মদন মিত্রকে এসএমএস হুমকি? এক্সক্লুসিভ

মুখ্যমন্ত্রী থেকে শুরু হয়েছিল। এবার তাঁর মন্ত্রিসভার অন্য সদস্যরাও বিভিন্ন জায়গায় মাওবাদীদের কাজকর্ম ধরে ফেলেছেন। মদন মিত্র যেমন বেলঘরিয়া এলাকায় মাওবাদীদের কার্যকলাপ জেনে ফেলেছেন। আর তারপরেই মদন মিত্রকে নাকি এসএমএস করে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। আসল ঘটনাটা কী? দেখুন ২৪ ঘণ্টার এক্সক্লুসিভ রিপোর্ট।

Updated: Jul 16, 2013, 06:11 PM IST

মুখ্যমন্ত্রী থেকে শুরু হয়েছিল। এবার তাঁর মন্ত্রিসভার অন্য সদস্যরাও বিভিন্ন জায়গায় মাওবাদীদের কাজকর্ম ধরে ফেলেছেন। মদন মিত্র যেমন বেলঘরিয়া এলাকায় মাওবাদীদের কার্যকলাপ জেনে ফেলেছেন। আর তারপরেই মদন মিত্রকে নাকি এসএমএস করে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। আসল ঘটনাটা কী? দেখুন ২৪ ঘণ্টার এক্সক্লুসিভ রিপোর্ট।
এবার মদন মিত্র। তাঁকে নাকি হত্যার হুমকি দিয়ে এসএমএস করা হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই পুলিস কমিশনারকে অভিযোগ জানিয়েছেন মদনবাবু।
 
মদন মিত্র শুধু নন, প্রায় পৌনে আট লক্ষ মানুষের কাছে এই এসএমএস-টি পৌঁছেছিল।
 
কী লেখা আছে সেই এসএমএসে?
``দধিচী অন লাইন, এক মদনের মদতে তৃণমূল বিরোধী যেকোনও ব্যক্তিকে মাওবাদী বলে চিহ্নিত করতে গেস্টাপো বাহিনী তৈরি হচ্ছে। শেষের সেদিন ভয়ংকর।``
 
যে দধিচী সংস্থার তরফে এই এসএমএস পাঠানো হয় তাঁরা বুঝেই উঠতে পারছেন না, এত আতঙ্ক কীসের।
 
দধিচীর পক্ষ থেকে শ্যামল রায় জানিয়েছেন সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয়ের ওপর এগুলি পাঠানো হয়। মদন মিত্রর বক্তব্যে মনে পড়ে গেল গেস্টাপো বাহিনীর কথা। সেই কারণেই এই এসএমএস।
 
একে মন্ত্রী তায় মাওবাদী তকমা। অভিযোগ হয়েছে পুলিসের কাছেও। কিন্তু তাতে একটুও আতঙ্কিত নন এই সংগঠনের সদস্যরা।
 
শিলাদিত্য থেকে শুরু করে তানিয়া ভরদ্বাজ। অম্বিকেশ মহাপাত্র থেকে কামদুনির টুম্পা বা মৌসুমি। এবার যুক্ত হল দধিচী সংগঠন।