভাঙা হল প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসুর মূর্ত, আবার কোথাও আক্রান্ত হলেন সিপিআইএম প্রার্থী ও পার্টির লোকাল কমিটির সম্পাদক।

Updated: Nov 20, 2013, 10:55 AM IST

জ্যোতি বসুর মূর্তি ভেঙে তাতে আলকাতরা মাখিয়ে দেওয়া হল। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর হাওড়ার এক নম্বর ওয়ার্ডে জে এন মুখার্জি রোডে। জ্যোতি বসু ছাড়াও পাশে থাকা পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মূর্তিতেও আলকাতরা লেপে দেয় দুষ্কৃতীরা। ঘটনাস্থলের কাছে শঙ্করলাল স্মৃতি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। অগ্নিকাণ্ডে স্কুলটির বেশ ক্ষতি হয়েছে। আজ ভোরবেলা এই ঘটনা নজরে আসে স্থানীয় বাসিন্দাদের।
তাঁদের অনুমান, গতকাল রাতেই দুষ্কৃতীরা এই তাণ্ডব চালিয়েছিল। এর প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ বাসিন্দারা বেশ কিছুক্ষণ পথ অবরোধ করেন। পুরসভা নির্বাচনের ঠিক দুদিন আগে এই ঘটনা ঘিরে রাজনৈতিক চাপানউতোর তুঙ্গে উঠেছে। এর পিছনে তৃণমূল কংগ্রেসের হাত আছে বলে অভিযোগ স্থানীয় সিপিআইএম নেতাদের। এই অভিযোগ অবশ্য উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। তাঁদের পাল্টা দাবি, এতে জড়িত সিপিআইএমই। দোষীদের খুঁজে বের করে কড়া শাস্তির দাবিতে সরব স্থানীয় বাসিন্দারা।  
হাওড়া পুরভোটের আগে সন্ত্রাসের ছবি আরও পরিষ্কার হল। কোথাও ভাঙা হল প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসুর মূর্তি, আবার কোথাও আক্রান্ত হলেন সিপিআইএম প্রার্থী ও পার্টির লোকাল কমিটির সম্পাদক।
অন্যদিকে, ভোট প্রচারে বেরিয়ে আক্রান্ত হন সিপিআইএম প্রার্থী বিশ্বরূপ ঘোষ। তিনি হাওড়া পুরসভার বারো নম্বর ওয়ার্ডের প্রার্থী। মঙ্গলবার সন্ধেবেলায় গোলাবাড়ি থানা এলাকার জেলিয়াপাড়া লেনে ঘটনাটি ঘটে।
মারধর করা হয় সিপিআইএমের সালকিয়া দু নম্বর লোকাল কমিটির সম্পাদক ওঙ্কার ব্যানার্জিকেও। শুভেন্দু মণ্ডল নামে এক সিপিআইএম কর্মীর চোখে গুরুতর আঘাত লাগে। গোটা ঘটনায় শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।