সারদাকাণ্ডে প্রতারণার মামলায় ৭ দিনের পুলিস হেফাজত কুণালের

Last Updated: Saturday, November 30, 2013 - 18:52

সারদাকাণ্ডে প্রতারণার একটি মামলায় কুণাল ঘোষের ৭ দিনের পুলিস হেফাজতের নির্দেশ দিলেন হাওড়া চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট। যদিও ওই মামলায় কুণাল ঘোষের নাম ছিল না। গোপন জবানবন্দি এড়ানোর জন্যই কুণাল ঘোষকে সাঁতরাগাছি পুলিস নিজেদের হেফাজতে নিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন কুণালের আইনজীবী।

অন্যদিকে কুণাল ঘোষের গোপন জবানবন্দি দেওয়ার যে অনুমোদন বিধাননগর আদালত দিয়েছিল তারওপর স্থগিতাদেশ চেয়ে মামলা করেছে রাজ্য সরকার। গত ৫ মে সাঁতরাগাছি থানায় ৭ লক্ষ টাকা প্রতারণার অভিযোগ দায়ের করেন জয়ন্ত বেরা নামে এক ব্যক্তি। এফআইআরে সারদা কর্তা সুদীপ্ত সেন এবং এজেন্ট ব্রিজেশ রায়ের নাম থাকলেও, নাম ছিল না কুণাল ঘোষের। কিন্তু এই মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শনিবার কুণাল ঘোষকে নিজেদের হেফাজতে চায় সাঁতরাগাছি থানার পুলিস। পুলিসের আবেদনে সাড়া দিয়ে কুণালকে ৭ দিনের পুলিস হেফাজতের নির্দেশ দেন হাওড়ার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট।

যদিও কুণালের আইনজীবীর অভিযোগ, গোপন জবানবন্দি দেওয়া থেকে বিরত করতেই তাঁর মক্কেলকে নিজেদের হেফাজতে চেয়েছে পুলিস। কুণাল ঘোষের গোপন জবানবন্দি দেওয়ার অনুমোদন দিয়েছিল বিধাননগর আদালত। শনিবার সেই অনুমোদনের ওপর স্থগিতাদেশ চেয়ে মামলা করেছে রাজ্য সরকার। বিষয়টি নিয়ে উচ্চতর আদালতে যেতে চায় সরকার। সেজন্যই এই আবেদন বলে জানানো হয়েছে। যদিও শনিবার আদালত বন্ধ হয়ে যাওয়ায় মামলাটি শুনানির জন্য ওঠেনি। সোমবার ফের আদালতে স্থগিতাদেশের আবেদন জানাবে সরকার।

সারদাকাণ্ডের সিবিআই তদন্ত চেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন কুণাল ঘোষ। নিজেকে নির্দোষ দাবি করে কুণাল ঘোষ জানিয়েছেন এই দুর্নীতি থেকে সুযোগ সুবিধে পেয়েছেন এমন লোকেদের আড়াল করতে চাইছেন ক্ষমতাসীন গোষ্ঠীর একাংশ। সেজন্য তদন্তের রূপরেখা ঠিক করে দেওয়া হচ্ছে।



First Published: Saturday, November 30, 2013 - 18:52


comments powered by Disqus