মমতা-মোর্চা সম্পর্কের বরফ গলার ইঙ্গিত!

জিটিএ নিয়ে ২৪ মে ত্রিপাক্ষিক বৈঠক হতে চলেছে। মূলত জিটিএর উন্নয়ন নিয়েই বৈঠক হবে বলে যানা গিয়েছে। মঙ্গলবার চারদিনের সফরে দার্জিলিং গিয়ে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রশাসিনক বৈঠক হলেও, বৈঠকের রাজনৈতিক গুরুত্ব রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

Updated: May 15, 2013, 09:10 AM IST

জিটিএ নিয়ে ২৪ মে ত্রিপাক্ষিক বৈঠক হতে চলেছে। মূলত জিটিএর উন্নয়ন নিয়েই বৈঠক হবে বলে যানা গিয়েছে। মঙ্গলবার চারদিনের সফরে দার্জিলিং গিয়ে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রশাসিনক বৈঠক হলেও, বৈঠকের রাজনৈতিক গুরুত্ব রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।
এ বছরের গোড়া থেকেই একাধিক ইস্যুকে কেন্দ্র করে বারবার তিক্ত হয়েছে রাজ্য সরকার ও মোর্চার সম্পর্ক। এই অবস্থায় চারদিনের সফরে ফের পাহাড়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার রিচমন্ড গেস্ট হাউসে বিমল গুরুং, রোশন গিরিদের সঙ্গে বৈঠকে করেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে তিনি মোর্চা নেতাদের জানিয়ে দেন যে  তাঁর সরকার জিটিএ-র সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই পাহাড়ের উন্নয়নের কাজ করবে। সেইসঙ্গে তিনি স্পষ্ট করে দেন যে অতীতের তিক্ততা ভুলে দুপক্ষই পরস্পরের সঙ্গে সুষ্ঠু সম্পর্ক বজায় রেখে কাজ করবে।
 
আগামী চব্বিশে মে জিটিএ নিয়ে ফের ত্রিপাক্ষিক বৈঠক  হবে।  সেখানে রাজ্য সরকারের প্রতিনিধিরাও থাকবেন বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। পাহাড়ের উন্নয়নে এই বৈঠক গুরুত্বপূর্ণ ববে মনে করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর খুশি মোর্চা নেতারাও। কিছুদিন আগেও মোর্চার নেতাদের অভিযোগ ছিল, রাজ্য সরকার জিটিএর কাজে হস্তক্ষেপ করছে। তবে মঙ্গলবারের বৈঠকে দুপক্ষের এবিষয়ে ঠিক কি কথা হল তা স্পষ্ট করেন নি মোর্চা নেতারা। প্রশাসনিক বৈঠক হলেও মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে মোর্চা নেতাদের বৈঠক যথেষ্টই তাত্পর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।